Home ছড়া-কবিতা ছড়া-কবিতা

ছড়া-কবিতা

সিরিয়ার কান্না
সুদীপ্ত শামীম

কোথায় আজ মনুষ্যত্বের বিবেক
কোথায় আজ মানবতার নয়ন
গ্রেনেডের বিস্ফোরণে মরণ খেলা
ভয়ে আতঙ্কিত সিরিয়ার জনগণ।

ধ্বংসস্তূপে গলিত, অর্ধ-গলিত লাশ
চারিদিকে বইছে তাজা রক্তের বন্যা
ঘরে ঘরে সমাধির আয়োজনে ব্যস্ত
বাতাসে ভেসে বেড়ায় স্বজনের কান্না।

বারুদের অগ্নিশিখায় জীবন্ত দেহ
আকাশে বাতাসে বইছে পোড়া গন্ধ।
গ্রেনেডের আঘাতে জীবন বিপাকে
নিষ্ঠুর মোসাদ বাহিনী করে আনন্দ।

ক্ষুধা ভরা চোখে হাজারো আতঙ্ক
ঘরে ঘরে কেন স্বজনহারা আর্তনাদ
আজ মানবতার কাছে একটাই প্রশ্ন
ওরা মুসলিম! এটাই কি তাদের অপরাধ?

 

গরম কালে
নাওরিন মুশতারী

গরম কালে ঘাম ঝরে
পাকা ফল থরে থরে।
পাকা আম জাম লিচু
আরো আছে কত কিছু।

কোনটা খাবো কোনটা খাবো?
মামার বাড়ি আজই যাবো।

 

প্রিয় ভূমি
আবদুল্লাহ শাহজাহান

জন্ম থেকে প্রিয় আমার
সোনার বঙ্গ ভূমি,
যতই দেখি বারে বারে
সোহাগ দাও তুমি।

সকাল হলে ফোটো তুমি
সুবাসিত গন্ধে,
রাত জুড়ে জোছনা ছড়াও
মধুময় ছন্দে।

বিকেল হলে নীল আকাশে
ছোটো সাদা ভেলায়,
প্রহর গুনে যাও ছুটে ফের
শিশু-কিশোর মেলায়।

ভোর ফজরে ভাসতে ছোটো
পাখির কলগানে,
ভুবন মাঝে বেঁচে থাকো
সবার মনে-প্রাণে।

 

স্বাধীনতা চাই
আযাদ আবদুর রহমান

খাঁচাবন্দী পাখির কাছে
প্রশ্ন করি আমি,
স্বাধীনতা তোমার কাছে
কতখানি দামি?

পাখি বলে স্বাধীনতার
দাম কতো শোনো,
পরাধীন এই জীবনে
সুখ নেই কোনো।

দুধ ভাত ও কলা খাই
ভালো নেই তবু,
জগতের আলো বাতাস
পাইনাতো কভু।

পারি নাতো যেতে কভু
ডানা মেলে উড়ে,
সখিদের সাথী হয়ে
দূরে বহুদূরে।

ডালে ডালে লাফালাফি
দাপাদাপি নাই,
মন খুলে হাসাহাসি
হয় না আর তাই।

কষ্টের কথা আর
কমু কী ভাই!
জীবনের বিনিময়ে
স্বাধীনতা চাই।

 

বৈশাখ শেষে জ্যৈষ্ঠ আসে
শিহাবুদ্দিন মানিক

বৈশাখ শেষে জ্যৈষ্ঠ আসে
চার দিকে সুবাস ভাসে
মন মাতানো সেই ঘ্রাণে
হাসি ফোটে সবার প্রাণে।

বৈশাখ শেষে জ্যৈষ্ঠ আসে
আম কাঁঠালের মধুর রসে
শাখে শাখে কোকিল ডাকে
মেঘ কনে তার সাথেই হাঁকে।

বৈশাখ শেষে জ্যৈষ্ঠ আসে
সবাই তাকে ভালোবাসে
নীল আকাশে উড়ছে ঘুড়ি
জ্যৈষ্ঠ মাসের নেইকো জুড়ি।

 

আমার গাঁ
মাহমুদ শরীফ

আমি থাকি নীল-সবুজের
ছায়া ঘেরা গাঁয়ে
গড়াই তীরের মায়া কানন
কুমারখালীর বাঁয়ে।

গাছ গাছালি পাখ পাখালি
ফুল ফসলের শোভা
গড়াই তীরে দাঁড়িয়ে দেখি
রোজই পুবের প্রভা।

বিল ঝিলের শাপলা শালুক
পানকৌড়ির ডুব
গড়াই বুকে পাল তোলা নাও
বাহ কী অপরূপ!

 

মধু মাসের ফল
আতিফ আবু বকর

মধু মাসের সময় এলো
গ্রীষ্ম ঋতুর কাল,
ফলের ভারে পড়ছে নুয়ে
আম কাঁঠালের ডাল।

কালচে বরণ জামের থোকা
মিষ্ট স্বাদের লিচু,
বুলবুলি আর ময়না টিয়া
খাচ্ছে ঠুকে কিছু।

রসে ভরা আনারস আর
জাম জামরুল তাল,
তরমুজে বেশ তিয়াস মেটে
কোষগুলো লাল লাল।

 

নিঝ্ঝুম এই দিনে
কে জি মোস্তফা

নভে নীল ছায়া নেই
মেঘে রঙ মায়া নেই
বনে বনে কিশলয় জাগে নব প্রাণ
ফাগুনের দিন বুঝি হলো অবসান।

গাছ নড়ে পাতা ঝরে
মেঘ ওড়ে আসমানে
ডালে ডালে কচি পাতা
নতুনের আহবানে।

ছেঁড়া ছেঁড়া ওই মেঘ
সে কোনদেশে
তার সাথে মন আমার
ছোটে নিরুদ্দেশে
জানি না এ ক্ষণ কোথায় নিয়ে যাবে
হারানো সে কূল কোথায় খুঁজে পাবে।

পাখি যত ছিল ফিরে গেছে
সাঁঝের তরুশাখে
আমি শুধু একা প্রহর গুনি
নিঝ্ঝুম এই বৈশাখে।

SHARE

Leave a Reply