Home বিজ্ঞান ও বিশ্ব বিশ্বের উষ্ণতম স্থান -সাইমুম ইসলাম

বিশ্বের উষ্ণতম স্থান -সাইমুম ইসলাম

লিবিয়ার আল আজিজিয়ারকে পৃথিবীর সবচেয়ে উষ্ণ স্থান বলা হতো। কিন্তু ২০০৫ সালে লুত মরুভ‚মির ভ‚পৃষ্ঠের তাপমাত্রা ৭০.৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস পর্যন্ত বেড়ে যায়। তখন থেকেই এই জায়গাটি বিশ্বের সবচেয়ে উষ্ণতম স্থান হিসেবে গণ্য হয়।
লুত মরু যেন দুনিয়ার বুকে এক টুকরো জাহান্নাম। চারিদিকে বালি আর পাথরে ভরা ধূসর প্রান্তর। এখানকার শুষ্ক, পাথুরে ও গাঢ় রঙের মাটি সূর্যের তাপ ধরে রাখে। লুত মরুভ‚মিতে এই তিনটি বৈশিষ্ট্যই প্রকটভাবে বিদ্যমান। তাই তাপ ধরে রাখার কারণেই এখানকার তাপমাত্রা অন্যান্য এলাকার চেয়ে বেশি।
লুত মরুর অবস্থান ইরানে। দেশটির কেরমান, বালুচিস্তান ও সিস্তান প্রদেশে ছড়ানো এক বিশাল মরু অঞ্চল লুত। ৫১৮০০ বর্গকিলোমিটার আয়তন বিশিষ্ট লুত বিশ্বের ২৫তম বৃহৎ মরুভ‚মি।
পশ্চিম আফ্রিকার কেপ ভার্ডে দ্বীপ থেকে শুরু করে উত্তর আফ্রিকা ও পশ্চিম এশিয়া হয়ে যে আফ্রো-এশিয়ান মরু বেল্ট চলে গেছে সুদূর মঙ্গোলিয়া পর্যন্ত, তার মধ্যেই রয়েছে এই মরু।
এই মরুভ‚মির চারিদিকে বালি আর পাথরে ভরা ধূসর প্রান্তর। বড়ো গাছ বা ঘাস কিছুই নেই এখানে। দিনের বেলা যেমন গরম থাকে রাতে তেমনি ঠাণ্ডা। এমনই এক ভয়ঙ্কর জায়গা লুত মরু।
এই জায়গাটি এতটাই উত্তপ্ত যে সেখানে গিয়ে তাপমাত্রা নির্ণয় করা সম্ভব হয়নি। অবশেষে নাসার একটি ল্যান্ডস্যাট উপগ্রহ ২০০৩ সাল থেকে ২০১০ সাল পর্যন্ত মডিস যন্ত্রের সাহায্যে লুত মরুসহ বিশ্বের বিভিন্ন উষ্ণ অঞ্চলের তাপমাত্রার মূল্যায়ন করে। সেখানেই দেখা গেছে যে এই অঞ্চলের তাপমাত্রা সবচেয়ে বেশি।
বিজ্ঞানীদের কাছে, লুত মরুভ‚মি বিশ্বের সবচেয়ে উত্তপ্ত জায়গা হিসেবে প্রথম স্থান অধিকার করেছে। ২০০২ সাল থেকে ২০১৯ সালের মধ্যে এই এলাকার তাপমাত্রা বীভৎস হয়ে উঠেছিল। এলাকাটি পাহাড়ে ভরা, যার কারণে গরম বাতাস আটকে থাকে। প্রায় ২০০ মাইল এলাকা জুড়ে বিস্তৃত লুত মরুভ‚মি, এখানকার তাপমাত্রা শরীরে রীতিমতো ফোস্কা ফেলে দেয়।
নাসার উপগ্রহ থেকে লুত মরুর ভেতরে উষ্ণতম যে তাপমাত্রা শনাক্ত করা হয়েছে তা হলো ৭০.৭ ডিগ্রি সেন্টিগ্রেড। এটাই এখন পর্যন্ত ভ‚পৃষ্ঠের ওপরে পাওয়া সর্বোচ্চ তাপমাত্রা। যে স্থানে এই তাপমাত্রা পাওয়া গেছে তার নাম গন্দোম বেরিয়ান।
প্রথম গবেষণাটির পরে, নাসা তাদের স্যাটেলাইট সফটওয়্যারের নতুন ভার্সন প্রকাশ করে এবং এর মাধ্যমে পৃথিবীতে ভ‚-পৃষ্ঠের তাপমাত্রা আরো ভালোভাবে শনাক্ত করা যায়। নাসার নতুন সফটওয়্যারের ডাটা বিশ্লেষণ করে গবেষকরা বলেছেন, লুত মরুভ‚মির তাপমাত্রা আগের ধারণার চেয়ে আরো ১০ ডিগ্রি সেলসিয়াস বেশি।
উত্তপ্ত হলেও এই অঞ্চল একেবারে নিষ্প্রাণ নয়। এর প্রান্তীয় এলাকাগুলোতে এশীয় চিতা, বিশেষ প্রজাতির অ্যালিগেটর ও ফ্যালকনের মতো প্রাণীদের বাস।
এখানে কয়েক প্রজাতির মথসহ বেশ কিছু পোকা, মাকড়সা, নানা রকম সরীসৃপ, এমনকি মরু শিয়ালের মতো স্তন্যপায়ী প্রাণী শনাক্ত করা হয়েছে। এমন অঞ্চলে জীবনধারণ সবাইকে অবাক করে দিয়েছে।
যেহেতু প্রাণীর সন্ধান পাওয়া গেছে তাই খুব সম্ভবত এখানে পানির অস্তিত্বও রয়েছে। লুত মরুর উপরিতলের অল্প নিচে কোনো কোনো জায়গায় পানির স্তর আছে, এমন প্রমাণ স¤প্রতি পাওয়া গেছে।
লুত মরুভ‚মি পৃথিবীর সবচেয়ে উত্তপ্ত এলাকা হিসেবে স্বীকৃতি পাওয়ার ফলে ২০১৬ সালে ইউনেস্কোর ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ তালিকায় জায়গা করে নিয়েছে এই মরু অঞ্চল।

SHARE

Leave a Reply