Home Featured শিক্ষাপাতা দ্রুত ইংরেজি শেখার সহজ ৭টি উপায় -নাঈম হোসাইন

দ্রুত ইংরেজি শেখার সহজ ৭টি উপায় -নাঈম হোসাইন

ইংরেজি ভাষার সাথে পরিচিত নয় এমন মানুষ সারা পৃথিবীতে খুঁজে পাওয়া যাবে কি না তা বলা মুশকিল। ইংরেজি একটি আন্তর্জাতিক ভাষা। তুমি যদি ইংরেজিতে সঠিক উচ্চারণে অনর্গল কথা বলতে পারো তবে তুমি একজন ভাগ্যবান ব্যক্তি। কেননা, এটি পৃথিবীর দ্বিতীয় সর্বাধিক ব্যবহৃত কথ্য ভাষা।
দ্রুত ইংরেজি শেখার বেশ কিছু পদক্ষেপ রয়েছে। তুমি সেগুলো অনুসরণ করতে পারো। কারণ, এতে করে তোমার মূল্যবান সময় নষ্ট হবে না এবং ইংরেজি শেখার প্রতি অনাগ্রহও তৈরি হবে না।

১. শেখার আগ্রহ
ইংরেজি শিখতে প্রথম যেটি প্রয়োজন সেটি হলো শেখার আগ্রহ। তুমি ইংরেজি শেখার জন্য সময় দিতে পারো, কোর্স করতে পারো, চাইলে মুভিও দেখতে পারো। তুমি যেটাই কর না কেন সেখানে যদি তোমার কোনো আগ্রহ না থাকে তাহলে সেটা থেকে ভালো আউটপুট আনা কঠিন। তাই যেভাবেই ইংরেজি শিখো না কেন তোমাকে পুরো মনোযোগ সেখানে দিতেই হবে, নচেত শুধুই হতাশা আর ভয় তৈরি হবে বৈ কি।

২. ইংরেজির ভয় দূর করা
ইংরেজি ভয় যেন বাংলাদেশী মানুষের এক অবিচ্ছেদ্য সমস্যা। যদিও এজন্য তাদের খুব দোষ দেওয়াও যায় না। কিন্তু ইংরেজি শিখতে হলে অবশ্যই এবং অবশ্যই এই ভয়টুকু দূর করতে হবে। এর কোনো বিকল্পই নেই। ইংরেজিকে একটি ভীষণ কঠিন বিষয় হিসেবে না নিয়ে একটি ভাষা হিসেবে নিতে হবে। বাংলা যেমন একটি ভাষা; ইংরেজিও তেমনই একটি ভাষা। ইংরেজি ভাষা শিখতে গিয়ে ভুল করলে যদি কেউ কিছু মনে করে বা মানুষ কিছু বলে সেই ভয় রেখে আর যাই হোক ইংরেজি কেন কোনো ভাষাই শেখা সম্ভব নয়।

৩. ব্যাকরণ উন্নত করা
ইংরেজি ভাষা ভালো বলতে চাইলে তোমার ব্যাকরণের জ্ঞান থাকা খুবই জরুরি। এর জন্য ইংরেজি ব্যাকরণ সম্পর্কিত নিয়মগুলো বুঝতে হবে। ইংরেজি ব্যাকরণ সঠিকভাবে বুঝতে হলে বাজারে পাওয়া যায় এমন অনেক বইয়ের সাহায্য নিতে পারো। অথবা কোনো ট্রেনিং সেন্টারে কোর্স করতে পারো। তবে মনে রাখতে হবে যেভাবেই গ্রামার শেখো না কেন এটাকে ব্যবহারিক জীবনে কীভাবে কাজে লাগানো যায় সেটা নিয়ে কাজ করতে হবে, সেই দৃষ্টিভঙ্গি নিয়ে গ্রামার শিখতে হবে।

৪. প্রচুর ইংরেজি শোনা
ইংরেজি শোনা। সত্যি বলতে এটিই ইংরেজি শেখার সবচেয়ে ভালো মাধ্যম বলা চলে। তুমি যদি বাচ্চাদের কখনো লক্ষ করে থাকো তাহলে নিশ্চয়ই জানবে যে ছোটো বাচ্চারা কিছু পড়তেও পারে না বা লিখতে পারে না, তারা শুধু শোনে প্রচুর শোনে; টানা ৬-৭ মাস কিংবা বছরেরও বেশি সময় ধরে বাচ্চা শুধু শুনেই যায়। এরপর ধীরে ধীরে তাদের দুর্বোধ্য শব্দগুলো বোধগম্য হতে শুরু করে। আর এই পুরো প্রক্রিয়াটাই হয় শোনার মাধ্যমে। এরপর অটোমেটিক্যালি তারা এটা ব্যবহার করতে পারে।

৫. প্রচুর পরিমাণে নতুন নতুন ইংরেজি শব্দ শেখো
আমি বাস্তব জীবনে বহু শিক্ষার্থী দেখেছি যারা নিখুঁতভাবে ইংরেজি উচ্চারণ করতে পারে, কিন্তু তাদের ইংরেজি শব্দভান্ডার খুবই সীমিত। আর এটি হলো ইংরেজিতে দক্ষতা অর্জনের ক্ষেত্রে সবচাইতে বড়ো বাধা। ইংলিশ গ্রামারের চাইতেও অধিক গুরুত্বপূর্ণ এই ভোকাবুলারি। তাই প্রতিনিয়ত নতুন নতুন ইংরেজি শব্দ শেখার চেষ্টা করো।

৬. ইংরেজি বলা
যেকোনো ভাষাকে রপ্ত করার সর্বশেষ ধাপ বলা চলে এটিকে। তুমি যদি একটি ভাষা ভালোভাবে বলতে পারো তার মানে ইতোমধ্যে তুমি ভাষাটি বুঝতে পারছ। কিন্তু আজ অবধি ইংরেজিতে মানুষের দুর্বলতা বিষয়ে সবচেয়ে বেশি যা শুনেছ সেটি সম্ভবত, ‘আমি বুঝি, কিন্তু বলতে পারি না’। এই বলতে পারাটাই ভাষা রপ্ত করার সর্বশেষ ধাপ বলা চলে। তাই যেটাই শেখো আর যতটুকু শেখো সেটাকে কথা বলার মাধ্যমে প্রয়োগ করো। দেখবে তোমার কাছে ইংরেজি ভাষা তোমার নিজের ভাষার মতোই মনে হবে।

৭. আয়নায় নিজের সাথে কথা বলো
যখনই তুমি ইংরেজিতে কথা বলো, তোমার মনে প্রায়ই একটি ভয় থাকে। যে তুমি কিছু ভুল বলছ অথবা তোমার ইংরেজি ভুল হলে মানুষ কী ভাববে। এমন অনেক প্রশ্ন তোমার মনে জাগে। এতে তোমার আত্মবিশ্বাস কমে যায়, এই সমস্যা এড়াতে তুমি চাইলে আয়নার সামনে দাঁড়িয়ে কথা বলতে পারো। এতে তোমার ভয় কেটে যাবে এবং একইসাথে তোমার আত্মবিশ্বাসও বেড়ে যাবে।

SHARE

Leave a Reply