Home মুখোমুখি ভালো লেখক হতে চাইলে প্রচুর পড়তে হবে – মাহবুবুল...

ভালো লেখক হতে চাইলে প্রচুর পড়তে হবে – মাহবুবুল হক

আমি অনেক বড় হতে চাই, কিন্তু সে আশা অনুযায়ী আমার মেধা নেই। এ ক্ষেত্রে আমার করণীয় কী?
মো: মনিরুল ইসলাম
শাহজাদপুর, সিরাজগঞ্জ
– মেধা নেই জানলে কি করে? বড় হওয়ার ইচ্ছাই তোমাকে বড় করবে, যদি তুমি একনিষ্ঠ হও। অধ্যাবসায়ী হও। পরিশ্রমী হও। সাথে মহান আল্লাহ ইচ্ছাতো থাকতে হবে।
আমি জানতে চাই একজন আদর্শ, সৎ ও সাহসী সাংবাদিক হতে কী কী গুণ থাকা প্রয়োজন?
মুর্তুজা চৌধুরী, মীরসরাই, চট্টগ্রাম
– ওহির জ্ঞান অর্জন। জাগতিক জ্ঞান অর্জন। হক্কুলাহ ও হক্কুল-এবাদ উপলব্ধি করা। প্রচুর পড়াশোনা। একনিষ্ঠ ও নিবেদিত প্রাণ হওয়া। মানুষের প্রতি শর্তহীন ভালোবাসা। সৃষ্টিকুলের অধিকার সম্পর্কে যত্নবান থাকা। স্বচ্ছতা ও জবাবদিহীতার মনোভাব গড়ে তোলা।
বিভিন্ন বড় বড় লেখক ও উপন্যাসিকের ছড়া-কবিতা, গল্প ও উপন্যাস পড়ার পরে সেগুলো বুঝতে কষ্ট হয়। এগুলো বোঝার সহজ উপায় কী?
উবাইদা হাবিব, ত্রিশাল, ময়মনসিংহ
– বার বার পড়া। অগ্রজদের সাহায্য নেয়া। সাহিত্য আসরে নিয়মিত অংশ নেয়া। বয়স ও নিয়মিত চর্চা অবশ্যই তোমাকে সাহায্য করবে। উত্তম হয়, বোদ্ধা কেউ যদি তোমাকে বই সিলেক্ট করে দেয়।
ছাত্রজীবনে কেমন স্কুল ফাঁকি দিতেন? আপনার শখ কী?
মাসুম বিল্লাহ
শান্তিবাগ, ভয়না, মাগুরা
– কখনও ফাঁকি দেইনি। ১৯৫৯ সালে ষষ্ঠ শ্রেণীতে পড়ার সময় স্কুলে উপস্থিতির ক্ষেত্রে ১ম পুরস্কার অর্জন করেছিলাম। পড়ালেখা। লেখালেখিতে তরুণদের উৎসাহ দেওয়া। ভ্রমণ। গল্প করা।
আপনি এখনও কিভাবে শিশুদের প্রিয় সাহিত্যিক হয়ে আছেন?
মো: মোশারফ হোসেন
উত্তম হাজিপাড়া, হাজির হাট, রংপুর
– আমি ভালোভাবে জানি যে, আমি শিশুদের প্রিয় সাহিত্যিক নই। কারণ বাজারে এখন আমার খুব বেশী বই নেই। সব মিলে হয়তো ২০/২২ টা। প্রিয় হতে হলে নিরন্তর লিখতে হবে।
আপনার জীবনের একটি স্মরণীয় ঘটনা জানতে চাই।
জাবেদ ইকবাল, কমলনগর, লক্ষীপুর
– স্কুল জীবনে লেখার কারণে ইউনিয়ন পরিষদে মামলার আসামী হয়েছিলাম। বাংলার স্যার জামিন নিতে গিয়ে বলেছিলেন: ও আর কখনও লিখবেনা।
বর্তমান প্রেক্ষাপটে “শিশু সাহিত্য” সমাজে শিশুদের উপর কেমন ভূমিকা রাখবে?
