Home কুরআন ও হাদিসের আলো হাদীসের আলো হাদিসের আলো

হাদিসের আলো

ফুল বাগানের মালী

রাশি রাশি ফুল ফুটে আছে আঙিনায়, ছোটোচাচ্চু ও মাইমুনের শখের বাগানে। নানান জাতের ফুল, নানান রঙ ও ঘ্রাণের। চারদিকে যেন পবিত্রতার নরম ছোঁয়া। এমন দৃশ্য কার না ভালো লাগে! যে-ই আসে এখানে, একবুক ফুলেল ভালোবাসা নিয়ে ফিরে যায়। ফজর সালাত আদায় করে দু’জনই এসে দাঁড়িয়েছে বাগানের পাশে। প্রতিটি ফুলের পাপড়ি-পাতায় জমে আছে রূপা রূপা শিশিরকণা। রঙিন পাখা মেলে উড়ছে প্রজাপতি-পরীরা। ছোটোচাচ্চু বললেন- দেখো, দেখো, কী সুন্দর লাগছে সবকিছু। মাইমুন বলল, আলহামদুলিল্লাহ।
বাগানে কিছু আগাছা জন্মেছে। ছোটোচাচ্চু বললেন- আজই আমরা এগুলো তুলে ফেলব। নিয়মিত যত্ন না নিলে তো এমন বেহেশতি ফুল আর ফুটবে না।
মাইমুন বলল, অবশ্যই চাচ্চু। তবে আজ নয়। আমরা বরং আগামীকাল সব কাজ শেষ করে ফেলব ইনশাআল্লাহ।
চাচ্চু হেসে বললেন- কাল নয়, এখনই! যেদিনের কাজ সেদিনই করতে হয়। অলসরাই কেবল আগামীকালের জন্য সব ফেলে রাখে। আর মুমিন কখনো অলস হতে পারে না। তার সকালটাই হয় নতুন উদ্যমের সুবাতাস নিয়ে।

মহানবী (সা) বলেছেন- “তোমাদের কেউ যখন ঘুমিয়ে পড়ে, শয়তান তার ঘাড়ের পেছনের অংশে তিনটি গিরা দেয়। প্রতি গিরায় সে থাপ্পড় দেয় আর বলে- রাত পোহাতে এখনো অনেক দেরি, শুয়ে থাকো। যদি তার ঘুম ভেঙে যায় এবং আল্লাহর নাম স্মরণ করে, তখন একটি গিরা খুলে যায়। এরপর যদি অজু করে, আরেকটি গিরা খুলে যায়। তারপর সালাত আদায় করলে শেষ গিরাটিও খুলে যায়। ফলে তার সকাল হয় কর্মোদ্যম ও প্রফুল্ল মনে। আর তা না হলে, সে সকালে ওঠে অপবিত্র মন ও অলস দেহ নিয়ে।” (বুখারি)। তুমি তো যথাসময়েই ঘুম থেকে উঠে গেছো! তাহলে অন্য সকল কাজে আর অলসতা কেন?
মাইমুন বলল- ঠিক আছে চাচ্চু! আমি তো শয়তানের জাল ছিঁড়ে ফেলেছি, তাহলে আর পরওয়া কীসের? পরম আদরে আমরা আমাদের বাগানটিকে আরো সতেজ করে তুলতে চাই! চাচ্চু বললেন, এই তো সাহসী ছেলে!
একটু পরই, কাজে নেমে গেল ফুল বাগানের দুই মালী। তাদের মনও ফুলের মতো কোমল ও সুরভিত। তা না হলে কি ফুলের সাথে বসবাস করা যায়?
বিলাল হোসাইন নূরী

SHARE

Leave a Reply