Home কুরআন ও হাদিসের আলো শীত ও গ্রীষ্মকাল আল্লাহর বিশেষ দান

শীত ও গ্রীষ্মকাল আল্লাহর বিশেষ দান

Koran“যেহেতু কুরাইশরা আসক্ত হয়ে গিয়েছে। এ আসক্তি শীত ও গ্রীষ্মকালীন সফরের। অতএব তারা যেন এ ঘরের পালনকর্তার ইবাদত করে, যিনি তাদেরকে ক্ষুধায় আহার দিয়েছেন এবং যুদ্ধভীতি থেকে নিরাপত্তা দিয়েছেন।” (সূরা কুরাইশ : ১-৪)

বন্ধুরা,
আস্সালামু আলাইকুম। আশা করি ভালো আছ। শীতের সকাল নিশ্চয়ই দারুণ উপভোগ করছ তাই না? আজ তোমাদের সামনে তোমাদের অতি পরিচিত একটি সূরা পেশ করেছি। তোমরা জান সূরা কুরাইশ  মক্কায় অবতীর্ণ। মহান আল্লাহ তাআলা আরবে রাসূল (সা)-এর বংশ কুরাইশকে বিশেষ মর্যাদা দিয়েছিলেন। তাদের প্রতি আল্লাহপ্রদত্ত নিয়ামতসমূহের মাঝে বিশেষভাবে উল্লেখযোগ্য ছিল আল্লাহ তাদের শীত ও গ্রীষ্মকালীন সফরের সুযোগ দিয়েছিলেন। জীবিকা ও ধনসম্পদ লাভের আশায় কুরাইশরা শীতকালে ইয়েমেন ও গ্রীষ্মকালে সিরিয়া সফরের প্রতি আসক্ত ছিল। এই সফরের ফলে তারা ঐশ্বর্যশালীরূপে পরিচিত হয়েছিল। এ কথা প্রসিদ্ধ ছিল যে, মক্কা শহর যে স্থানে অবস্থিত তাতে কোনো ধরনের চাষাবাদ হতো না এবং বাগবাগিচাও নেই। এ জন্য হজরত ইবরাহিম (আ) আল্লাহর কাছে দোয়া করেছিলেন ‘হে আল্লাহ, এতে বসবাসকারীদেরকে ফলমূলের রিজিক দান করুন।’ তিনি আরো দোয়া করেছিলেন, ‘বাইরে থেকেও যেন এখানে ফলমূল আনার ব্যবস্থা হয়।’ তাই বাণিজ্যিক উদ্দেশ্যে সফর ও বিদেশ থেকে প্রয়োজনীয় জীবনোপকরণ সংগ্রহের ওপরই মক্কাবাসীদের জীবিকা নির্ভরশীল ছিল। হজরত ইবনে আব্বাস (রা) বলেন, মক্কাবাসীরা খুবই দারিদ্র্য ও কষ্টে দিনাতিপাত করতেন। অবশেষে রাসূলের প্রপিতামহ হাশেম কুরাইশকে ভিনদেশে গিয়ে ব্যবসা বাণিজ্য করতে উদ্বুদ্ধ করেন। সিরিয়া ছিল ঠান্ডা দেশ। তাই গ্রীষ্মকালে তারা সিরিয়া সফর করতেন। পক্ষান্তরে ইয়েমেন গরম ছিল বিধায় তারা শীতকালে সেখানে বাণিজ্যিক সফর করতেন এবং মুনাফা অর্জন করতেন। বায়তুল্লাহর খাদেম হওয়ায় সমগ্র আরবে তারা ছিলেন সম্মান ও শ্রদ্ধার পাত্র। ফলে তৎকালীন বিশৃঙ্খল আরবেও তাদের যাতায়াত ছিল সম্পূর্ণ নিরাপদ। তাই আল্লাহ গুরুত্বারোপ করেন, যে ঘরের রব মহান আল্লাহ তোমাদের এত কিছু দিয়েছেন তাই তোমরা তোমাদের সেই মহান রবের ইবাদত কর।
বন্ধুরা, শীত ও গ্রীষ্মকাল আল্লাহর এক বিশেষ দান আরব-অনারব সকল মানুষের প্রতি। বৈশ্বিক আর্দ্রতা ও উষ্ণতার ভারসাম্য রক্ষায় জগতবাসীর প্রতি আল্লাহর বিশেষ করুণা এটি। এর মাধ্যমে জলবায়ুর ভারসাম্য যেমন রক্ষা হয় তেমনি আবহাওয়ার বৈচিত্র্যের কারণে নানা জাতের উদ্ভিদ ও ফলমূলের সৃষ্টি হয়।
আল্লাহ, আমাদেরকে শীতকালীন সকল নেয়ামত ভোগ করার পাশাপাশি বেশি পরিমাণে ইবাদত-বন্দেগি ও গরিব অসহায় মানুষের প্রতি দয়াশীল হওয়ার তাওফিক দিন। আমিন।
গ্রন্থনায় : মিজানুর রহমান

SHARE

Leave a Reply