মো: মনির হোসাইন
বাংলাবাজার, সোনাইমুড়ী, নোয়াখালী
– আসলে শিশু সাহিত্য বলতে যা বুঝায় আমাদের দেশে তা এখনও গড়ে ওঠেনি। এখানে ছোটদের জন্য লেখা হচ্ছে। শিশুদের জন্য নয়।
আপনার রচিত কিছু শিশুতোষ গ্রন্থ ও গল্পের নাম জানতে চাই।
সুরাইয়া জান্নাত, দুলাই, সাঁথিয়া, পাবনা
– মরুদুলালের গল্প শোনো। আবু বকরের গল্প শোনো। উমর ফারুকের গল্প শোনো। উসমানের গল্প শোনো। আলী হায়দারের গল্প শোনো। সোনালী দিনের সোনার মানুষ। চলো চাঁদের দেশে। আদম (আ:) নূহ (আ:) ইবরাহিম (আ:) হুদ (আ:)।
আপনার প্রথম কর্মজীবন কোথায় শুরু করেন? আপনার শিক্ষা জীবন সম্পর্কে কিছু বলেন?
মু. মুনির হোসেন
হিমালয় পলিটেকনিক, বোদা, পঞ্চগড়
– ঢাকায়। প্রথম শ্রেনীর একটি সংবাদ পত্রে। ১৯৬৯ সালে। ২টি স্নাতক ও বি সি এস করেছি।
সাহিত্য আমাকে তেমন একটা আকর্ষণ করে না। সাহিত্যের প্রতি ভালোবাসা সৃষ্টি করতে আমার প্রতি আপনার উপদেশ কি?
তানিম রহমান, ঈদগাহ, কক্সবাজার
– সাহিত্য না পড়লেতো মানুষ হওয়া যাবেনা। মানুষ হতে হলে অন্তত: ৩টি বিষয় জানা দরকার: ১. ধর্ম ২. ইতিহাস ৩. সাহিত্য। সাহিত্যিকদের সাথে বন্ধুত্ব করতে হবে। সাহিত্য সভায় যেতে হবে। সাহিত্যের পৃষ্ঠপোষকতা করতে হবে। বাংলার স্যারকে বলতে হবে।
একজন আদর্শ নাগরিক হতে হলে লেখাপড়ার পাশাপাশি আর কি কি দরকার?
হোসাইন মোহাম্মদ রিয়াজ
ছিটুয়াপাড়া, সাতকানিয়া, চট্টগ্রাম
– ওহি ভিত্তিক জ্ঞান অর্জন করা দরকার। মানুষের দু:খ দুর্দশা দূর করার জন্য সংকল্পবদ্ধ হওয়া দরকার। মাতা-পিতা, ভাই-বোন, আত্মীয়-স্বজন, পাড়া-প্রতিবেশী সকলের অধিকার সংরক্ষণের জন্য সংঘবদ্ধ প্রচেষ্টা অব্যাহত রাখা দরকার।
আপনার ছাত্র জীবনে ঘটে যাওয়া একটি মজার ঘটনা জানতে চাই?
মু. আবু নাঈম, হাড়িভাসা, পঞ্চগড়
– ১৯৬০ সালে ঠাকুরগাঁও হাই স্কুলে ৭ম শ্রেণীতে পড়ি। আইউব খান নামে আমাদের এক সহপাঠি ছিলো। সেই সময় তার বয়স ছিলো ১৪/১৫ বছর। তখনও পর্যন্ত সে ট্রেন দেখেনি। ক্লাসের সব ছাত্র মিলে তা ৩ মাইল দূরে অবস্থিত ঠাকুরগাঁও রেল স্টেশনে গিয়ে তাকে ট্রেন দেখিয়েছিলাম। আমি ছিলাম ক্লাস ক্যাপটেন।
বর্তমান সময়ে শিশু-কিশোরেরা পড়ালেখার চেয়ে গেমস এবং ইন্টারনেট ব্রাউজিং এর  প্রতি বেশি আসক্ত হয়ে পড়েছে, তাদেরকে কিভাবে শিশু সাহিত্যের সাথে সম্পৃক্ত করা যায়?
মতিউর রহমান
কানাইঘাট, সিলেট
– তার দ্বারা ৩-৪টা লেখা লিখিয়ে কোথাও না কোথাও ছেপে দিতে হবে। ভালো লেখার প্রশংসা করতে হবে।
ছোট বেলায় আপনার লক্ষ্য কি ছিল? আপনার লক্ষ্য কি পূরণ হয়েছে?
