Home নিয়মিত আমাদের কথা আ মা দে র ক থা

আ মা দে র ক থা

প্রাণপ্রিয় বন্ধুরা, আসসালামু আলাইকুম।
আশা করি সবাই ভালো এবং সুস্থ আছ।
জ্যৈষ্ঠের দাবদাহ ছাড়িয়ে এখন আষাঢ়ের গুরুগম্ভীর আওয়াজ কানে ভেসে আসছে। এ সময় যখন তখন বৃষ্টি! কখনোবা মুষলধারে। বাইরে বের হওয়া কষ্টকর হয়ে যায়। স্কুলে যেতেও অনেক সমস্যা! তারপরও কিন্তু আষাঢ়ের মজাটাই আলাদা! বাইরেও নামা যায় না, আবার ঘরেও বসে থাকতে ইচ্ছে করে না। মন ছুটে যেতে চায় বৃষ্টির মধ্যে মাঠ-ঘাট আর পুকুর পাড়ে।
সত্যিই তাই। আষাঢ়ের বাদল দিনে কারই বা ঘরে বসে থাকতে ইচ্ছা করে! মনটা ছুটে যেতে চায় দূরদিগন্তে, ভেজা ঘাসফুল আর ফসলের গন্ধ শুঁকতে।
আষাঢ় তো এমনি। আমাদের মনকে উদাস করে তোলে। হৃদয়টা ভিজিয়ে দিয়ে যায়। আর ভাবনার জগতে ছুটে চলে স্বপ্নের পাখিরা।
আষাঢ় এলেই আষাঢ়ে গল্পের পেছনে কখনো বা ছুটতে ইচ্ছে হয়। আবার কখনো বা রিমঝিম বৃষ্টির গন্ধে মন টেনে নিয়ে যেতে চায় শাপলা ফোটা বিল কিংবা খালের ধারে। কিন্তু সাবধান! মন চাইলেও অসতর্ক হওয়া যাবে না। একটু অসতর্ক হলেই নেমে আসতে পারে যে কোনো ধরনের বিপদ। তাই সর্বদা সতর্কভাবে পা ফেলতে হবে।
এই জুন মাসের দশ তারিখ আমাদের প্রাণপ্রিয় কবি ফররুখ আহমদের জন্মবার্ষিকী। দিনটির কথা তোমাদের আরও বেশি করে মনে পড়বে যখন কবির লেখা বৃষ্টির ছড়া-কবিতাগুলো পড়বে। কী যে চমৎকার! সেসব ছড়া-কবিতায় আছে যেমন মিল, তেমনি মজাদার উপমা। একটু পড়েই দেখো না!
জুন মাসে আসছে রহমত, বরকত ও মাগফিরাতের মাস- মাহে রমজান। রমজান মানেইতো তাকওয়া অর্জনের মাস। অশেষ বরকত ও রহমতের মাস। রমজানের এই রহমত ও বরকত থেকে আমরা যেন বঞ্চিত না হই। আল্লাহপাক আমাদের সবাইকে যথাযথভাবে রোজা পালনের তৌফিক দান করুন।
জুন মাস মানেই পরিবেশ দিবস। দিনটির কথা আমাদের স্মরণ রাখতে হবে। সেইসাথে আমাদের পরিবেশকে সুন্দর করে তোলার দায়িত্ব পালন করতে হবে সবাইকে। কবির ভাষায়-
“আমাদের পরিবেশ আমরা বাঁচাবো
আমাদের ধরণী আমরা সাজাবো।”
একটু চেষ্টা ও পরিশ্রম করলে ইনশাআল্লাহ আমরা সেটা পেরে উঠবো।
২৩ জুন, পলাশী দিবস। পলাশীর দিবসে ইতিহাসটা জানা আছে তো! না থাকলে এ সংখ্যার পলাশীবিষয়ক লেখাটি থেকে তোমরা বেশ কিছুটা ধারণা লাভ করতে পারবে বলে আশা করি। পলাশীর প্রকৃত সত্য ইতিহাস আমাদের সকলেরই জানা থাকা দরকার। বিষয়টি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।
আজ এই পর্যন্তই! আল্লাহ হাফিজ।

SHARE

Leave a Reply