Home কুরআন ও হাদিসের আলো আল্লাহকে ভয় কর আর মানুষের সাথে সদ্ব্যবহার কর

আল্লাহকে ভয় কর আর মানুষের সাথে সদ্ব্যবহার কর

হজরত আবু জর গিফারি (রা) থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ (সা) আমাকে বলেছেন, তুমি যেখানেই থাক আল্লাহকে ভয় কর, আর মন্দ কাজ করলে তার পরপরই সৎ কাজ কর। তাহলে ভালো কাজ মন্দ কাজকে নিশ্চিহ্ন করে দেবে। আর মানুষের সাথে সদ্ব্যবহার কর। (তিরমিজি ১৯১০)

বন্ধুরা, আজ একটি প্রসিদ্ধ হাদিস তোমাদের কাছে পেশ করেছি।
আমাদের প্রিয় নবী মুহাম্মদ (সা) হজরত আবু জর (রা)-কে বলেছেন, হে আবু জর! তুমি যেখানেই থাক না কেন আল্লাহকে ভয় কর আর মন্দ কাজ যদি কদাচিৎ করেও ফেল তার পরপরই সৎ কাজ করে তা মোচন করে ফেল। কারণ এ মন্দ কাজ আমলনামায় জমা থেকে গেলে তা প্রতিনিয়ত গোনাহর পাল্লাই ভারী করবে। আর সে গোনাহসমূহ মানুষকে জাহান্নামের দিকে ধাবিত করবে। তোমরা জান যে আল্লাহকে ভয় করার নামই তাকওয়া। এর আরো অর্থ হলো সংরক্ষণ করা, বেঁচে থাকা।
পরিভাষায় তাকওয়া হলো আল্লাহর আদিষ্ট বিষয়গুলো মেনে চলা ও নিষিদ্ধ বিষয়গুলো থেকে বেঁচে থাকা। অর্থাৎ পরকালীন জীবনে ক্ষতিকর কাজ থেকে বেঁচে থাকা
তাকওয়ার কয়েকটি স্তর আছে। যেমন, প্রথমত শিরক থেকে বেঁচে থাকার মাধ্যমে চিরস্থায়ী শাস্তি থেকে বেঁচে থাকা। দ্বিতীয়ত, পাপাচারমূলক প্রত্যেক বিষয় ও বস্তু থেকে বিরত থাকা। চাই কর্মমূলক হোক বা বর্জনমূলক হোক। তৃতীয়ত, যা কিছু আল্লাহ থেকে মানুষের অন্তরকে ফিরিয়ে রাখে সেসব পরিহার করা।
এই পাপগুলোর কোনো একটির সাথে কেউ ইচ্ছায়-অনিচ্ছায় জড়িয়ে পড়লে সাথে সাথে তওবা করে ফিরে আসতে হবে। সে সাথে কিছু সৎ কাজ করতে হবে যাতে কৃত সৎ কাজটি পূর্বেকার কৃত অপরাধের প্রায়শ্চিত্ত হয়।
হাদিসের শেষ নির্দেশনা হলো মানুষের সাথে সদ্ব্যবহার করা। পিতা-মাতা, ভাইবোন, নিকট-আত্মীয় তো বটেই, সকল মানুষের সাথে আচার-ব্যবহার, লেনদেন, কথাবার্তা, উঠা-বসায় সর্বোত্তম সুন্দর ব্যবহার করা উচিত।
বন্ধুরা, তোমার বাবা-মা, ছোট বড়-ভাইবোন, বন্ধু-বান্ধব, প্রতিবেশী সবার সাথে সর্বোচ্চ ভদ্রতা প্রদর্শন করলে তোমাদের কোনো ক্ষতি তো হবেই না বরং সবাই তোমাদের প্রতি ¯েœহশীল হবেন। অসহায় পথশিশুদের প্রতি দয়াশীল হও আল্লাহও তোমাদের প্রতি দয়াশীল হবেন। কোনো অবস্থাতেই কাউকে গালমন্দ করা, গিবত, পরনিন্দা করা, চুরি-ডাকাতি, অনৈতিক সম্পর্ক, সময় নষ্ট করা, খারাপ বন্ধুদের সাথে সময় দেয়া, বাবা-মার অবাধ্যতা ইত্যাদিতে জড়িয়ে পড়ো না। তবেই তোমাদের ইহ-পরকালীন জীবন সুন্দর হবে।
আল্লাহ আমাদেরকে রাসূলের পছন্দনীয় পথে চলার তাওফিক দিন, আমিন।
মিজানুর রহমান

SHARE

3 COMMENTS

  1. আল্লাহ তায়ালা আমাদের সকলকে এ হাদিস অনুযায়ী আমল করার তাওফিক দান করুন। (আমিন)

  2. যে ঈমান ঘর থেকে মসজিদে নিতে পারেনা সে ঈমান কীভাবে কবর থেকে জান্নাতে নেবে।

  3. যে ঈমান ঘর থেকে মসজিদে নিতে পারেনা সে ঈমান কীভাবে কবর থেকে জান্নাতে নেবে।আল হাদিস

Leave a Reply