মো: তামিম হাসান
দৌলতখান, ভোলা
– ক্লাস সেভেনে পড়ার সময় এইম ইন-লাইফ এ লিখেছিলাম ‘প্রধানমন্ত্রী’ হবো। পরবর্তীতে হতে চাইনি। সাহিত্যিক ও সাংবাদিক হতে চেয়েছিলাম। কিছুটাতো হয়েছি।
একজন শিশুর ক্যারিয়ার গড়ার পেছনে কার ভূমিকা বেশি?
ইয়াসিন আরাফাত
কানাইঘাট, সিলেট
– মা-বাবা। পরবর্তীতে শিক্ষক।
আপনার কয়জন ছেলে মেয়ে? তারা কী করে?
আরিব মাহমুদ
পিয়ারা বাগান, চাঁপাই নবাবগঞ্জ
– দুই জন। এক ছেলে। এক মেয়ে। ছেলে ডাক্তার। এখন মালদ্বীপে। মেয়ে ব্যারিস্টার। লন্ডনে প্র্যাকটিস করে।
শিশু-কিশোরদের জন্য আপনার উপদেশ কী?
মু. মনির হোসেন
হাড়িভাসা,পঞ্চগড়
– তোমাদের মতো থাকো। সহজ সরল থাকো। বড়দের সম্মান করো। ছোটদের স্নেহ করো। ধর্ম বর্ণ নির্বিশেষে সবাইকে ভালবাসো। আল্লাহর একনিষ্ঠ দাস হও। ধর্মে নিবেদিত হও। অন্তত: ৩ টি ভাষা শেখো। ১। বাংলা ২। আরবি ৩। ইংরেজী।
আমি একজন ভাল লেখক হতে চাই। তাহলে আমাকে কি করতে হবে?
মো: সুজন মাহমুদ নূর
রাজিব পুর ডিগ্রি কলেজ, কুড়িগ্রাম
– প্রচুর পড়তে হবে, বেড়াতে হবে, ভ্রমণ করতে হবে। প্রচুর লিখতে হবে। অগ্রজদের লেখাগুলো দেখাতে হবে। উন্নত লেখাগুলি প্রকাশের ব্যবস্থা করতে হবে। সাহিত্য সভায় যোগ দিতে হবে।
লেখালেখির জগতে কার অনুপ্রেরণা পেয়েছেন?
সুমাইয়া আক্তার সুমি
কানাইঘাট, সিলেট
– স্কুল জীবনে নূরুল ইসলাম স্যার। কলেজ জীবনে মানিক ভাই ও বন্ধু সানাউল্লাহ আখুঞ্জি। কর্মজীবনে আবুল মনসুর আহমদ, জাতীয় অধ্যাপক সৈয়দ আলী আহসান, ড. হাসান জামান,  ডা. বুলবুল সরওয়ার ও এ কে এম নাজির আহমদ ( যিনি বলেছিলেন, বড় একটা আলমারি বানাও, যেখানে শুধু তোমার লেখা বই থাকবে। সপ্তাহে একটা শিশুতোষ বই লিখবে। তাতে বছরে তোমার লেখার সংখ্যা দাঁড়াবে ৫০টা। ৫০ বছরে বইয়ের সংখ্যা দাঁড়াবে ২৫০০টা। তাঁর ধারণা সত্যে পরিণত হতে পারতো, যদি আমি লেখার বিষয়ে একনিষ্ঠ থাকতাম।)
বর্তমানের সিনেমা অপসংস্কৃতিতে ভরপুর। কিভাবে সুস্থসংস্কৃতির বিকাশ ঘটানো যাবে?
মোহাম্মদ আল জোবায়ের
অম্বরপুর, চান্দিনা, কুমিল্লা
– সংস্কৃতি না থাকলে অপসংস্কৃতি থাকে। দোষটা সংস্কৃতি-ওয়ালাদের। সুস্থসংস্কৃতির চর্চাতো সেভাবে শুরু হয়নি। যারা শুরু করেছিলেন, তারা পৃষ্ঠপোষকতা পাননি। পৃষ্ঠপোষকতা দরকার।

SHARE

Leave a Reply