Home খেলার চমক মোস্তাফিজ এবং চোট -হাসান শরীফ

মোস্তাফিজ এবং চোট -হাসান শরীফ

আরেকবার মিস হলো মোস্তাফিজ। ভারত সফরেও থাকতে পারলেন না তিনি। এটা কি তাকে সারা জীবন পোড়াবে? হয়তো। বাংলাদেশ আবার কবে ভারত সফরে যাবে? এই প্রজন্মের কেউ খেলতে পারবে? আকরাম-বুলবুল-রফিকরা পারেননি। এরপরের মাশরাফিরা পারেননি। আরেকটু দেরি হলে মুশফিকরাও পারতেন না। বাংলাদেশ টেস্ট মর্যাদা পাওয়ার ১৭ বছর পর টেস্ট খেললো ভারতে। পরের টেস্ট খেলতে হয়তো আরো ১৭ বছর লাগতে পারে। তখন হয়তো মোস্তাফিজ আর খেলায় থাকবেন না।
কিন্তু কী করা! ইনজুরি। ক্রিকেটাররা এই শব্দটির সাথে বেশ ভালোভাবেই পরিচিত। বিশেষ করে ফাস্ট বোলাররা। বলা হয়ে থাকে, তারা যত ম্যাচ খেলেন, প্রায় ততটাই মিস করেন ইনজুরির কারণে। মোস্তাফিজের ক্যারিয়ারে বিষয়টি আরো সত্য হয়ে দেখা দিয়েছে। দুই বছরে টেস্ট খেলেছেন মাত্র দু’টি। সেটাও আবার কেবল দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে। তার অনেক পর অভিষেক হওয়া মেহেদী হাসান মিরাজ খেলে ফেলেছেন তার দ্বিগুণ।
কেবল ভারতে খেলা নয়। ভারতের টেস্টটি যে হায়দরাবাদে হলো, সেখানেই গত বছর আইপিএল মাত করেছিলেন তিনি। অভিষেকেই জয়। সেই সেখানেই তার টেস্ট খেলা হলো না।
অথচ অত্যন্ত ভালো সময় তার আগমন ঘটেছিল। এই মুহূর্তটাতে বাংলাদেশ কেন, সারা দুনিয়াতেই পেস বোলারের আকাল চলছে। ফলে সব লাইমলাইট একাই পেয়ে গেছেন। তা-ই বলে এটা বলা হচ্ছে না যে, তার প্রতিভা নেই। আরো কয়েকজনের সাথে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করলেও তিনি সবাইকে টেক্কা দিতে পারবেন। প্রতিযোগিতাকে তিনি ভয় পান না। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে এবং আইপিএলে তিনি ভালোভাবেই বুঝিয়ে দিয়েছেন। সেরাদের ভিড়েই তিনি নিজের শ্রেষ্ঠত্ব অক্ষুণœ রেখেছেন।
অথচ টেস্ট ম্যাচেই তো আসল ক্রিকেটারের স্বীকৃতি মেলে। ইতিহাসের খাতায় স্থায়ী আসন পেতে হলে এই সংস্করণেই সবচেয়ে ভালো করতে হবে। ইনজুরি বা অন্য কোনো কারণে সেটা মিস করলে চলবে না।
বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড অবশ্য তার ব্যাপারে আগে থেকেই সতর্ক অবস্থান নিয়েছিল। তাকে ফিট রাখতে অনেক আসরে তাকে নামানোই হয়নি। কিন্তু তাতেও যে খুব একটা লাভ হয়েছে তা নয়।
এমন কিছু ব্যবস্থা নিতে হবে, যাতে আনফিট হওয়ার সুযোগই না থাকে। ফাস্ট বোলাররা ক্যারিয়ারের অর্ধেক ম্যাচ মিস করলেও বাকি অর্ধেকে যা করেন, সেটা কিন্তু কম নয়। আন্তর্জাতিক অঙ্গনে দাপিয়ে বেড়ানো ফাস্ট বোলাররা কিন্তু শ’ খানেক ম্যাচ খেলে থাকেন। তারা এমন কিছু কাজ করেন, যার ফলে ইনজুরি অনেক দূরে থাকে কিংবা সেটার সাথে শান্তিপূর্ণ সহাবস্থান করতে পারেন।
মোস্তাফিজকেও সেটা শিখতে হবে। তার কাছ থেকে অনেক আশা। বাংলাদেশকে এগিয়ে নেয়ার দায়িত্ব যাদের, তাদের অন্যতম এই মোস্তাফিজ। তাকে অনেক দরকার বাংলাদেশ ক্রিকেটের, বিশেষ করে এগিয়ে যাওয়ার এই পর্যায়ে। হ

SHARE

Leave a Reply