Home ছড়া-কবিতা কবিতা একটা কাটলে দুইটা রুই এ কে আজাদ

একটা কাটলে দুইটা রুই এ কে আজাদ

ও ভাই শোনো আমজনতা! শোনো সমাজপতি!
গাছ কাটলে হয় দেশের ক্ষতি, হয় যে দশের ক্ষতি।

হাজার রকম পাখ-পাখালি গাছে বাঁধে বাসা,
সকাল সন্ধ্যায় গান শুনিয়ে ছড়ায় ভালোবাসা।
মন খারাপের বিকেল এলে পাখির গানে মাতি,
কিচিরমিচির মধুর সুরে হৃদয় আসন পাতি।
সেই পাখিদের শেষ ঠিকানায় আঘাত করে তাই
কেউ হইও না এমন নিদয় বন্য পশু ভাই!

চোত-বোশেখের ভীষণ রোদে শরীর পোড়ে যখন,
ক্লান্ত পথিক গাছের তলায় ছায়া খোঁজে তখন।
সেই পথিকের সুখের ছায়া দেয় মুছে যে ভাই,
তাহার মতন নিঠুর মানব এই জগতে নাই।

দেখছো কি ভাই- ভীষণ ঝড়ে হানলে আঘাত ঘরে,
দেয়াল হয়ে বুক চেতিয়ে গাছই রক্ষা করে;
যেই গাছেরা বন্ধু হয়ে ঝাপটা এমন রুখে
তার বিনাশে নিজেরই জান তুলছি ভরে দুখে!

স্বার্থ নিয়ে মানুষ খেলে চতুরঙ্গ খেলা,
গাছ কিন্তু বন্ধু হয়ে লাগে কাজের বেলা!
গাছের মতন স্বার্থহীনা মানুষ-বন্ধু নয় গো!
বন্ধুরে যে হত্যা করে সেই কি মানুষ হয় গো!

বিষাক্ত সব অঙ্গার খেয়ে বিলায় অম্লজান,
প্রাণ বাঁচানো ক্রিয়া এমন গাছের অবদান।
গাছে কত আহার জোগায় ফল দিয়ে জল দিয়ে!
কত্তো জীবে শক্তি জোগায় গাছেরা বল দিয়ে!
সবুজ দেখলে চোখের জ্যোতি বাড়ে নাকি শুনি,
গাছের কত গুণ আছে ভাই আমরা কি সব গুনি?

প্রাণের বায়ু সাজিয়ে দিয়ে গাছের সবুজ পাতায়,
মহান প্রভু হিসাব রাখেন জীবন দানের খাতায়।

সেই গাছেদের কেটে আমরা কুড়াল মারি পায়ে,
বুঝি না তো জীবন লুকায় গাছের মিহি বায়ে!
আমাদের প্রাণ-ভোমরা বুঝি গাছের পাতায় থাকে
বুঝি না তো গাছের সাথে আমরাই কাটি তাকে!
গাছ-কাটা আর আত্মহত্যা সমান বলি তাই,
একটা কাটলে বদলায় দুইটা গাছ লাগাবো ভাই!

SHARE

Leave a Reply