Home নিয়মিত খোলা-ডাক খোলা-ডাক

খোলা-ডাক

আদর্শের কান্ডারি
কিশোরকণ্ঠ পত্রিকা যত পড়বে, তত জানবে, তত শিখবে। এই পত্রিকা পড়ে আমার লেখাপড়ার আগ্রহ বেড়েছে। আমাদের প্রিয়নবী (সা:) পড়ার জন্য তথা জ্ঞানার্জনের জন্য নানাভাবে উৎসাহিত করেছেন। এই পত্রিকা পড়লে আত্মাকে পরিপুষ্ট করে, জ্ঞানকে সমৃদ্ধ করে। সব বই পড়ে মানুষ আনন্দ পায় না, মনকে উৎফুল্ল করতে পারে না। মনকে উৎফুল্ল করতে তার মনের মতো বই লাগবে।
এই পত্রিকা কিশোরদের জন্য একটা আদর্শ। কারণ এই পত্রিকায় কুরআনের কথা, হাদিসের কথা, গল্প, উপন্যাস, কবিতা, সায়েন্স ফিকশন প্রভৃতি আরো অনেক বিষয় রয়েছে। বই পড়ে মানুষ জ্ঞানী হন, গুণী হন, নীতিবান হন, বিবেক জাগ্রত আলোকিত মানুষ হন। আমার বিশ্বাস এই পত্রিকা কিশোরদের বুকের ভেতর সযত্নে লালন করা স্বপ্নের বাস্তব রূপ দিতে পারে। আমি মনে করি এই পত্রিকা আমার জীবনের পথ দেখানোর আদর্শের প্রেরণা।
মো: মুজাহিদুল ইসলাম আযম
বারহাল, গোয়াইনঘাট, সিলেট

স্বপ্নমুখর জীবন
আলহামদুলিল্লাহ! কিশোরকণ্ঠকে হাজার সালাম ও অনেক অনেক ধন্যবাদ জানাচ্ছি। যে কিশোরকণ্ঠ ব্যক্তি উন্নয়নমূলক নতুন ধারাবাহিক ‘স্বপ্নমুখর জীবন’ নামক একটি অসাধারণ শিক্ষামূলক সূচি যোগ করেছে। তাই বলাই বাহুল্য যে, ‘স্বপ্নমুখর জীবন’ নামক সূচিটি পড়ে আমাদের অনেক জ্ঞান অর্জন হবে এবং সকল চড়াই-উতরাই পেরিয়ে সামনে চলার সাহস পাবো। যদি প্রতিজ্ঞা হয় ইস্পাতদৃঢ় তবে জয়ের পথে বাধা হতে পারে না কিছুই, সব বাধাই হবে তুচ্ছ। স্বপ্নমুখর জীবন অধ্যয়ন করে একজন অমনোযোগী ছাত্রও হতে পারবে মনোযোগী ও আদর্শবান। সর্বোপরি আল্লাহর কাছে মুনাজাত যেন সূচিটি ‘স্বপ্নমুখর জীবন’ হয়েই আমাদের জীবনে ফুটে ওঠে।
মো: ইয়াছিন আরাফাত
ডিমলা, নীলফামারী

মন ভালো হওয়ার ঔষধ
নিত্যদিনের নানা ধরনের কাজ করতে করতে অনেক সময় মনটা একঘেয়ে হয়ে যায়। তখন কোনো কিছুই ভালো লাগে না। এমন সময় নতুন কিশোরকণ্ঠ হাতে পেয়ে হৃদয়ে আনন্দের ঢেউ খেলে যায়। কিশোরকণ্ঠের কুরআনের আলো, হাদিসের আলো মনকে করে দেয় শীতল। আর গল্পগুলো মনকে করে দেয় উৎফুল্ল এবং সকল হতাশা কাটিয়ে আবার চলতে শুরু করি জীবনের পথে।
মু. তারিকুজ্জমান
পঞ্চগড় শহর, পঞ্চগড়

SHARE

Leave a Reply