Home কুরআন ও হাদিসের আলো তাকওয়া

তাকওয়া

সূর্য ততক্ষণে মাথার ওপরে উঠে গেছে। রাফী ও তামীম গ্রামের আঁকাবাঁকা পথ ধরে হাঁটছে। তারা বের হয়েছিল নদী দেখার জন্য। রাফী অবশ্য প্রায়ই আসে মেঘনার পাড়ে। বাড়ির কাছে তো, তাই। নদীর নয়নাভিরাম সৌন্দর্য তাকে বারবার টানে। বিশেষ করে, মধ্য-দুপুরে নদীর ঢেউয়ের ওপর সূর্যের আলো আছড়ে পড়ার দৃশ্য তার কাছে অনেক রোমাঞ্চকর মনে হয়।
তামীম নদী দেখেনি কখনোই। খালার বাড়িতে বেড়াতে এসে খালাতো ভাই রাফীর সাথে প্রথমবারের মতো নদী দেখতে যাচ্ছে। রমজান মাস। রোজা রেখেছে দু’জনেই। প্রচন্ড রোদ্দুরে গলা শুকিয়ে কাঠ। তামীম বলল, ভাইয়া! আমি আর পারছি না। ওই যে প্রাইমারি স্কুলের সামনে একটি টিউবওয়েল দেখা যাচ্ছে। স্কুল বন্ধ। আশপাশেও কেউ নেই। চলো, লুকিয়ে পানি পান করি।
রাফী তামীমের চেয়ে বয়সে বড়। ইসলাম সম্পর্কে তার যথেষ্ট জানা-শোনা। সে এ কথার সরাসরি জবাব না দিয়ে বলল, একটি গল্প শোনো। সাহাবী আবদুল্লাহ ইবনে উমার রা: একবার কয়েকজন সঙ্গীসহ মদিনার এক প্রান্তে গেলেন। তারা খাবার গ্রহণের প্রস্তুতি নিলেন। এমন সময় এক রাখালকে দেখে তিনি বললেন, এসো, আমাদের সাথে খাও। সে বলল, আমি রোজাদার। ইবনে উমার রা: বললেন, এমন তীব্র গরমে, এই গিরিপথে তুমি রোজা রেখে ছাগল চরাচ্ছ? রাখাল বলল, আমার দিনগুলো আমি এভাবেই অতিবাহিত করি। ইবনে উমার রা: বললেন, তুমি কি আমাদের কাছে একটি ছাগল বিক্রি করবে? আমরা তোমাকে এর গোশতও দেবো, যা দিয়ে তুমি ইফতার করতে পারবে। সে বলল, এগুলো আমার মালিকের। ইবনে উমার রা: বললেন, তুমি যদি মালিককে বলো, ছাগলটি নেকড়ে খেয়ে ফেলেছে, তাহলে? রাখাল এবার আকাশের দিকে আঙুল তুলে বলল, ‘তাহলে আল্লাহ কোথায়?’
তামীম বুঝতে পারল। সত্যিই তো, কেউ না দেখলেও আল্লাহ সবকিছু দেখেন। রাফী বলল, শোনো- এভাবে সকল কাজে আল্লাহকে ভয় করার নাম হচ্ছে তাকওয়া। যার তাকওয়া বেশি, আল্লাহর নিকট অধিক সম্মানিত সে-ই। আর তাকওয়ার প্রশিক্ষণ দেয়ার জন্যই আল্লাহ রমজান মাসের রোজাকে ফরজ করে দিয়েছেন। যেমন তিনি বলেছেন, “হে ঈমানদারগণ! তোমাদের ওপর রোজা ফরজ করা হয়েছে, যেভাবে ফরজ করা হয়েছিল তোমাদের পূর্ববর্তীদের ওপর, যাতে তোমরা তাকওয়া অর্জন করতে পারো।” (সূরা আল-বাকারাহ : ১৮৩)।
তামীম ভাবল, তাহলে রমজানই তো তাকওয়া অর্জনের শ্রেষ্ঠ সময়। তা ছাড়া, একজন মরুচারী রাখাল যদি তীব্র গরমেও রোজা রাখতে পারে, আল্লাহর ভয়ে সৎ থাকতে পারে; আমি কেন পারব না?
বিলাল হোসাইন নূরী

SHARE

Leave a Reply