Home গল্প তোমাদের গল্প মহিষ ছানা ও বাঘ শেখ বিপ্লব হোসেন

মহিষ ছানা ও বাঘ শেখ বিপ্লব হোসেন

“মা! মা! দেখো না, ভাইয়া আমার সাথে কেমন করছে!” টুটুলের ছোটবোন শিমু।
নানা অজুহাতে দু’জনের খুনসুটি লেগেই থাকে সারাক্ষণ। শিমু ক্লাস টুতে পড়ে আর টুটুল ক্লাস ফোরে। মেয়ের চিৎকার চেঁচামেচি শুনে, মা ছুটে এলেন পাশের রুম থেকে।
– কী হয়েছে রে তোদের? এত চিৎকার চেঁচামেচি কেন?
– মা, ভাইয়া আমার চুল টেনে ধরেছিলো।
শিমু বলে।
– মা, শিমু মিথ্যে বলছে। আমি টিভির রিমোট দিইনি বলেই ও চেঁচাচ্ছে।
মায়ের কাছে টুটুলের উল্টো অভিযোগ।
ছেলেমেয়ের এমন অবস্থা দেখে মা বিরক্তি স্বরে বললেন, ‘দু’জনকে নিয়ে আর পারি না! তোদের কবে যে সুবুদ্ধি হবে, আল্লাহই ভালো জানেন।’
দু’জনকে নিজের পাশে বসিয়ে মা-সুমিতা বললেন, ভাই বোন হলো বন্ধুর মতো। দু’জনে সবসময় মিলেমিলে থাকবে। একজন আর একজনের সুখে-দুঃখে পাশে থাকবে। ভাইবোন কখনো ঝগড়া করতে নেই। ঝগড়া করা ভালো কাজ নয়। মহান আল্লাহও পছন্দ করেন না।
টুটুল ও শিমু মায়ের পাশে শান্ত হয়ে বসে মায়ের কথা শুনছে। ওদের দেখে বোঝাই যাচ্ছে না যে, খুব দুষ্টু ছেলে।
সুমিতা বেগম কথার ফাঁকে বললেন, আজ তোমাদের একটা সুন্দর গল্প শোনাবো। তোমরা শুনবে?
অনেকদিন পর মায়ের মুখে গল্পের কথা শুনে দু’ভাইবোন সমস্বরে হুররে… বলে লাফিয়ে ওঠে। পরে দু’জন শান্ত হয়ে বসলে মা গল্প বলতে শুরু করেন।
এক বনে বাস করতো একটি মহিষ পরিবার। মা বাবা, ভাই বোন সকলে মিলেমিশে বসবাস করতো তারা।
যা খাবার পেতো, সবাই মিলেমিশে ভাগাভাগি করে খেতো। কখনো কোথাও গেলে সবাই এক সাথে যেতো। কখনো কাউকে কোথাও একা রেখে আসতো না। সবাই দলবেঁধে চলতো।
তাদের সুখেই কাটছিলো দিন। হঠাৎ একদিন সেই পরিবারে ভাই-বোনের মধ্যে খাবার নিয়ে ভীষণ ঝগড়া হলো। দু’জনের অনেক কথা কাটাকাটি হলো। মহিষ ভাইটি বোনের সাথে রাগ করে পরিবার থেকে অনেক দূরে চলে গেল। সে মনে মনে ভাবলো, কখনোই আর পরিবারে ফিরবে না সে। জঙ্গলের এক প্রান্তে এসে থাকতে শুরু করলো মহিষ ছানাটি। অপরিচিত জায়গায় একা একা থাকতে ভালো লাগছিলো না তার। সেখানে একা একা খুব ভয় পাচ্ছিলো সে। সেখানে গাছপালার আড়ালে লুকিয়েছিলো এক ভয়ঙ্কর বাঘ। সুযোগ বুঝে বাঘটি আক্রমণ করে বসে তাকে।
মহিষ ছানাটি বাঘের হাত থেকে বাঁচার জন্য দৌড় শুরু করে। তার পিছে পিছে বাঘটিও দৌড়াতে থাকে। কিছুদূর যাওয়ার পর মহিষ ছানাটি দেখতে পেলো তার পরিবারের সদস্যদের। তার খোঁজেই আসছিলো সবাই। মহিষ পরিবারের সবাইকে দেখে বাঘটি ভয়ে পালিয়ে গেল শেষে।
বাবা-মা ও বোনকে পেয়ে আনন্দে কেঁদেই ফেললো মহিষ ভাইটি এবং নিজের ভুল বুঝতে পারলো সে।

SHARE

Leave a Reply