Home কুরআন ও হাদিসের আলো কুরআনের আলো মাতৃভাষা খোদার সেরা দান

মাতৃভাষা খোদার সেরা দান

বিস্মিল্লাহির রাহমানির রাহীম
“আমি নিজের বাণী পৌঁছাবার জন্য যখনই কোনো রাসূল প্রেরণ করেছি, সে তার নিজের সম্প্রদায়েরই ভাষায় বাণী পৌঁছিয়েছে, যাতে সে তাদেরকে খুব ভালো করে পরিষ্কারভাবে বোঝাতে পারে। তারপর আল্লাহ যাকে চান তাকে পথভ্রষ্ট করেন এবং যাকে চান হেদায়াত দান করেন। তিনি প্রবল পরাক্রান্ত ও জ্ঞানী।”
(সূরা ইবরাহিম, আয়াত ৪)

সুপ্রিয় বন্ধুরা,
মহান আল্লাহ মানবজাতিকে আশরাফুল মাখলুকাত হিসেবে সৃষ্টি করে তাকে এমন কতিপয় বৈশিষ্ট্য দ্বারা সৌন্দর্যমণ্ডিত করেছেন, যা অন্য কোনো সৃষ্টিকে প্রদান করেননি। এর মধ্যে মাতৃভাষা হলো অন্যতম একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। ইসলামে মাতৃভাষার গুরুত্বকে ভালোভাবেই স্বীকৃতি প্রদান করা হয়েছে। পৃথিবীতে মানব সৃষ্টির শুরু থেকে মহান আল্লাহ যত নবী ও রাসূল প্রেরণ করেছেন, প্রত্যেককে তাঁর স্বজাতির ভাষায় লোকদেরকে হেদায়াতের পথপ্রদর্শনের ব্যবস্থা করেছেন। যেমন তাওরাত, যবুর ও ইঞ্জিল কিতাব এবং অন্যান্য সহীফাগুলো আরবি ভাষা ছাড়া অন্য ভাষায় নাজিল হয়েছিল। সর্বশেষ আল কুরআন আরবদের ভাষা আরবিতে নাজিল হয়েছে। কেননা রাসূল (সা) আরবি ভাষাভাষী ছিলেন। সুতরাং আমরা বলতে পারি যে, মাতৃভাষা হচ্ছে মহান আল্লাহ তায়ালা কর্তৃক প্রদত্ত একটি সেরা উপহার। কেননা মাতৃভাষায় নবী-রাসূলদের মিশন বাস্তবায়ন যতটা সহজ, অন্য ভাষায় তা মোটেই সহজ নয়।
কিন্তু একটি বিষয় আমাদের খেয়াল রাখতে হবে যে, বংশ, বর্ণ কিংবা ভাষার মধ্যে গর্বের কিছু  নেই। অর্থাৎ বিশেষ ভাষার কারণে কোনো জাতি গোত্র বা গোষ্ঠী পৃথিবীতে বিশেষ মর্যাদার অধিকারী নয়। বর্তমান পৃথিবীতে বর্ণ বা ভাষা নিয়ে অনেক ধরনের ভেদাভেদ, শত্রুতা, বিদ্বেষ, ঘৃণার সৃষ্টি হয়েছে। অথচ ইসলাম প্রত্যেক বর্ণ, বংশ এবং ভাষার প্রতি শ্রদ্ধা প্রদর্শন করেছে। প্রত্যেককে মানুষ হিসেবে সমান মর্যাদা প্রদান করা হয়েছে। এ ব্যাপারে আল্লাহ বলেন, “আমি তোমাদেরকে বিভিন্ন জাতি ও গোষ্ঠীতে বিভক্ত করে দিয়েছি যাতে তোমরা পরস্পরকে চিনতে পার।” (সূরা হুজুরাত : ১৩)
সুতরাং বন্ধুরা, আমরা আমাদের মাতৃভাষার জন্য গর্বিত হবো কিন্তু অন্য ভাষার প্রতি ঘৃণা বা বিদ্বেষ পোষণ করবো না। তা ছাড়া আমরা আমাদের মাতৃভাষাকে জ্ঞান অর্জনের জন্য সর্বোত্তমভাবে কাজে লাগানোর চেষ্টা করবো। আল্লাহ আমাদেরকে কবুল করুন। আমিন।

গ্রন্থনা : মোহাম্মদ ইয়াসীন আলী

SHARE

1 COMMENT

Leave a Reply to Jubair Cancel reply