Home নিয়মিত খোলা-ডাক খোলা ডাক

খোলা ডাক

জ্ঞানের দ্বার
জীবনচলার পথে হয়তো বা মনের অজান্তে কখনো কারো সাথে বা কোনো বন্ধুর সাথে গড়ে ওঠে সম্পর্ক, তেমনিভাবে সম্পর্ক হয়েছিল কিশোরকণ্ঠ ও আমার মাঝে। সে সম্পর্ক আজও রয়েছে অটুট। কিশোরকণ্ঠ তোমাকে অনেক ধন্যবাদ। কেননা তুমি আমার জন্য খুলে দিয়েছো জ্ঞানের দ্বার, যার মধ্যে আমি পেয়েছি জ্ঞানের এক পরম স্বাদ।
মো: কাওছার উদ্দিন, ফরহাদ নগর, ফেনী

যার বিকল্প নেই
কিশোরকণ্ঠ এমন একটি পত্রিকা যার কোনো বিকল্প নেই। এটি তার পাঠককে অন্ধকার থেকে আলোর পথে নিয়ে আসে। আমি কিশোরকণ্ঠের পাঠক সেই ২০০৮ সাল থেকে। এখন আমি কিশোরকণ্ঠের একজন নিয়মিত পাঠক। এর একটি সংখ্যাও না পড়ে আমি থাকতে পারি না। আর যখন হাতে পাই তখন প্রথম থেকে শেষ পর্যন্ত সবটুকু পড়ে ফেলি। আমি মনে করি আমার মতো কিশোরদের আদর্শ মানুষ হিসেবে গড়ে তুলতে কিশোরকণ্ঠের বিকল্প নেই।
মো : লাবিব হাসান, সদর, ময়মনসিংহ

উজ্জ্বল নক্ষত্র
অতল সমুদ্রের মধ্যে আকাশের উজ্জ্বল নক্ষত্র পথহারা নাবিককে যেমন সঠিক গন্তব্য চেনায়, তেমনি কিশোরকণ্ঠ নামক জ্ঞানময় পত্রিকা উজ্জ্বল নক্ষত্রের মতো কিশোরদের একজন সফল মানুষ হিসেবে গড়তে সাহায্য করে। আমার বিশ্বাস নিঃসন্দেহে কিশোরকণ্ঠ পৌঁছে যাবে প্রতিটি জনপদে।
মো: নাইমুজ্জামান
শাজাহানপুর, বগুড়া

নিজে পড়ি এবং…
কিশোরকণ্ঠ এমন একটি পত্রিকা যা পড়লে সবার মধ্যে ছড়িয়ে দিতে ইচ্ছে করে। আমি কিছুদিন হলো কিশোরকণ্ঠ পড়ি। বর্তমানে আমি কিশোরকণ্ঠ পড়ি এবং অনেক বন্ধুকে কিশোরকণ্ঠ পড়তে উৎসাহিত করি। এখন আমাদের স্কুলে একটি কিশোরকণ্ঠ টিম গঠিত হয়েছে। কিন্তু আমাদের একটি সমস্যা আছেÑ আমরা যেখানে থাকি এখানে কিশোরকণ্ঠ পাওয়া যায় না। আমাদেরকে বগুড়া শহর থেকে কিশোরকণ্ঠ সংগ্রহ করতে হয়। এর ফলে আমাদের নানাবিধ সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়। অনেক সময় দেখা যায় আমরা সময়মত কিশোরকণ্ঠ সংগ্রহ করতে পারি না। ফলে অনেক জানা প্রশ্নের উত্তর পাঠাতে পারি না। তাই আমাদের এখানে কিশোরকণ্ঠ সংগ্রহ করার ব্যবস্থা করে দিলে আমরা উপকৃত হতাম। এর ফলে কিশোরকণ্ঠ পাঠকের সংখ্যাও বৃদ্ধি পাবে।
মো: মাহফুজুর রহমান বায়েজিদ
বগুড়া ক্যান্টনমেন্ট

একাকিত্বের সাথী
প্রতিটি মানুষই কোন না কোন মুহূর্তে খুব একাকিত্ব বোধ করে এবং সুখ-দুঃখ ভাগাভাগি করার জন্য একজন সাথী বেছে নেয়। তেমনি আমার প্রায়ই খুব একাকী লাগে। আর তখনই আমার সাথী আমার বন্ধু হয়ে ওঠে এই নতুন কিশোরকণ্ঠ। এর প্রতিটি বিভাগের লেখাই আমার খুব ভালো লাগে। এতটাই ভালো লাগে যে, বলে বোঝাতে পারবো না। এই সাথীকে কাছে পেয়ে আমি আমার জীবনের অনেক জ্ঞান অর্জন করতে সক্ষম হয়েছি। কিশোরকণ্ঠের প্রতিটি বিভাগের লেখা মনোযোগ দিয়ে পড়লে সহজে নানা বিষয়ে জ্ঞান লাভ করা যায়। তাইতো এটি পাওয়ার জন্যই আমি অস্থির হয়ে উঠি। যেহেতু মন খারাপের মুহূর্তে এটা সঙ্গ দেয়। তাই এটি আমার একাকিত্বের সাথী।
মহিবুল্লাহ মেহেদী হাসান সরকার
সুন্দরগঞ্জ, গাইবান্ধা

অনন্য উচ্চতায় কিশোরকণ্ঠ
সর্বাধিক প্রচারিত সবার প্রিয় পত্রিকাটির নাম নতুন কিশোরকণ্ঠ। হাঁটি হাঁটি পা পা করে কিশোরকণ্ঠ আজ অনেক দূর এগিয়ে গেছে। বহু পথ মাড়িয়েছে। জ্ঞানের মশাল জ্বালিয়ে পথ দেখিয়ে চলেছে বহু মানুষকে, যারা আজ কিশোরকণ্ঠের কাছে বিনা প্রশ্নে ঋণী হয়ে আছে। এই পত্রিকাটি অনেক বছর ধরে বহু চড়াই উতরাই পেরিয়ে চলছে। জ্ঞানের যত শাখা-প্রশাখা হতে পারে অবিরাম চেষ্টা করেই যাচ্ছে পাঠকের কাছে সেসব তুলে ধরতে। একজন কিশোরের জন্য বেড়ে ওঠার উত্তম সঙ্গী এ ছাড়া আর কী হতে পারে। আছে সকল নৈতিকতার আধার। হাতছানি দেয় ভালো পথে চলার। ভিন্ন আঙ্গিকে এখন কুরআনের আলো ও হাদিসের আলোসহ সব বিভাগই মজার মজার ভঙ্গিমায় অবতীর্ণ। তাইতো আজ অনন্য উচ্চতায় কিশোরকণ্ঠ।
মুহাম্মদ নেজামুল ইসলাম
বাঁশখালী, চট্টগ্রাম

SHARE

Leave a Reply