Home নিয়মিত খোলা-ডাক খোলা ডাক

খোলা ডাক

জ্ঞানের ভান্ডার
২০১৩ সাল। আমি তখন অষ্টম শ্রেণিতে লেখাপড়া করছি, হঠাৎ বন্ধু ও বড় ভাইদের কাছে কিশোরকণ্ঠ নামক মাসিক পত্রিকার খবর শুনতে পাই। তখনই আমি চলতি মাসের কিশোরকণ্ঠ কিনি ও গত কয়েক মাসের কপিগুলোও সংগ্রহ করি। ছোটবেলা থেকেই বইপড়া আমার প্রিয় শখ ছিল, যার কারণে সব ধরনের লেখা-ই এখানে ভরপুর থাকায় আমি অনেক আনন্দ নিয়ে এর প্রতিটি পৃষ্ঠা পড়ি।
জাহেদ বিন কাশেম (রনি)
চন্দনাইশ, চট্টগ্রাম

অতন্দ্র প্রহরী
বর্তমানে আমাদের বাংলাদেশে ভিনদেশী অপসংস্কৃতি আমাদের সংস্কৃতিতে ঢুকে পড়েছে। ভিনদেশী অপসংস্কৃতির আগ্রাসনের কারণে আমাদের ইসলামী সংস্কৃতি অনেকটা বিলুপ্তির দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। আমাদের অনেককেই জ্ঞাত ও অজ্ঞাত এসব অপসংস্কৃতি গ্রাস করে ফেলছে। জনগণের অসচেতনতার কারণে এটা মহামারী আকার ধারণ করেছে। আর এসব অপসংস্কৃতির বিকল্প হিসেবে কিশোরকণ্ঠ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে। সত্যিই কিশোরকণ্ঠ আমাদের সংস্কৃতি রক্ষার অতন্দ্র প্রহরী।
মো: শাহজালাল ইবনে জিহাদী
তেঁতুলিয়া, পঞ্চগড়

আমার কষ্ট
প্রিয় কিশোরকণ্ঠ যে আমার অন্য প্রাণ তা আগেই বলা হয়েছে। আমার এই প্রাণপ্রিয় কিশোরকণ্ঠ জুন সংখ্যাটি পাই ২৩ জুন। আগে ঝটপট করে কোথায় কোথায় নাম আসছে দেখে ফেললাম। এরপর এক বসায়ই শব্দধাঁধার সমাধান প্রস্তুত করে ফেললাম। কিন্তু আরো অনেক প্রতিযোগিতামূলক বিভাগে অংশগ্রহণ করতে পারলাম না। কষ্ট লাগে এ জন্য যে, প্রতিযোগিতামূলক বিভাগগুলোতে অংশগ্রহণ করতে পারিনি, এটা নয় যেনো কিশোরকণ্ঠের হক কিংবা অধিকারটাই দিতে পারলাম না মনে হচ্ছে।
মুহাম্মদ ইসলামুল হক তুষার
বাঁশখালী, চট্টগ্রাম

তোমার মাঝে খুঁজে পাই
আমি একজন নিয়মিত পাঠক। কিন্তু নতুন লেখক। লেখাপড়ার ব্যস্ততার কারণে তোমাকে নিয়মিত লিখতে পারি না। কিন্তু তোমাকে পড়তে একটুও ভুল করি না। একটু সময় পেলেই তোমাকে নিয়ে লিখতে বসি।  আজ যেমন লিখছি। চরিত্রগঠনের সব উপাদান সম্পর্কে জানতে পারি কুরআন ও হাদিসের আলোকে। সুস্থ থাকার বিষয়টি জানতে পারি স্বাস্থ্যকথা থেকে। বিনোদন খুঁজে পাই উপন্যাস ও নাটিকা পড়ে। বিজ্ঞানের অবদান সম্পর্কে জানতে পারি তথ্যপ্রযুক্তি পড়ে, খেলার কথা জানতে পারি খেলার চমক পড়ে। প্রশ্নের সব জট খুলতে পারি মুখোমুখি পর্বে, মেধাকে যাচাই করতে পারি কুইজ পর্বে।
এস এম এরশাদ আলী আকাশ
গোবিন্দগঞ্জ, গাইবান্ধা

দিন গুনতে থাকি
প্রিয় পত্রিকা নতুন কিশোরকণ্ঠ পাওয়ার জন্য আমি দিন গুনতে থাকি। কবে পাবো, কখন পাবো, যা পড়ে আমার জীবনকে উৎসাহিত করি, জ্ঞান অর্জন করি। সে জন্যই প্রতি মাসে দিন গুনতে থাকি। কিশোরকণ্ঠ পত্রিকাটি মানুষের জীবনকে সুন্দরভাবে গড়তে সাহায্য করে। যেমন- গল্প পড়ে মানুষে মজা পায়, কার্টুন পড়ে আনন্দ পায় ও হাসির বাকসো পড়ে হাসি পায়, আরো অনেক বিভাগ আছে যা পড়ে মানুষ জীবনকে অন্যভাবে গড়ে তোলে। আশা করি সবাই যেন এই প্রিয় পত্রিকা কিশোরকণ্ঠের জন্য দিন গুনতে থাকে। আরও আশা করি তোমরা সবাই এই পত্রিকা কিশোরকণ্ঠ পড়ো নিজেকে মানুষের মতো গড়ো।
মো: আলমগীর হোসেন (মিজান)
ইলিশা জংশন, ভোলা

SHARE

Leave a Reply