Home নিয়মিত খোলা-ডাক খোলা ডাক

খোলা ডাক

যেন এক রঙিন প্রজাপতি
প্রজাপতির গায়ে থাকে হরেক রকম রঙের সমাহার, যা মানুষের দৃষ্টি কেড়ে নেয়। তাই প্রজাপতি দেখলে তার সুন্দরের সজীবতায় কেউ মুগ্ধ না হয়ে পারে না। অনুরূপভাবে কিশোরকণ্ঠও হরেক রকম জ্ঞানে ভরপুর। যার জ্ঞানের সজীবতা পাঠকের মনকে করে আলোকিত, হৃদয়কে করে আন্দোলিত, অনুপ্রাণিত করে নতুন কিছু জানার।
তাই মাস শেষে আমিও সবার মত কিশোরকণ্ঠ নামক প্রজাপতির পথ পানে চেয়ে থাকি কখন সে আসবে এবং বলবে, ‘এই নাও আমার সব রং তোমাকে দিলাম, এই রং দিয়ে তোমার স্বপ্নগুলোকে রাঙিয়ে তুলো।’
মুহাম্মদ হাসানুল বান্না
শেখেরখিল, বাঁশখালী, চট্টগ্রাম

একান্ত বন্ধু
বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি এই বিশ্বটাকে ছোট একটি গ্রামে পরিণত করেছে। ফলে আমাদেরকে প্রতিযোগী হিসেবে তৈরি করেছে। তাই আমাদের প্রতিযোগিতা শুধুই প্রতিষ্ঠানের মধ্যে বিদ্যমান নয়, এটি সারা বিশ্বের সকল বন্ধুর সাথে। এই কিশোরকণ্ঠের মাধ্যমে কিশোরকণ্ঠের সকল বন্ধুর সাথে প্রতিযোগিতা করা যায়। শব্দধাঁধা, বলতে পারো, অনুশীলন, পাঠ প্রতিযোগিতাসহ চমৎকার সব বিষয় দ্বারা। তাই কিশোরকণ্ঠ হলো প্রতিযোগিতার প্রিয় বন্ধু।
আর এম আতা-ই-রাব্বী
কালীগঞ্জ, লালমানিরহাট

প্রেরণার উৎস
কিশোরকণ্ঠ আমাকে প্রেরণা দিয়েছে, উৎসাহ দিয়েছে, অনুপ্রাণিত করেছে। কিশোরকণ্ঠ থেকে প্রাপ্ত অনুপ্রেরণা, উৎসাহ ও উদ্দীপনা পেয়ে আমি আজ বন্ধু মহলে, বিদ্যালয়ে এবং গ্রামে সর্বত্রই ‘কবি’ উপাধি পেয়েছি। এখন সবাই আমাকে ‘কবি’ বলে ডাকে। কেউ যখন আমাকে কবি বলে ডাকে তখন বাড়ি এসে আমি আমার প্রিয় পত্রিকা ‘কিশোরকণ্ঠ’কে বুকে জড়িয়ে আবেগাপ্লুত হয়ে কান্না করি। এবং আল্লাহর শুকরিয়া জ্ঞাপন করি। কিশোরকণ্ঠের পাঠক ও লেখক হয়ে আমি এ পর্যন্ত আল্লাহর রহমতে প্রায় চার-শতাধিক কবিতা লিখতে সক্ষম হয়েছি। তাছাড়া প্রবন্ধ, ছোটগল্প, উপন্যাস তো আছেই। কিশোরকণ্ঠ তোমার প্রতি প্রাণ ভরে দোয়া। তুমি বাঁচো ততদিন, এই পৃথিবীতে আলো থাকে যতদিন।
শরিফুল ইসলাম সিফাত
রাধানগর, দেবিদ্বার, কুমিল্লা

জ্ঞানের পথ
আমার মনে হয় এই কিশোরকণ্ঠ একজন ছাত্রের জন্য সকল বিষয়ে সঠিক ধারণা দিতে পারে, যা এজন্য আমি আমার জীবনে একান্ত বন্ধু হিসেবে বেছে নিয়েছি। আমি প্রতি মাসে এ পত্রিকা হাতে পাওয়া মাত্রই আগে তাকাই হাসির বাকসো, মুখোমুখি, কিশোর জিজ্ঞাসা, বলতে পারো, ঝাঁপি থেকে এগুলো যা আমি বলে বুঝাতে পারব না। আমি ধন্যবাদ জানাই কিশোরকণ্ঠ পরিবারের সকলকে আর প্রহর গুনি পরের মাসের প্রিয় পত্রিকার জন্য।
মো: ইসমাঈল, চরমফ্যাশন, ভোলা

শ্রেষ্ঠ বন্ধু
সবারই প্রিয় বন্ধু থাকে। আমারও প্রিয় বন্ধু আছে। আর আমার সেই প্রিয় বন্ধুটি হলো কিশোরকণ্ঠ। কিশোরকণ্ঠ এমন একটি বন্ধু যে সব সময় আমাকে সঙ্গ দিতে পারে, দুঃখ-কষ্ট মুছে দিতে পারে, আনন্দের জোগান দিতে পারে। তাই কিশোরকণ্ঠ আমার জীবনের শ্রেষ্ঠ বন্ধু।
তারানা তাবাসসুম নিশাত, মিরপুর, হবিগঞ্জ

জীবন সাথী
কিশোরকণ্ঠ পড়তে আমার ভালো লাগে। আমি নিয়মিত কিশোরকণ্ঠ পড়ি। কিশোরকণ্ঠ পড়ে আমি অনেক কিছু শিখেছি। কিভাবে ভালো ছাত্র হওয়া যায়। কিভাবে ভালো মানুষ হওয়া যায়। এসব কিছু শিখতে পেয়েছি। কুরআনের আলো, হাদিসের আলো পড়তে আমার খুব ভালো লাগে। আমি এসব মনোযোগ দিয়ে পড়ি। পড়তে আমার খুব ভালো লাগে। তাই আমি কিশোরকণ্ঠকে জীবনসাথী হিসেবে মনে করি।
সুজন মাহমুদ নূর, ধুলাউড়ী, কুড়িগ্রাম

চমৎকার
ছোটবেলা থেকে কিশোরকণ্ঠ পত্রিকাটি নিয়মিত পড়ছি, এই পত্রিকাটি পড়ে আমি যা শিখেছি, আমি বলবো আমার পাঠ্যবই থেকে তা আজ পর্যন্ত শিখতে পারিনি। চমৎকার এই পত্রিকাটি সুস্থ সংস্কৃতির নান্দনিক বিকাশ এবং নৈতিকতা সমৃদ্ধ সমাজ গড়ার লক্ষ্যে এক অসাধারণ ভূমিকা পালন করছে। কিশোরকণ্ঠ পরিবারকে জানাই হাজারও সালাম।
মো: সোহাগ গাজী
দক্ষিণ খান, উত্তরা, ঢাকা

SHARE

Leave a Reply