Home স্বাস্থ্য কথা শিমের কালো বিচির উপকার । খালেদ মাহমুদ

শিমের কালো বিচির উপকার । খালেদ মাহমুদ

কালো শিমের বিচি প্রথম উৎপাদন করা হয় আজ থেকে প্রায় হাজার বছর আগে পেরুতে। পরে তা দক্ষিণ আমেরিকার প্রধান খাদ্যসামগ্রীতে পরিণত হয়। এরপরে আস্তে আস্তে এশিয়া মহাদেশে ছড়িয়ে পড়ে। কালো শিমের বিচি উচ্চ ফাইবার, প্রোটিন অ্যান্টি অক্সিডেন্ট, ভিটামিন এবং মিনারেল সমৃদ্ধ একটি পুষ্টিকর খাবার। সাদা ভাতের সাথে মিশ্রিত করা কালো শিমের বিচি পুরোপুরি প্রোটিন সমৃদ্ধ একটি খাবার হয়ে ওঠে। যারা বেশি সবজি খেতে পছন্দ করেন না খুব একটা তারা ভিটামিনের চাহিদা মেটাতে এই খাবারটি খেতে পারেন।
১. কালো শিমের বিচি মানবদেহে রক্তের সুগার নিয়ন্ত্রণ করে এবং গ্লাইকোজেন সরবরাহ করে। দেহে কার্বোহাইড্রেট এবং প্রোটিনের মাত্রা ঠিক রাখে। প্রচুর পরিমাণে প্রোটিন এবং ফাইবারযুক্ত কালো শিমের বিচি হজমে সহায়তার মাধ্যমে পরিপাকনালীর উপকার করে।২. কালো শিমের বিচিতে বিপুল অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ ৮ ধরনের ফ্ল্যাভোনয়েডস রয়েছে যা ক্যান্সার প্রতিরোধে সহায়ক। সম্প্রতি এক গবেষণায় বলা হয় যে শিমের বিচি কোলন ক্যান্সারে সহায়ক কোলন অ্যাডেনোমার বিপরীতে শক্তিশালী অ্যান্টিাঅক্সিডেন্ট হিসেবে কাজ করে থাকে।
৩. কালো শিমের বিচিতে প্রচুর পরিমাণে দ্রবণীয় ফাইবার রয়েছে যেটি রক্তে কোলেস্টেরলের মাত্রা নিয়ন্ত্রণ করে থাকে। করোনারি হৃদরোগ এবং হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকি কমায়। এ ছাড়াও শিমের বিচিতে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এবং অ্যান্টি ইনফ্ল্যামেটরি উভয় উপাদানই রয়েছে যা হৃদরোগ নিয়ন্ত্রণ করে।
৪. প্রচুর পরিমাণে প্রোটিন এবং ফাইবারযুক্ত কালো শিমের বিচি হজমে সহায়তার মাধ্যমে পরিপাকনালীর উপকার করে। এ ছাড়া দেহের বিভিন্ন রাসায়নি পদার্থের মাত্রা নিয়ন্ত্রণ করে থাকে।
৫. কালো শিমের বিচিতে মোটামুটিভাবে ২-৩ শতাংশ চর্বি রয়েছে তবে কোলেস্টেরল একেবারেই নেই। এটি শরীরের অতিরিক্ত ফ্যাট নিয়ন্ত্রণ করে থাকে এবং স্বাস্থ্যোপযোগী ফ্যাট প্রদান করে থাকে।
৬. শিমের বিচিতে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন বি৬ বা ফোলেট আছে। স্নায়ুতন্ত্রের স্বাস্থ্য এই উপাদানটির ওপরে নির্ভরশীল যেটি শরীরে অ্যামিনো অ্যাসিড তৈরি করে কাজ সম্পাদন করে। এ ছাড়াও অন্যান্য উপকারও করে থাকে।
৭. ত্বকের জন্য এই খাবার বেশ উপযোগী। কার্বোহাইড্রেটের মাত্রা নিয়ন্ত্রণে রেখে কালো শিমের বিচি ওজন কমাতেও সহায়তা করে থাকে।

SHARE

Leave a Reply