Home হাসির বাকসো হাসির বাকসো

হাসির বাকসো

এক ছাত্রকে লক্ষ্য করে শিক্ষক বললেন-
শিক্ষক : বলতো বিবিসি মানে কী?
ছাত্র (একটু হেসে) : ‘বেলা বিস্কুট কোম্পানি’ স্যার।
শিক্ষক : (উত্তেজিত হয়ে) : ভারী বেয়াদব ছেলেতো।
ছাত্র (কোমল সুরে) : আপনারটাও ঠিক স্যার।
সংগ্রহে : মুহাম্মদ নকীবুস সালেহীন
বাঁশখালী হাশেমিয়া রহিমা কামিল মাদ্রাসা, চট্টগ্রাম

শিক্ষক নান্টুকে প্রশ্ন করলেন-
শিক্ষক : বলোতো নান্টু, আমাদের দেশের ঋতুগুলোর নাম কী?
নান্টু : গ্রীষ্ম, বর্ষা, বাবা, কাকা, শীত ও বসন্ত।
শিক্ষক : বাবা, কাকা আবার কেমন ঋতু?
নান্টু : আমার বাবার নাম শরৎ আর কাকার নাম হেমন্ত।

দুই বোকা গল্প করছে-
১ম বোকা : জানিস, ছোটবেলায় একবার আমি সাততলা থেকে পড়ে গিয়েছিলাম।
২য় বোকা : মরে গিয়েছিলি বুঝি?
১ম বোকা : মনে নেই রে, অনেকদিন আগের কথাতো!
সংগ্রহে : তাবাসসুম ইসলাম সাদিয়া
টমসমব্রিজ, কুমিল্লা
ক্লাসের সবচেয়ে বোকা ছাত্র আবুলকে শিক্ষক একদিন প্রশ্ন করলেন-
শিক্ষক : বলতো আবুল, চরষষধৎ লিখতে ‘ষষ’ হয় কেন?
আবুল (চিন্তিত হয়ে) : স্যার ‘পিলার’ শক্ত হওয়ার জন্য।
সংগ্রহে : তৌহিদুল ইসলাম
শাহরাস্তি, চাঁদপুর

দুই বন্ধু একত্রে বসে অভিকর্ষজ ত্বরণ (জি) এলাকায়, তাই সেখানে জি এর মান সবচেয়ে বেশি।
২য় বন্ধু : আমার মামার বাড়ি মেরু এলাকায় তাই সেখানে জি এর মান সবচেয়ে কম।
এমন সময় পেছন থেকে আরেক বন্ধু এসে বলল-
“তোদের মামার এলাকা দেখছি আমার মামার এলাকার চেয়ে উন্নত। কারণ আমার মামার বাড়িতে তো কেবলমাত্র ৩জি।
সংগ্রহে : মো: জায়েদ
বনরূপা, রাঙ্গামাটি, পার্বত্য জেলা

এক অর্ধশিক্ষিত লোকের সাথে আরেক অর্ধশিক্ষিত লোকের দেখা। একজন আরেক জনকে বলল, আমি পৃথিবীর সকল দেশ ঘুরেছি; যেমন- ঢাকা, সিলেট, ময়মনসিংহ, ত্রিশাল আর কত বলব? তখন অপর লোকটি বলল, মানচিত্র সম্পর্কে আপনার অভিজ্ঞতা ভালোই মনে হচ্ছে। তখন প্রথম লোকটি বলল, হ্যাঁ ভাই, মানচিত্রেও ছিলাম ১০ দিন।
সংগ্রহে : মো: শাফায়াত ইসলাম
মিঠাপুকুর, রংপুর

ক্রেতা ও বিক্রেতার মধ্যে কথোপকথন-
ক্রেতা : ভাই, শার্টটির দাম কত?
বিক্রেতা : একদাম ৫০০ টাকা।
ক্রেতা : ভাই, বিনামূল্যে দেয়া যায় না?
বিক্রেতা : অ্যাঁ, মামার বাড়ির আবদার, শার্ট চাইলেন আর দিয়া দিলাম।
ক্রেতা : আচ্ছা, শার্টটি দিন।
(শার্ট নিয়ে চলে যাচ্ছেন।)
বিক্রেতা : কি ভাই, টাকা দেবেন না?
ক্রেতা : অ্যাঁ, মামার বাড়ির আবদার, টাকা চাইলেন আর দিয়া দিলাম।
সংগ্রহে : ফজলে রাব্বী, যাত্রাবাড়ী, ঢাকা

