Home নিয়মিত খোলা-ডাক খোলা-ডাক

খোলা-ডাক

জ্ঞানের ভাণ্ডার

কিশোরকণ্ঠ হলো এমন একটি মাসিক পত্রিকা, এই পত্রিকা পাঠের মাধ্যমে ছাত্রদের জ্ঞান ব্যাপকভাবে সমৃদ্ধ হবে।
এখানে কুরআনের আলো, হাদিসের আলো, ইতিহাসের ঘটনা, ঐতিহ্য, গল্প, দেশ-মহাদেশ, স্বাস্থ্যকথা, আইটি কর্নার, বলতে পারো, শব্দধাঁধা, কবিতাসহ আরো অনেক মজার আইটেম- যা হলো জ্ঞানের পাহাড়।
জ্ঞান শুধু পাঠ্যবইয়ের মাঝে সীমাবদ্ধ নয়, এই রকম পত্রিকা পাঠে প্রচুর জ্ঞান অর্জন করা সম্ভব, যা কিশোরদের মনের পরিবর্তন ঘটায়।
মিজানুর রহমান মাবেদ
মধুবাগ, রমনা
তথ্যের ভাণ্ডার

কিশোরকণ্ঠ পত্রিকা আমার দেখা সবচেয়ে সেরা পত্রিকা। আমি কিশোরকণ্ঠের নতুন পাঠক। চার মাস ধরে আমি কিশোরকণ্ঠ পড়ছি। আমি কিশোরকণ্ঠ থেকে অনেক অজানা তথ্য জানতে পেরেছি। তাই বলতে পারি কিশোরকণ্ঠ সবচেয়ে সেরা তথ্যের ভাণ্ডার।
মো: রাইছুল ইসলাম রিফাত
চৌদ্দগ্রাম, কুমিল্লা
ভালোবাসি

তুমি আমাদের মাঝে আসো নতুন আলো নিয়ে। লাখো তরুণের মাঝে তুমি জ্বালাও আলোক শিখা। ছড়িয়ে দাও ইসলামের সুমহান আদর্শকে। তুমি লাখো তরুণের হৃদয়ে লেখা নাম। তুমি সবার শ্রেষ্ঠ বন্ধু।
আল হাসান মোহাম্মদ মাইনউদ্দীন
রায়পুর, লক্ষ্মীপুর
সব যেন তাকেই ঘিরে

কিশোরকণ্ঠের তৃপ্তিটাই আলাদা। পাক্ষিক, মাসিক যতই পত্রিকা, ম্যাগাজিন পড়ি না কেন কিশোরকণ্ঠের সাথে তুলনাই হয় না। কিশোরকণ্ঠ ছাড়া বাকি সব পত্রিকা পড়লে কেমন জানি শূন্যতা অনুভব হয়। কিশোরকণ্ঠ পড়লেই ফিরে পাই অন্য আরেক প্রাণ। তাইতো সব ভালোবাসা যেন তাকেই ঘিরে।
ইসলামুল হক তুষার
জলদী, বাঁশখালী, চট্টগ্রাম
তৃষ্ণাতপ্ত মন

প্রথম যখন কিশোরকণ্ঠ পড়া শুরু করেছি তখন থেকেই কিশোরকণ্ঠের স্থান দিয়েছি শ্রেষ্ঠ পত্রিকার আসনে। কিশোরকণ্ঠের একটি সংখ্যাও আমার হাতছাড়া হতো না। কিন্তু মাধ্যমিক পরীক্ষা সন্নিকটে হওয়ার কারণে গত কয়েক মাস কিশোরকণ্ঠের সঙ্গ দিতে পারিনি। কিন্তু প্রতি মাসে আমার মন তৃষ্ণার্ত হয়ে উঠত কিশোরকণ্ঠের জন্য। অবশেষে অপেক্ষার পালা শেষ করে আবার কাছে পেয়েছি আমার একাকিত্বের সাথী কিশোরকণ্ঠকে।
মরিয়ম জামিলা, তেঁতুলিয়া, পঞ্চগড়
আমার প্রিয়

এত পত্রিকা পড়লাম কিন্তু মন জুড়ায় না এই নতুন কিশোরকণ্ঠ পত্রিকা ছাড়া। এটা আমাকে এত আনন্দ দেয় যে, আসতে দেরি হলে আমার মনে লাগে। এই মাসে আমি কিছু একটা হারিয়ে ফেলেছি। আমি মনে করি এই পত্রিকা পড়ে শুধু আনন্দ নয় বিভিন্ন ধরনের জ্ঞান লাভ করতে পারি।
মো: মিনহাজ এলাহী
বাঁশখালী, চট্টগ্রাম

SHARE

Leave a Reply