Home খেলার চমক স্বপ্ন হারানোর মধ্যেও স্বপ্নময় সিরিজ -মোহাম্মদ হাসান শরীফ

স্বপ্ন হারানোর মধ্যেও স্বপ্নময় সিরিজ -মোহাম্মদ হাসান শরীফ

টানা সপ্তম ওয়ানডে সিরিজ জয়ের স্বপ্ন দেখেছিল বাংলাদেশ। স্বপ্নটা ছিল হাতের মুঠোতেই। প্রথম ম্যাচটাতে ওভাবে না হারলে তো রূপকথার সিরিজই হতো টাইগারদের জন্য। সামান্য একটু ভুলে হাত ফসকে গেছে স্বপ্ন।
কিন্তু যে প্রাপ্তি ঘটেছে, সেটাও কিন্তু কম নয়। বাংলাদেশ-ইংল্যান্ড সিরিজে হয়েছে ৯টি রেকর্ড। এর চেয়েও বড় কথা, বোলার মাশরাফি মর্তুজাকে পাওয়া গেছে। এত দিন তিনি ছিলেন ‘লিডার’, এখন তিনি বাংলাদেশের সেরা বোলারও। ক্যারিয়ারের সর্বোচ্চ র‌্যাংকিংয়ে পৌঁছেছেন তিনি। এটাও বড় একটা অর্জন।
ওয়ানডেতে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ ২১৬ উইকেটের রেকর্ড এখন মাশরাফির। সতীর্থ সাকিব আল হাসানের ২১৫ উইকেটকে ছাড়িয়ে গেছেন টাইগার অধিনায়ক।
ইংল্যান্ডের বিপক্ষে দারুণ বোলিং করে সিরিজ শেষে ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিলের (আইসিসি) বোলারদের তালিকার ৯-এ পৌঁছে গেছেন তিনি।
আইসিসি প্রকাশিত সর্বশেষ র‌্যাংকিংয়ের ওয়ানডেতে বোলিংয়ে ছয় ধাপ এগিয়েছেন বাংলাদেশ ওয়ানডে অধিনায়ক। যেটা তার ক্যারিয়ার সেরা ওয়ানডে র‌্যাংকিং। সর্বশেষ আফগানিস্তান ও ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ছয় ম্যাচে তিনি নিয়েছেন ১২ উইকেট।
অল রাউন্ডারদের র‌্যাংকিংয়ে শীর্ষেই আছেন সাকিব আল হাসান। দুই সিরিজ পর র‌্যাংকিংয়ে এগিয়েছেন ব্যাটসম্যান মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ও তামিম ইকবাল। তামিম একধাপ এগিয়ে রয়েছেন ২২ নম্বরে। আর ছয় ধাপ এগিয়ে ৪২ নম্বরে রয়েছেন রিয়াদ। শীর্ষ ২০-এ থাকা মুশফিকুর রহীম একধাপ পিছিয়ে রয়েছেন ১৯ নম্বরে।
তারপর তামিম ইকবালের ৫,০০০ ওয়ানডে রানের বিষয়টি বলা যায়। প্রথম বাংলাদেশী হিসেবে তিনি এই ক্লাবে প্রবেশ করলেন। আরেকজন এই মর্যাদার এই ক্লাবে প্রবেশের পথে রয়েছেন। তিনি হলেন সাকিব আল হাসান। তার রান ৪,৫৬৬।
এ ছাড়া তামিম-ইমরুলের ৮০ রানের ওপেনিং জুটির পার্টনারশিপ, সপ্তম উইকেটে মুশফিক-মোসাদ্দেকের ৮৫ রানের পার্টনারশিপের কথাও বলা যায়। বাংলাদেশের বিপক্ষে আবার ইংল্যান্ডের আদিল রশিদও সেরা সাফল্য পেয়েছেন।
বাংলাদেশ ক্রিকেটের জন্য এখন সবচেয়ে বড় আসর বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে (বিপিএল)। এ দিকেই তাকিয়ে আছে সবাই। তবে সেটা তো টি-২০ আসর। বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় শক্তি ওয়ানডে ক্রিকেট। সেটাই খেলতে হবে বেশি বেশি।
ইংল্যান্ড সিরিজে হারলেও এর মাধ্যমে বাংলাদেশের নতুন যাত্রা শুরু হলো। অবশ্য মাঝখানে আবারো বেশ বিরতি। এই বিরতিটাই বাংলাদেশের ধারাবাহিকতায় জটিলতা সৃষ্টি করেছে। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড যদি মাঝে দুই-একটি সিরিজের আয়োজন করে ফেলে, যেমন করেছিল আফগানিস্তানকে আমন্ত্রণ জানিয়ে, তবে বাংলাদেশের জন্য হবে খুবই ভালো।

SHARE

Leave a Reply