Home বিজ্ঞান জগৎ সুপার ম্যাটেরিয়াল চীনের আরেক বিস্ময় -তানভীর তাজওয়ার

সুপার ম্যাটেরিয়াল চীনের আরেক বিস্ময় -তানভীর তাজওয়ার

চীন এক ধরনের সুপার ম্যাটেরিয়াল বা অতিবস্তু তৈরির দাবি করেছে। দেশটির ভাষ্যে, এটি দিয়ে মুড়ে দিলে বিমান বা অন্য যে কোনো বস্তু আর দেখা যাবে না। অর্থাৎ অদৃশ্য অবস্থায় তার সামগ্রিক কর্মকান্ড করতে পারবে। চীনের দাবি সত্যি হলে যুদ্ধে তারা অপরাজেয় হয়ে উঠবে বলে মন্তব্য করেছে বেশ কয়েকটি সামরিক বিশেষজ্ঞ পত্রিকা।
চীনের সেন্ট্রাল টেলিভিশনে (সিসিটিভি) প্রচারিত একটি ডকুমেন্টারিতে বলা হয়, চীনের গুয়াংডং রাজ্যে গুয়াংচি অ্যাডভান্সড ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজির একটি ল্যাবরেটরিতে বিশ্বের প্রথম সুপার ম্যাটেরিয়াল তৈরির কারখানা স্থাপন করা হয়েছে। ওই ল্যাবে পোড়ানো যায় না, আবার ঠান্ডায় জমিয়ে ফেলা যায় না এমন মেটাম্যাটেরিয়াল অর্থাৎ অতিবস্তু বা সুপার ম্যাটেরিয়াল তৈরি করা হচ্ছে। সুপার ম্যাটেরিয়ালের আবরণের আড়ালে থাকলে যে কোনো বস্তু অদৃশ্য হয়ে যায়।
তবে চীন ওই বস্তু কী কাজে ব্যবহার করবে, তা জানানো হয়নি। চীনের সংবাদ সংস্থা সিনা জানিয়েছে, ওই কারখানা তাদের সেনাবাহিনীর সরাসরি তত্ত্বাবধানে রয়েছে এবং বস্তুটি জে-টোয়েন্টি স ফাইটার জেটকে অদৃশ্য করে দিতে ব্যবহার করা হতে পারে। অতিবস্তু বা সুপার ম্যাটিরায়েলের গুণাবলি প্রাকৃতিক বিভিন্ন বস্তুর বৈশিষ্ট্য থেকে ভিন্ন। একাধিক ধরনের ধাতু ও প্লাস্টিকের সংমিশ্রণে সুপার ম্যাটেরিয়াল তৈরি করা হয়েছে। কিছু অতিবস্তু দৃশ্যমান আলোকে এমনভাবে বাঁকাতে পারে, যে সেটির আড়ালে থাকা বস্তু আর দেখা যায় না। গুয়াংচি অ্যাডভান্সড ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজির ওয়েবসাইটের উদ্ধৃতি দিয়ে নিউজ উইক বলছে, গুয়াংচির ল্যাবে বছরে ১ লাখ স্কয়ার ফিটেরও বেশি অতিবস্তু তৈরি সম্ভব। নিউইয়র্ক পোস্ট বলছে, চীন বছরে ১০ লাখ স্কয়ার ফিটেরও বেশি সুপার ম্যাটেরিয়াল তৈরি করতে পারবে।

SHARE

Leave a Reply