Home তোমাদের গল্প রাজা ও বালক

রাজা ও বালক

মেসবাহ কামাল#

সে  অনেকদিন আগের কথা। পুবের কোন এক দেশে বাস করতেন এক রাজা। রাজ্যজুড়ে ছিল তার নাম-ডাক।
আশপাশের দশ তল্লাটে পর্যন্ত ছিল তার যশ-খ্যাতি।
– রাজার ছিল সুদক্ষ চৌকস সেনাবাহিনী।
হাতিশালে হাতি, ঘোড়াশালে ঘোড়া। সে এক বিরাট ব্যাপার। রাজ্যজুড়ে ছিল সুখ আর সুখ।
রাজার প্রশংসায় প্রজারা ছিল পঞ্চমুখ।
সেকালে এত বিশাল রাজ্য ছিল না আর এক-আধটা। এক কথায় প্রাণ-প্রাচুর্যে ছিল সে রাজ্য ভরপুর। একদিন রাজা মন্ত্রীকে ডেকে বললেন, মন্ত্রী রাজ্যে ঢেড়া পিটিয়ে ঘোষণা করে দাও যদি কেউ আমার রাজ্যের চেয়েও বড় কোন মুল্লুকের সন্ধান দিতে পারে, তবে তাকে আমি এ বিশাল মুল্লুকের অর্ধেক রাজত্ব দান করব। মন্ত্রী এক গাল হেসে বললেন, মহারাজ আপনার রাজ্যের চেয়ে বড় রাজ্য গোটা মুল্লুকে আর একটিও নেই।
সে কি আর বলতে হয়? রাজা হুঙ্ককার ছেড়ে বললেন, কথা বাড়িও না মন্ত্রী, আমি যা বললাম তাই কর।
ব্যস যে কথা সে কাজ। গোটা রাজ্যে জানিয়ে দেয়া হলো রাজার ঘোষণা। দিন যায়, মাস যায়Ñ সে বিশাল রাজ্যের হদিস নিয়ে কেউ আসে না। এ তো সবার জানা কথা। এ রাজ্যের চেয়ে বড় রাজ্য গোটা জাহানে আর একটিও নেই। কিন্তু হঠাৎ একদিন এক পুচকে ছেলে এসে বললো, মহারাজ আমি দিতে পারি সে রাজ্যার সন্ধান। সে রাজ্যের তুলনায় আপনার রাজ্য অতিশয় ক্ষুদ্র। রাজার পিলে চমকে গেল। হুঙ্কার দিয়ে বললেন, বলো হে বৎস, কোথায় সে রাজ্য? আমি আজই তা জয় করব।
ছেলেটি রাজাকে থামিয়ে দিয়ে বলল, সে রাজ্য আপনি জয় করতে পারবেন না মহারাজ। কারণ সে রাজ্যের রাজার আপনিও যে একজন গোলাম। রাজা রেগে মেগে বললেন, কী বলতে চাও তুমি? ছেলেটি হেসে বলল, মহারাজ, সে রাজ্য হলো মহান আল্লাহর সৃষ্টি এ পৃথিবী।
ছেলেটির কথাশুনে রাজার দম্ভ থেমে গেল। দু’হাতে কোলে টেনে নিলেন তাকে। কেঁদে বললেন, ওহে বৎস তুমি আমার ভুল ভাঙিয়ে দিলে। আজ আমি রাজাধিরাজ মহান স্রষ্টাকে চিনতে পারলাম।
রাজার আদেশে ছেলেটিকে অর্ধেক রাজত্ব দেয়া হলো। গোটা রাজ্যে জয় জয়কার পড়ে গেলো সত্যের সন্ধান দেয়া পুচকে ছেলের জন্য।

SHARE

Leave a Reply