Home কুরআন ও হাদিসের আলো কুরআনের আলো কুরআনের আলো

কুরআনের আলো

মাটির মানুষ খাঁটি

পুরনো একটি দৈনিক পত্রিকার পাতা পড়ে থাকতে দেখে জায়েদ তা কুড়িয়ে নিলো। হাতে নিয়ে দেখল, ছোটোদের সাহিত্যপাতা। আর এমন পাতা পেলে, তা পড়ে শেষ না করে কি পারা যায়? পড়তে পড়তে একটি ছড়ায় গড়াগড়ি খেতে লাগল সে। বিষ্টিঝরা মিষ্টি ছড়া-
আমায় যদি প্রশ্ন করো ডেকে
বলো তোমার প্রিয় মানুষ কে কে?
বলব আমি মুচকি ঠোঁটে হেসে
চুপটি করে তোমার কাছে এসে:
ভালোবাসার প্রথম মানুষ যিনি
তাঁর কাছে এই পৃথিবীটাই ঋণী
রাসূল তিনি, সব নবীদের নবী
বুকের খাতায় এঁকেছি তাঁর ছবি।
তাঁর পরে তো প্রিয়, পিতা-মাতা
যাদের হাতে স্নেহের সবুজ ছাতা।
জায়েদ ভাবল, এ তো তার মনের কথাই! মহানবী (সা) এর চেয়ে প্রিয় মানুষ আর কে থাকতে পারে পৃথিবীতে? না, কেউ নেই। বুকটা যেন হু হু করে কেঁদে উঠল তার। আহা! যদি সেই প্রিয়তম মানুষের সাথে দেখা হয়ে যেত কোনো দিন! তার মন ও মনন জুড়ে যেন রাসূল নামের ঝড় উঠল। দীর্ঘ সময় জুড়ে শুধু তাঁকে নিয়েই ভাবনা। হঠাৎ মনে হলো, মহানবী (সা) কি আমাদের মতোই মানুষ ছিলেন? শুনেছি, তিনি নুরের তৈরি! ফেরেশতারা নুরের কিন্তু মানুষ তো মাটিরই তৈরি! নতুন এক ধাঁধায় পড়ে গেল যেন সে।
বড়ো ভাইয়ার কাছে হয়তো সমাধান পাওয়া যাবে। ভাইয়া মাত্রই কুরআন পাঠ শেষ করে উঠেছেন। সব শুনে ভাইয়া বললেন, মানুষের জন্য আল্লাহ মানুষকেই পাঠিয়েছেন। আমরা মাটির, তাই নবীও মাটির। আমরা নুরের ফেরেশতা হলে নবীও হতেন নুরের তৈরি ফেরেশতা। আল্লাহ তায়ালা বলেছেন-
“আর যখন মানুষের কাছে হেদায়াত আসে, তখন তাদের ঈমান আনা থেকে বিরত রাখে কেবল তাদের এ কথা যে, ‘আল্লাহ্ কি মানুষকে রাসূল করে পাঠিয়েছিলেন? বলুন, ‘ফেরেশতাগণ যদি নিশ্চিত হয়ে জমিনে বিচরণ করত, তবে আমরা আসমান থেকে তাদের কাছে অবশ্যই ফেরেশতা পাঠাতাম রাসূল করে।” (সূরা বনি ইসরাইল : ৯৪-৯৫)। তাহলে আমরা বুঝলাম, নবীরাও মানুষ, আর মানুষ মানেই মাটির তৈরি। প্রত্যেকে আদম থেকে, আর আদম এসেছে মাটি থেকে! তাঁরা মাটির মানুষ হয়েও ছিলেন একদম খাঁটি!
জায়েদ বলল, সত্যিই তো! তার মুখ থেকে যেন মনের অজান্তেই বেরিয়ে এলো- আল্লাহুম্মা সাল্লি আলা মুহাম্মাদ।

SHARE

Leave a Reply