Home তোমাদের গল্প রিমঝিম ও তার কাকাতুয়া -মোনোয়ার হোসেন

রিমঝিম ও তার কাকাতুয়া -মোনোয়ার হোসেন

আজ সকালে ভালো একটা মন নিয়ে ঘুম ভাঙল রিমঝিমের। ঘুম থেকে উঠে ছোট ছোট পা ফেলে পুবের জানালা খুলল সে। চারদিকে নরম রোদ ঝিলমিল করছে। ঝিলমিল রোদ খুব ভালো লাগে রিমঝিমের। সে জানালার পাশে দাঁড়িয়ে চারপাশের ঝিলমিল নরম রোদ দেখতে লাগল। হঠাৎ তার চোখ পড়ল জানালা ঘেঁষে দাঁড়িয়ে থাকা মেহগনি গাছটার ওপর। গাছে হলুদ রঙের একটি সুন্দর কাকাতুয়া পেখম মেলে বসে আছে। কাকাতুয়াকে দেখে খুব খুশি হলো রিমঝিম। হাততালি দিয়ে চেঁচিয়ে উঠল, কী সুন্দর কাকাতুয়া !
কাকাতুয়াকে ধরতে গিয়ে দেখল তার ডানা থেকে রক্ত ঝরছে। রক্ত দেখে খুব ভয় পেয়ে গেল সে।
চিৎকার করে উঠল, কাকাতুয়া! তোমার ডানায় রক্ত কেন?
কাকাতুয়া কেঁদে কেঁদে বলল, কাল বিকেলে এক শিকারি আমার বাবা-মাকে ধরে নিয়ে গেছে। আমাকে জখম করেছে। আমি জখম পাখা নিয়ে খুব কষ্ট করে এখানে উড়ে এসেছি।
কাকাতুয়ার কথা শুনে খুব মায়া হলো রিমঝিমের। বলল, কেঁদো না কাকাতুয়া, আমি তোমার ডানায় তেল আর হলুদ লাগিয়ে দেবো। তোমার ডানার রক্ত পড়া বন্ধ হবে। এ কথা শুনে খুশি হলো কাকাতুয়া। সে উড়ে এসে রিমঝিমের হাতে বসল।
রিমঝিমের সেবা যতেœ দ্রুত জখম সেরে উঠল কাকাতুয়ার। সে রিমঝিমের আদর-স্নেহ পেয়ে ভুলে গেল বাবা-মায়ের কথা। খুব ভালো বন্ধু হয়ে গেল রিমঝিমের।
রিমঝিম বলল, কাকাতুয়া?
হুঁ।
আমার সাথে স্কুলে যাবে?
স্কুলে কী হয়?
কাকাতুয়ার প্রশ্ন শুনে ফোকলা মুখে ফিক করে হেসে ফেলল রিমঝিম। স্কুলে লেখাপড়া শেখায়, বুঝলে?
কাকাতুয়া কী বুঝল কে জানে। বলল, হুঁ।
ঠিক আছে কাল আমার সাথে স্কুলে যাবে।
কাকাতুয়া আবার বলল, হুঁ।

সুন্দর কাকাতুয়া দেখে হইচই পড়ে গেল স্কুলে। পাখি কথা বলছে শুনে সবাই দৌড়ে এলো পাখির কাছে। রিমঝিমের বন্ধুরা কোমরে হাত দিয়ে কাকাতুয়ার সাথে কথা বলে। অন্যরা মুখ গোল করে পাখির কথা শুনছে। ক্লাসের সময় হলে রিমঝিম বলে, কাকাতুয়া, চলো এবার ক্লাসে যাই। টিচার আসার সময় হয়ে গেছে। কাকাতুয়া বলল, হুঁ।
স্কুল থেকে বাড়ি ফেরার পথে কাকাতুয়া রিমঝিমের মাথা বরাবর ওড়ে আর বলে, তিন দু’গুনে ছয়, তিন দু’গুনে ছয়।
কাকাতুয়া?
হুঁ।
তুই একটু থামবি?
নামতা শিখছি তো।
এখন একটু নামতা পড়া বন্ধ কর। আমার আজ ভালো লাগছে না।
কেন?
টেনশন লাগছে। টেনশনে তোর বকবক শুনতে ভালো লাগছে না।
কিসের টেনশন শুনি?
আজ বাংলাদেশ-ইংল্যান্ড খেলা আছে, খেলা নিয়ে টেনশনে আছি। প্রথম ম্যাচ যেভাবে জিততে জিততে হেরে গেল বাংলাদেশ!
আজ বাংলাদেশ জিতবে।
দাঁড়িয়ে যায় রিমঝিম। তীক্ষèদৃষ্টিতে তাকায় কাকাতুয়ার দিকে। সত্যি বলছিস কাকাতুয়া?
হুম সত্যি।
বাংলাদেশ জিতলে তোকে ফুচকা খাওয়াব।
কাকাতুয়া ফুচকা কী বুঝল কে জানে ! বলল, হুঁ।
দাদু আর রিমঝিমের মাঝে বসে খেলা দেখে কাকাতুয়া।
আবেগ আর উত্তেজনায় কাঁপছে রিমঝিম। কাকাতুয়া!
হুঁ।
হুঁ, হুঁ বন্ধ কর। দোয়া কর, দোয়া! বুঝলে? আর একটা উইকেট !
আর তখনই আউট বাটলার।
লাফিয়ে উঠে রিমঝিম। কাকাতুয়া! জিতে গেছি। আমরা জিতে গেছি!
তাহলে ফুচকা, আমার ফুচকা!
হেসে ওঠে রিমঝিম। কালকে !!
কাকাতুয়া আনন্দে নেচে উঠলো।

SHARE

Leave a Reply