মায়ের অতি আদরের ছোট ছেলে দোয়া করছে, ‘ইয়া আল্লাহ, তুমি কানাডাকে সুইডেনের রাজধানী বানিয়ে দাও।’ ছেলের এই দোয়া শুনতে পেয়ে মা বললেন-
মা কিরে? হঠাৎ এ রকম দোয়া করছিস কেন?
ছেলে : আমি পরীক্ষায় সুইডেনের রাজধানী কানাডা লিখে এসেছি।
সংগ্রহে : তারানা তাবাসুম নিশাব
মিরপুর, বাহুবল, হবিগঞ্জ

মা ও ছেলের মধ্যে কথা হচ্ছে-
মা : খোকা তুমি এইচএসসি পরীক্ষায় কী করলে।
মারুফ : জিপিএ ৫ পেয়েছি মা।
মা : মানে কি বাবা। একটু বুঝিয়ে দাও।
মারুফ : জিতে গোল্লা, পিতে পেয়েছি এতে আমি, ৫তে পাঁচটা। তার মানে আমি ৫টা গোল্লা পেয়েছি।
সংগ্রহে : আফনানুল ইসলাম মারুফ
লোহাগাড়া, চট্টগ্রাম

এক কৃপণ ব্যক্তি গর্তে পড়ে যায়, তাকে এক উদ্ধারকারী গর্তে রশি দিয়ে বাঁচানোর চেষ্টা করছেন। এমন সময়-
উদ্ধারকারী : ভাই, তোমার হাতটা রশিতে দাও।
কৃপণ ব্যক্তি : না, দেবো না।
অন্য উদ্ধারকারী : ভাই, তুমি হাত দিয়ে রশিটা নাও।
(সাথে সাথে কৃপণ ব্যক্তি রশি ধরে উপরে ওঠে, তারপর) সাংবাদিক তাকে জিজ্ঞেস করেন-
সাংবাদিক : আপনাকে প্রথমে হাত দিতে বলা হলো। কিন্তু আপনি দেননি আর যখন বলা হলো নিতে, তখন আপনি রশি ধরে উপরে উঠলেন। এর কারণ কী?
কৃপণ ব্যক্তি : কারণ, আমি কোনদিন কাউকে কিছু দিইনি শুধু নিয়েছি।
সংগ্রহে : জোবাইর বিন জিহাদী
সাতকানিয়া, চট্টগ্রাম

“ধূমপান করার অপকারিতা নিয়ে পত্রিকায় লেখা দেখল জনৈক ধূমপায়ী। মনোযোগ দিয়ে লেখাটা পড়ে পত্রিকাটা ভাঁজ করে রাখতে রাখতে বলে উঠল : ব্যাস আজ থেকে বন্ধ।
ঐ কথা শুনে আশান্বিত হয়ে তার স্ত্রী বলল, কী গো আজ থেকে তাহলে সিগারেট খাওয়া বন্ধ করে দেবে?
স্বামী : না তা তো বলিনি! বলেছি আজ থেকে বাড়িতে খবরের কাগজ রাখা বন্ধ।

শিক্ষক : আমরা ভাত খাই চাল আসে উদ্ভিদ থেকে; রুটি খাই গম আসে উদ্ভিদ থেকে; শাক সবজি খাই, তাও আসে উদ্ভিদ থেকে-
ছাত্র : মার খাই বেতও আসে উদ্ভিদ থেকে!
সংগ্রহে : আব্দুল্লাহ আল মামুন (রুবেল)
সোনাপুর, নোয়াখালী

ছেলে বাবার কাছে টাকা চেয়ে চিঠি লিখল।
ছেলে : শ্রদ্ধেয় বাপ, পড়ার বড় চাপ, ফুরিয়ে গেছে টাকা, কেমনে থাকি ঢাকা? টাকার দরকার তাই, কিছু টাকা চাই।
ইতি তোমার কানাই।
বাবা চিঠি পেয়ে ছেলের কাছে চিঠি লিখল।
বাবা : জাদু কানাই, সত্য কথা জানাই, পকেট এখন ফাঁকা, কেমনে পাঠাই টাকা? টাকার খুব অভাব, ইতি তোর বাপ।
সংগ্রহে : মুহাম্মদ আল-হেলাল
তুজারভাঙ্গা, দাউকান্দি, কুমিল্লা

SHARE

1 COMMENT

Leave a Reply to আমিনুর Cancel reply