Home খেলার চমক নতুন দিগন্তে মোস্তাফিজ -হাসান শরীফ

নতুন দিগন্তে মোস্তাফিজ -হাসান শরীফ

আন্তর্জাতিক অঙ্গনে তার আবির্ভাব হয়েছে একটার পর একটা রেকর্ড গুঁড়িয়ে দিয়ে, বাংলাদেশের ক্রিকেটকে নতুন দিগন্তে নিয়ে গেছেন তিনি। ছোট্ট এই ক্যারিয়ারে এমন কিছু পেয়ে গেছেন, যেটা অনেকের সারা জীবনের পুঁজি হয়ে থাকে। তার জীবনটাই হয়ে গেছে এলাম, দেখলাম এবং জয় করলাম। কিন্তু তার তো কেবল শুরু। ২০১৫ সালের শেষ ভাগটা যদি উত্থানপর্ব হয়ে থাকে, ২০১৬ সালের প্রথম ভাগ হবে অবস্থানটা সুসংহত করার পর্ব। তারপর আসবে সেটা চিরস্থায়ী করার পর্ব। দ্বিতীয় যে পর্ব সেটা হতে যাচ্ছে আসন্ন টি-২০ বিশ্বকাপ দিয়ে।
হ্যাঁ, ভারতে অনুষ্ঠেয় বিশ্বকাপ মোস্তাফিজের জন্য প্রস্তুত। বিশ্বও তাকে নতুন করে যাচাই করার জন্য তৈরি। মোস্তাফিজ নামের বাঘটির গর্জন এখন পর্যন্ত বাংলাদেশ থেকেই শোনা গেছে, এবার সারা বিশ্ব থেকেই তা শোনা যাওয়ার সময় এসেছে।
তার নাম মোস্তাফিজুর রহমান। সাতক্ষীরার এই ছেলেটি এখন পর্যন্ত মাত্র ৯টি একদিনের আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলেছেন। আর তাতেই মোহিত পুরো বিশ্ব। এই ৯ ওয়ানডেতে ১২.৩৪ গড়ে তার উইকেট ২৬টি। জীবনের প্রথম সিরিজেই ভারতের বিপক্ষে তিনি তুলে নিয়েছিলেন রেকর্ড ১৩ উইকেট। এর মধ্যে পরপর দুই ম্যাচে আছে দু’টি পাঁচ উইকেট-কীর্তি। এখন পর্যন্ত তার উইকেট সংগ্রহের যে হার, তাতে দেখা যাচ্ছে প্রতি ১৭.৩ বল পর তিনি উইকেট পেয়েছেন একটি করে। ‘কাটার’ নামে এক অস্ত্র দিয়ে মোস্তাফিজ এখন বিশ্বক্রিকেটে তাবৎ ব্যাটসম্যানের জন্যই আতঙ্কের অপর নাম।
এর রেশ ধরেই প্রথম বাংলাদেশী হিসেবে ওয়ানডে ক্রিকেটের বিশ্ব একাদশে স্থান পেয়েছেন মোস্তাফিজ। গত ২ ডিসেম্বর ক্রিকেটের সর্বোচ্চ সংস্থা আইসিসি ২০১৫ সালের জন্য টেস্ট ও ওয়ানডের দু’টি আলাদা বিশ্ব একাদশের খেলোয়াড়দের নাম প্রকাশ করে। এতে ওয়ানডে একাদশে সুযোগ পেয়েছেন বাংলাদেশের এই বাঁহাতি পেসার। এর আগে, ২০০৯ সালে প্রথম বাংলাদেশী হিসেবে টেস্টের বিশ্ব একাদশে সুযোগ পেয়েছিলেন সাকিব আল হাসান।
ওয়ানডের জন্য নির্বাচিত বিশ্ব একাদশে মোস্তাফিজের সতীর্থরা হলেন : তিলকরতেœ দিলশান (শ্রীলঙ্কা), হাশিম আমলা (দক্ষিণ আফ্রিকা), কুমার সাঙ্গাকারা (শ্রীলঙ্কা), এবি ডি ভিলিয়ার্স (দক্ষিণ আফ্রিকা), স্টিভেন স্মিথ (অস্ট্রেলিয়া), রস টেলর (নিউজিল্যান্ড), ট্রেন্ট বোল্ট (নিউজিল্যান্ড), মিচেল স্টার্ক (অস্ট্রেলিয়া), মোহাম্মদ শামি (ভারত) ও ইমরান তাহির (দক্ষিণ আফ্রিকা)।
২০১৪ সালের সেপ্টেম্বর থেকে ২০১৫ সালের সেপ্টেম্বর পর্যন্ত সময়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে পারফরম্যান্সের ভিত্তিতে ওয়ানডের এই বিশ্ব একাদশটি নির্বাচন করা হয়। এতে গত বছরের এপ্রিলে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষিক্ত মোস্তাফিজের সুযোগ মিলেছে বল হাতে ক্রিকেটবিশ্বকে চমকে দেয়ার পরই।
তবে সবার বিশ্বাস, এখানেই আটকে থাকবেন না মোস্তাফিজ। তিনি আগামী বছর টেস্ট দলেও জায়গা করে নিতে পারবেন। টেস্টেও যে তিনি খারাপ করবেন না, সে ইঙ্গিত তিনি ইতোমধ্যেই দিয়ে দিয়েছেন। প্রথম টেস্ট ম্যাচে মোস্তাফিজ দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে নিয়েছেন চার উইকেট। সব মিলিয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে মোস্তাফিজ এসেই বাজিমাত করেছেন। ধারাবাহিকভাবে ভালো খেলে লাইমলাইটে এসেছেন, এ কারণে তার খ্যাতি ছড়িয়ে পড়েছে বিশ্ব ক্রিকেটে।
তবে এতে করে তার ওপর যেন কোনো রকমের বাড়তি চাপ সৃষ্টি না হয়, সে দিকে সবার নজর রাখতে হবে।

SHARE

Leave a Reply