Home ফিচার সৌরজগতের সপ্তাশ্চর্য -কিশোরকণ্ঠ ডেস্ক

সৌরজগতের সপ্তাশ্চর্য -কিশোরকণ্ঠ ডেস্ক

পৃথিবীর মতোই সমগ্র সৌরজগতেও অনেক আশ্চর্য জিনিস ছড়িয়ে আছে। খ্রিস্টপূর্ব প্রায় ২০০ বছর আগে পৃথিবীর সাতটি আশ্চর্যকে নির্বাচিত করেছিলেন আন্টিপেটার অব সিডন। মহাকাশ ও জ্যোতির্বিজ্ঞানীরা সৌরজগতের অসংখ্য আশ্চর্য থেকে ভেবেচিন্তে সাতটি আশ্চর্যকে চিহ্নিত করেছেন। চলো জানা যাক সৌরজগতের ৭টি আশ্চর্যের কথা-
১. সোলার ফ্লেয়ার
সূর্যের উপরিভাগে মাঝে মাঝে প্রচন্ড বিস্ফোরণ ঘটে তখন মহাকাশের লক্ষ লক্ষ মাইল এলাকাজুড়ে বিশাল আগুনের শিখা ছড়িয়ে পড়ে। এই শিখার তাপমাত্রা লক্ষ ডিগ্রি ছাড়িয়ে যায়। এই শিখা মূলত চার্জযুক্ত ইলেকট্রন, প্রোটন কণিকার স্রোত যা আলোর বেগে ছুটে চলে। এ ছাড়াও এর মধ্যে থাকে প্রচন্ড শক্তিশালী বিভিন্ন রশ্মি।
সৌরজগতের এই আশ্চর্য হলো সোলার ফ্লেয়ার বা সৌরঝলক। সূর্যের এই চার্জযুক্ত কণিকাগুলো পৃথিবীর বায়ুমন্ডলের আয়নোস্ফিয়ারের সাথে সংঘর্ষ ঘটায়। তখন হঠাৎ করে কিছু সময়ের জন্য পৃথিবীব্যাপী রেডিও যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়, এ ছাড়াও রাডার যোগাযোগ ব্যবস্থাও সাময়িক সময়ের জন্য বন্ধ হয়ে যায়।
২. অলিম্পাস মনস
অলিম্পাস মনস হলো মঙ্গলের উচ্চতম পাহাড়। এটা সৌরজগতেরও সর্ববৃহৎ পাহাড়, যার উচ্চতা প্রায় ১৫ মাইল। যা কি না পৃথিবীর সবচেয়ে উঁচু পর্বতশৃঙ্গ মাউন্ট এভারেস্ট থেকেও তিন গুণ উঁচু! এটা সৌরজগতের দ্বিতীয় আশ্চর্য। সর্ববৃহৎ গভীর গিরিখাতটিও এই গ্রহে যার নাম ভ্যালিস মেরিনারিস।

৩. মঙ্গলে দুইবার সূর্যোদয়
অবিশ্বাস্য হলেও এটাই সত্য যে মঙ্গলগ্রহে দুইবার সূর্যোদয় ঘটে। আর এটিই সৌরজগতের তৃতীয় আশ্চর্য! অবশ্য এটি রোজ হয় না।
দুইবার সূর্যোদয় সৌরজগতের আর কোনো গ্রহে হয় না।
৪. শনির বলয়
সৌরজগতের সবচেয়ে সুন্দর গ্রহ হলো শনি, এর কারণ গ্রহটিকে ঘিরে একটি বলয় আছে যার কারণে শনি এত সুন্দর। খালি চোখে এই বলয়টি দেখা যায় না, যার কারণে অনেক আগের জ্যোতির্বিদরা শনিকে চিনলেও এর বলয়টির কথা জনতেন না। এই বলয়টি প্রথম ধরা পড়ে বিখ্যাত জ্যোতির্বিদ গ্যালিলিওর দূরবীনে।
সৌরজগতের চতুর্থ আশ্চর্য শনি গ্রহকে কেন্দ্র করে। আর এটি হচ্ছে শনির ট্রেডমার্ক ‘শনির বলয়’। এই বলয়ের সবচেয়ে অবাক দিক হলো এটিকে যেদিক থেকে দেখা যাক না কেন, এ বলয়ের সৌন্দর্য অনন্য ও অসাধারণ দেখা যায়।

৫. টাইটানের প্রাকৃতিক বৈচিত্র্য
টাইটানের প্রাকৃতিক বৈচিত্র্য ও ঋতু পরিবর্তন। সৌরজগতের অধিকাংশ উপগ্রহ খানাখন্দে ভরা এবং রুক্ষ। বাতাসের অস্তিত্ব নেই। টাইটানের নীলাকাশে মরচে রঙের মেঘ উড়ে বেড়ায়। মিথেনের নরম কাদায় ভাসে অ্যামোনিয়া বরফ। শনির এই উপগ্রহকে বলা হয় মহাকাশের মরূদ্যান। পৃথিবীর মতো ভারি এর আবহাওয়া।
৬. মঙ্গলের ম্যারিনাল ভ্যালি
মঙ্গলগ্রহের ম্যারিনাল ভ্যালি সৌরজগতের ষষ্ঠ আশ্চর্য। আমেরিকার গ্র্যান্ড ক্যানিয়নের চেয়ে লম্বা চওড়ায় বহু গুণ বড়। এখানে আছে অসংখ্য গিরিখাত যেগুলো দেখলে মনে হয় অতীতে এখানে নদী ছিল। কয়েকটি গিরিখাত প্রায় ২৫০ কিলোমিটার লম্বা। অনেক স্থানে এর গভীরতা প্রায় ৭০০ মিটার যা গ্রান্ড ক্যানিয়নের প্রায় ৪ গুণ। এ গ্রহে একটি গোলাকার খাদও আছে, যার নাম পাভোনিস মনস।

৭. বৃহস্পতির লাল টিপ
সৌরজগতের সপ্তম আশ্চর্য হলো বৃহস্পতির লাল টিপ। এ গ্রহের দক্ষিণ গোলার্ধে যে দীর্ঘস্থায়ী ঝড় হয়, সেই ঝড়োবাতাসে ধুলোর মতো উড়ে বেড়ায় কমলা-লাল রঙের অনেক হাইড্রোকার্বনের গুঁড়ো। বহু দূর থেকে দেখলে লাল টিপ বলে মনে হয়। এই টিপ লম্বায় প্রায় ৪০ হাজার কিলোমিটার এবং চওড়ায় প্রায় ১১ হাজার কিলোমিটার।

SHARE

Leave a Reply