Home স্বাস্থ্য কথা বরইয়ের কিছু গুণাগুণ -জুনাইদ জামশেদ

বরইয়ের কিছু গুণাগুণ -জুনাইদ জামশেদ

টক মিষ্টি স্বাদের বরই কার না ভালো লাগে। লবণ মরিচের গুঁড়া মাখানো বরই ভর্তা সামনে দেখলে জিহ্বা বেয়ে পানি পড়ে না-এরকম মানুষ মনে হয় খুঁজে পাওয়া একটু মুশকিলই বটে। তাই বলে মোটেই ভেবো না ফলটি খেতে শুধুই সুস্বাদু। এটি পুষ্টিগুণেও দারুণ।
বরইতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে খাদ্যশক্তি, শর্করা, চর্বি, আমিষ, ভিটামিন এ, থায়ামিন, রিবোফ্লাভিন, নিয়াসিন, ভিটামিন বি, ভিটামিন সি। তাছাড়া এটি ক্যালসিয়াম, আয়রন, ম্যাগনেসিয়াম, ম্যাংগানিজ, ফসফরাস, পটাশিয়াম, সোডিয়াম ও জিংক উপাদানে ভরপুর। ফলে বরই খেলে নানা ধরনের রোগ থেকে মুক্ত থাকা যায়। তাহলে চলো বন্ধুরা জেনে নেয়া যাক রোগ প্রতিরোধে বরই এর উপকারিতার কথা-
১.মৌসুমি জ্বর, সর্দি-কাশি প্রতিরোধে ভীষণ কার্যকরী ভূমিকা পালন করে বরই।
২.এতে উপস্থিত পর্যাপ্ত পরিমাণ ভিটামিন এ চোখের যতেœ দারুণ উপকারী। দৃষ্টিশক্তি বাড়াতে এর জুড়ি মেলাভার।
৩.বরই শরীরের রক্তশূন্যতা দূর করতে অগ্রণী ভূমিকা পালন করে।
৪.বরইতে থাকা ক্যালসিয়াম হাড়ের গঠনে কার্যকরী ভূমিকা পালন করে।
৫.বরইতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি, যা সংক্রমণজনিত রোগ যেমন টনসিলাইটিস, ঠোঁটের কোণে ঘা, জিহ্বাতে ঘা, ঠোঁটের চামড়া উঠে যাওয়া ইত্যাদি দূর করে।
৬.বরইতে উপস্থিত অ্যান্টি অক্সিডেন্ট উচ্চ মাত্রার ক্ষমতাসম্পন্ন। এটি ক্যান্সার কোষ, টিউমার কোষ ও লিউকেমিয়ার বিরুদ্ধে লড়াই করে।
৭.যকৃতের নানা রোগ প্রতিরোধে সাহায্য করে বরই। ফলে যকৃতের কাজ করার ক্ষমতা বেড়ে যায়।
৮.এটি একটি চমৎকার রক্ত বিশুদ্ধকারক। উচ্চ রক্তচাপ ও ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য বরই খুবই উপকারী।
৯.বরই হজম শক্তি বৃদ্ধি করে। ফলে এটি খেলে মোটা হওয়ার সম্ভাবনা থাকে না। এটি খাবারে রুচি বাড়াতেও সাহায্য করে।
১০.বরইতে থাকা খাদ্যশক্তি শরীরের দুর্বলতা সারাতে ভীষণ সাহায্য করে।
১১.ডায়রিয়া, রক্তশূন্যতা, ব্রঙ্কাইটিস রোগ দ্রুত সারিয়ে তোলে বরই।

SHARE

Leave a Reply