Home নিয়মিত রহস্যভেদ রহস্যভেদ

রহস্যভেদ

‘সেবার গরমও পড়েছিল ভীষণ। মুরুব্বিরা বলাবলি করছিল, এরকম গরম বলে বিগত কুড়ি বছরের মধ্যে পড়েনি।’ যথারীতি গল্পের আসরের মধ্যমণি ছোট চাচা। কিন্তু আজকের এই আসরের ব্যতিক্রম হচ্ছে সকলের প্রিয় কিশোর গোয়েন্দা রাসেল মাহফুজের অনুপস্থিতি।
ছোট চাচা তার জীবনের অনেকগুলো রোমাঞ্চকর গল্পের একটি বলে চলেছেন- ‘আগেই বলেছি এই গরমকালটা আমি ঝিনাইদহের হরিণাকুণ্ডতে কাটিয়েছিলাম। এমনিতেই গরমের সময় যশোর-কুষ্টিয়া-ঝিনাইদহ অঞ্চলে দেশের মধ্যে সর্বোচ্চ গরম পড়ে। বৈশাখের বোধহয় ৭ কি ৮ তারিখ হবে সেদিন। ভ্যাঁপসা গরমের সেই দুপুরে ঘরের মধ্যে শুয়ে ছিলাম আমি। ঘামছিলাম দরদর করে। বিছানায় ছটফট করছিলাম খালি। একসময় টিকতে না পেরে বাইরে বের হলাম। উদ্দেশ্য, একটু প্রকৃতির স্নিগ্ধ হাওয়ায় শরীর জুড়িয়ে নেয়া। আমি হেঁটে চলেছি। বাতাস খুব একটা না থাকলেও বেশ আরামই লাগছিল। হঠাৎ চোখ পড়ল পাশের একটা বাগানের দিকে। হরেক রকম ফুলের গাছ সেখানে। প্রত্যেকটিতে বিভিন্ন ফুল ফুটে আছে। এই যেমন বাবলা, গোলাপ। বড় বড় পাতার আড়াল থেকে উঁকি দেয়া গোল গোল হলুদ কদম ফুলগুলো আমার বিশেষ দৃষ্টি কাড়ল। কদম গাছতলাতেও বেশ কূড়ি ঝরে পড়ে ছিল। আমি কিছু কূড়ি কুড়িয়ে হাতে তুলে নিলাম।’
‘তারপর কী হলো ছোট চাচা?’ ছোট চাচা একটু থামতেই তার কথার মাঝে জিজ্ঞেস করল সাদিয়া।
ছোট চাচা একটু মুচকি হাসলেন। তারপর বললেন, ‘আমি তো হাঁটতে হাঁটতে আরো সামনে চলে গেলাম। এদিকটাতে ফসলের ক্ষেত ছিল। আঁকাবাঁকা রাস্তার ধারে ধারে ছিল বাবলা গাছের সারি। ওই গাছগুলোতেও ছোট ছোট হলুদ ফুল ফুটে ছিল। আমি একটা গাছের নিচে রাস্তার ঘাসের উপরে শুয়ে পড়লাম। বাবলা গাছের কচি কচি পাতার ফাঁক-ফোঁকর দিয়ে সূর্যের আলো এসে আমার গায়ে পড়ছিল। কিন্তু খারাপ লাগছিল না আমার। আসলে ঝিরিঝিরি বাতাস সূর্যের সে তেজকে ম্লান করে দিচ্ছিল। আমি অনেকক্ষণ ওভাবেই শুয়ে থাকলাম। বোধহয় ঘুমিয়েও পড়েছিলাম। তারপর…’
ছোট চাচার কথার মাঝে এবার কথা বলে উঠল পিয়াল। ও এতক্ষণ গভীরভাবে কী যেন ভাবছিল। বলল, ‘ছোট চাচা, এক মিনিট।’
থমকে গেলেন ছোট চাচা। কেমন ফ্যালফ্যাল করে তাকিয়ে রইলেন পিয়ালের দিকে।
পিয়াল বলল, ‘সত্যি করে বলো তো ছোট চাচা গল্পটা বানিয়ে বলছো কি-না?’
একটু ‘থ’ মেরে থেকে পরক্ষণই ‘হো হো’ করে হেসে উঠলেন ছোট চাচা। বললেন, ‘রাসেল মাহফুজ তোদেরকেও দেখছি গোয়েন্দা বানিয়ে ছেড়েছে।’
প্রিয় বন্ধুরা, এখন বলো তো পিয়াল কিভাবে বুঝল যে ছোট চাচা গল্পটা বানিয়ে বানিয়ে বলছেন?
ফেব্রুয়ারি ২০১২ সংখ্যার উত্তর : মোবাইলটা হারিয়ে গেছে। নতুন মোবাইল কিনেছি। নং ০১৩২৩৪৬৯৫৬৮।
পুরস্কার বিজয়ী : আবু তাহের রাজু, বিয়ানীবাজার, সিলেট।

SHARE

2 COMMENTS

Leave a Reply