Home কুরআন ও হাদিসের আলো কুরআনের আলো কুরআনের আলো

কুরআনের আলো

কণ্ঠস্বর
সালাতুল আসর শেষ হলো এইমাত্র। আহমদও গিয়েছিল মসজিদে। তবে সে পুরোপুরিভাবে জামায়াত পায়নি। ইমাম সাহেব সালাম ফেরানোর পর সে দাঁড়িয়ে গেল, তার ছুটে যাওয়া এক রাকাত সালাত আদায়ের জন্য। কিন্তু সালাত আদায় করতে তার ভীষণ কষ্ট হচ্ছিল। কিছু লোক বেশ কথা বলাবলি করছিল মসজিদে। তাদের উঁচু আওয়াজের কারণে আহমদ সঠিকভাবে সূরা পড়তে পারছিল না।
ইমাম সাহেব তাদের উঁচু আওয়াজে কথা বলার বিষয়টি খেয়াল করেছেন। তিনি তাদের থামিয়ে দিলেন। আহমদের সালাত শেষ হওয়ার পর তিনি বললেন- একটা জরুরি বিষয় আমাদের জানা প্রয়োজন। মসজিদে এভাবে কথা বলা উচিত নয়। ওমর (রা) একবার দেখলেন- দু’জন লোক মসজিদে নববীতে উঁচু আওয়াজে কথা বলছে। তিনি বললেন- তোমরা কোন্ জায়গার লোক? তারা বললো- আমরা তায়েফের অধিবাসী। ওমর (রা) বললেন- তোমরা যদি মদিনাবাসী হতে, তাহলে আমি বেত দিয়ে তোমাদের আঘাত করতাম! তোমরা রাসূলের (সা) মসজিদে উঁচু স্বরে কথা বলছ কেন? (বুখারি)
ইমাম সাহেব বললেন, যদিও এটা মসজিদে নববী নয়, তবুও আমাদের আদবের সাথে কথা বলা উচিত সবসময়, সব জায়গায়। সব জায়গায়ই এমন কিছু মানুষ থাকেন, যারা সম্মানিত। তাদের সামনে উঁচু আওয়াজে কথা বলা ঠিক নয়। আর অন্যের ইবাদাতে ব্যাঘাত ঘটানো তো আরও বড়ো অন্যায়।
মহানবী (সা)- এর সামনে উঁচু আওয়াজে কথা বলা যেত না। তার মৃত্যুও পরও এ বিধান বহাল রয়েছে। তার পবিত্র কবরের কাছেও উঁচু আওয়াজে সালাম দেওয়া বেয়াদবি। তেমনই তার কোনো সুন্নাত জানার পরও মানতে অবহেলা করা সমান বেয়াদবি।
আবুবকর ও ওমর (রা)-এর মাঝে একবার মতবিরোধ হয়েছিল এবং তাদের কণ্ঠস্বর উঁচু হয়ে গিয়েছিল। তখন আল্লাহ আয়াত নাজিল করলেন- “হে ঈমানদারগণ! তোমরা নবীর কণ্ঠস্বরের ওপর নিজেদের কণ্ঠস্বর উঁচু করো না। এবং নিজেদের মধ্যে যেভাবে উচ্চস্বরে কথা বলো, তাঁর সাথে তেমন উচ্চস্বরে কথা বলো না। কারণ এতে তোমাদের কর্মফল বিনষ্ট হয়ে যাবে অথচ তোমরা বুঝতেই পারবে না।” (সূরা হুজরাত : ২) আহমদ জানতে চাইলো-এরপর কী হয়েছিল? ইমাম সাহেব বললেন, এরপর থেকে ওমর (রা.) এতো আস্তে কথা বলতেন যে, দ্বিতীয়বার জিজ্ঞেস না করা পর্যন্ত রাসূল (সা.) তা শুনতে পেতেন না! (বুখারি)
আহমদ বুঝতে পারলো- এ ধরনের ভুল তো সেও করে। আব্বু-আম্মু-শিক্ষক-গুরুজনের সামনেও কখনো কখনো উঁচু আওয়াজে কথা বলে। আজ থেকে এ কাজ আর করবে না- এমন শপথ নিয়েই মসজিদ থেকে বের হলো আহমদ।

SHARE

Leave a Reply