Home কুরআন ও হাদিসের আলো হাদীসের আলো হাদিসের আলো

হাদিসের আলো

এক বছরের আমল

বাগানের ফুলগুলোর দিকে তাকালেই মন ভালো হয়ে যায় ফাইয়াজের। রং আর সুবাসের মিশেলে সুশোভিত এ যেন এক ফেরদাউস-নগর! শুধু মনে নয়, চোখেও আরাম এনে দেয় প্রতিটি ফুল, প্রতিটি পাপড়ি-পাতা। সবচেয়ে বড়ো কথা, এ ফুলের বাগান ফাইয়াজের নিজ হাতে গড়া। বীজ থেকে চারা, চারা থেকে ফুল- সবখানে মিশে আছে তার মায়ার পরশ। মিশে আছে হীরা হীরা আবেগের দানা।

জুমার দিন এলেই শুরু হয়ে যায় বাগানের নিবিড় পরিচর্যা। ছুটির দিন, তাই সে নিজেকে উজাড় করে দিতে পারে ফুলের সংসারে। গাছগুলো যেন এ দিন আসারই অপেক্ষা করে সবসময়। ফুলের সাহচর্যে ফাইয়াজের জুমাবার হয়ে ওঠে আরও মধুর, প্রাণবন্ত!

আজ সকাল থেকেই ফাইয়াজ বাগানে কাজ করছে। কী যে ভালো লাগছে তার। আর ফুলের কাছে এলে মানুষ তো সুরভিত হবেই। পেছন থেকে হঠাৎ বাবা ডাক দিলেন। বললেন, আজ জুমাবার! দ্রুত মসজিদে যাওয়ার প্রস্তুতি নাও। ফাইয়াজ বলল, জি বাবা। কিন্তু এখনও তো এগারোটাও বাজেনি!

বাবা বললেন, কয়টা বেজেছে, তা দেখার বিষয় নয়। বিষয় হলো, তুমি সবার আগে মসজিদে যেতে পারছ কি-না! এ জন্য যদি সকাল ৮টায়ও যেতে হয়, তা-ই করা উচিত! ফাইয়াজ কিছুই বুঝে উঠতে পারছিল না। শুধু নীরবে তাকিয়ে থাকল বাবার দিকে। বাবা যেন তার চোখের ভাষাও অনুবাদ করে ফেললেন! তাই বললেন, শোনো-

মহানবী (সা) বলেছেন, “যে লোক জুমার দিনে মাথা ও শরীর ধুয়ে উত্তমরূপে গোসল করে প্রথম সময়েই মসজিদে যায়, ইমামের কাছাকাছি বসে, কোনো অর্থহীন কাজ না করে; প্রতিটি কদমের বিনিময়ে তার জন্য রয়েছে এক বছর সিয়াম পালন এবং সালাত আদায়ের সওয়াব।” (নাসায়ি)।

পথে প্রতিবার পা ফেলায় এক বছর আমলের সওয়াব? ফাইয়াজের কণ্ঠে বিস্ময়! বাবা বললেন, হ্যাঁ! তুমি ঠিকই ধরতে পেরেছ।
তার সুবহানাল্লাহ বলার শব্দ যেন প্রতিটি ফুলের হৃদয় স্পর্শ করল। ঝুমকো জবার মতো দুলতে দুলতে ফাইয়াজ বলল, আমি এখনই তৈরি হয়ে আসছি, বাবা! বাবা একবার ফুলের দিকে তাকান, একবার ফাইয়াজের দিকে।
বিলাল হোসাইন নূরী

SHARE

Leave a Reply