Home গল্প তোমাদের গল্প দাদুর উপদেশ -সিফাত হোসেন

দাদুর উপদেশ -সিফাত হোসেন

মারিয়া ও ফারিয়া দুই বোন। মারিয়া বড়, ফারিয়া ছোট। ছোট্ট একটি পরিবার নিয়ে আব্দুল মালেক সাহেব ও রেহেনা বেগম শহরে বাস করেন। আব্দুল মালেক সাহেব ও রেহেনা বেগম দুই মেয়েকে নিয়ে অনেক সুখী। মারিয়া এসএসসি পরীক্ষার্থী। আর ফারিয়া জেএসসি পরীক্ষার্থী। সামনে তাদের দুই বোনের পরীক্ষা থাকায় রেহেনা বেগম তাদের দুই বোনকে সাংসারিক কোনো কাজকর্ম করতে দেন না। কিন্তু দুই বোন তো নাছোড়বান্দা! কোনোভাবেই তারা রেহেনা বেগমকে একাকী কাজ করতে দেয় না। তারা তার মাকে পরীক্ষার্থী অবস্থায় সাংসারিক কাজকর্মে সহযোগিতা করে। এতে রেহেনা বেগম অনেক খুশি হয়। কারণ, রেহেনা বেগম ও আব্দুল মালেক সাহেবের দুটি মাত্র সন্তান। তারা দুই স্বামী-স্ত্রী দুই বোনকে অনেক আদর-ভালোবাসা দিয়ে বড় করেছেন। হঠাৎ করেই একদিন দুইবোন গ্রামে যাওয়ার জন্য বায়না ধরলো। কিন্তু রেহেনা বেগম ও আব্দুল মালেক সাহেব এতে রাজি হতে পারেনি। রাজি না থাকা সত্ত্বেও তাদের দুই বোনের কথা ফেলে দিতে পারছে না। অনেক চিন্তা-ভাবনা করার পর আব্দুল মালেক সাহেব ও রেহেনা বেগম সম্মত হলেন। তাঁরা দুইজন তাদের মেয়েদের কথা দিল যে, আগামী সপ্তায় তাঁরা গ্রামে যাবেন। এ কথা শুনে দুই বোন আনন্দে আত্মহারা হয়ে গেল। এভাবে দিন ঘনিয়ে আসে আর তাদের আনন্দ বেড়ে যায়। আজ শুক্রবার, সকাল হলেই তাঁরা গ্রামের উদ্দেশে রওয়ানা হবে। তাঁরা দুই বোন রাতেই সবকিছু গোছাতে শুরু করলো…
সকাল হয়েছে। আব্দুল মালেক সাহেব ও রেহেনা বেগম ফজরের নামাজ পড়ল। কিছুক্ষণ পরেই দুই বোনকে ঘুম থেকে তুলল। ঘুম থেকে ওঠে দুই বোন গোসল সেরে রওয়ানা দেওয়ার জন্য প্রস্তুত হতে লাগলো। এদিকে আব্দুল মালেক সাহেব একটি সিএনজি ভাড়া করলেন। তাঁরা সবাই মিলে সিএনজিতে উঠলো। প্রায় পাঁচ ঘণ্টা পর তাঁরা গ্রামে গিয়ে পৌঁছল। তারা পৌঁছা মাত্রই তাদের দাদু লাঠির ওপর ভর দিয়েই তাদের কাছে এলেন। দুই বোন দাদুকে পেয়ে মহাখুশি। কারণ, অনেক দিন হলো দাদুর মুখে মজার মজার গল্প শোনে না। তারা যখন পৌঁছল তখন দুপুর। তারা সকলে মিলে দুপুরের খাবার খাওয়া শেষ করলো। দুই বোন দাদুর কাছে অনেকক্ষণ বসে থাকল। এভাবে প্রায় ছয় দিন চলে গেল। একদিন রাতে খাবার খাওয়া শেষ করে দাদুর কাছে গল্প শোনার জন্য বায়না ধরলো। তখন তাদের দাদু বললেন, শোন মেয়েরা! আজ তোমাদের গল্প শোনাবো না। আমি তোমাদের কিছু উপদেশবাণী শোনাবো। তখন দুই বোন বলল, আচ্ছা দাদু শোনাও। তখন তাদের দাদু বলতে শুরু করলেন,
তোমরা নিয়মিত পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ পড়বে।
কবিরা ও বিভিন্ন ধরনের গুনাহ থেকে বেঁচে থাকতে চেষ্টা করবে।
পিতা-মাতার প্রতি সদ্ধ্যবহার করবে।
কখনো মিথ্যা কথা বলবে না।
পর্দা করে চলাফেরা করবে।
ইসলামের প্রত্যেকটা বিধান মেনে চলার চেষ্টা করবে।
কিছুক্ষণ পর তাদের মা ডাক দিলেন। কিন্তু তারা দু’জন এক ধ্যানে দাদুর উপদেশবাণী শুনছিল। তখন তাদের দাদু বললেন যাও, তোমাদের আম্মু ডাকছে। আগামীকাল তোমরা তো আবার শহরে চলে যাবে। তাই তোমাদের কাছে আমার অনুরোধ উক্ত উপদেশ মেনে চলার চেষ্টা করবে। দুই বোন একসাথে দাদুকে কথা দিয়ে মার ডাকে সাড়া দিল। রেহেনা বেগম দুই বোনকে রাতের খাবার খাওয়াইয়া ঘুমোতে বললেন। সকাল বেলা উঠেই তারা শহরের উদ্দেশে রওয়ানা দিলেন।

SHARE

Leave a Reply