Home নিয়মিত আমাদের কথা আ মা দে র ক থা

আ মা দে র ক থা

প্রাণপ্রিয় বন্ধুরা,
আসসালামু আলাইকুম।
আশা করি সবাই ভালো এবং সুস্থ আছো।

মুসলমানদের জন্য দু’টি বিশেষ খুশির দিন। একটি ঈদুল ফিতর, অন্যটি ঈদুল আযহা।
ঈদুল ফিতরের পরই আসে ঈদুল আযহা। সামনেই সেই প্রত্যাশিত খুশির ঈদÑঈদুল আযহা। সবার জন্য রইল আমাদের ঈদের শুভেচ্ছাÑ ঈদ মুবারক।
ঈদ মানে তো খুশি আর খুশির তুফান। এই খুশির মধ্যেও কিন্তু রয়ে গেছে আমাদের জন্য অনেক শিক্ষা। ঈদুল ফিতরের যে ত্যাগের শিক্ষা, ঈদুল আযহারও সেই শিক্ষা। শিক্ষার মৌলিক দিক দিয়ে কিন্তু একই। তবে ঈদুল আযহার সাথে জড়িয়ে আছে হযরত ইবরাহীম (আ), মা হাজেরা এবং হযরত ইসমাঈলের (আ) আত্মত্যাগ এবং ঈমানের পরীক্ষার এক বিরল নজির। কাবাঘর নির্মাণ, আবে জমজম, ইসমাঈলের (আ) কুরবানিসহ বহু ঘটনার ইতিহাসে সমৃদ্ধ ঈদুল আযহা।
ঈমানী দৃঢ়তার কারণে তাঁরা টপকে গিয়েছিলেন প্রতিটি পরীক্ষা। আর বিজয়ের পুরস্কার হিসাবে পেয়েছিলেন মহান রবের অশেষ ভালোবাসা।
আমরাও যদি ঈদুল আযহার সার্বিক শিক্ষা গ্রহণ করে ঈমানের বলে বলীয়ান হতে পারি, যদি পারি ঈমানী চেতনা ও দৃঢ়তা অর্জন করতে, তাহলে মহান রবের পক্ষ থেকে আমরাও পুরস্কার হিসাবে সফলতা লাভ করতে পারবো ইনশাআল্লাহ।
হযরত ইসমাঈল (আ) যে বয়সে হাসিমুখে নিজেকে উৎসর্গ করেছিলেন আল্লাহর সন্তুষ্টির জন্য, সেই বয়সেই আমরা নিতে পারি আত্মত্যাগের মহান শিক্ষা। সেটাই উচিত।
এসো, আমরা ঈদুল আযহার প্রকৃত শিক্ষা গ্রহণ করি এবং আল্লাহর সন্তুষ্টির জন্য আত্মত্যাগ ও কুরবানির মূল চেতনায় উজ্জীবিত হয়ে উঠি।
মহান রব আমাদের কবুল করুন।
আজ এই পর্যন্তই!
ঈদ মুবারক ওয়াসসালাম।

SHARE

Leave a Reply