Home নিয়মিত খোলা-ডাক খোলা ডাক

খোলা ডাক

Khola-Dakপড়ার শিক্ষক
মানুষের মন তো আর সবসময় ভালো থাকে না। তেমনি আমারও কোনো সময় অন্য বিষয় নিয়ে মনের মধ্যে চিন্তার ঘুরপাক খায়। তখন আর ভালো লাগে না। এক সময় যখন কিশোরকণ্ঠের দিকে চোখ যায়, তখন তাকে হাতে নিয়ে পড়তে শুরু করি। পড়তে পড়তে এক সময় ভালো লাগে। তখন ক্লাসের পড়া শুরু করি, এক সময় ক্লাসের পড়া শেষ হয়। তাই শিক্ষক যেমনি ছাত্রকে পড়তে বসিয়ে দেয়, তেমনি কিশোরকণ্ঠ আমাকে পড়তে বসিয়ে দিল।
আব্দুর রাজ্জাক
হাতিয়া, নোয়াখালী

জ্বলন্ত প্রদীপশিখা
যে মুহূর্তে অপসংস্কৃতির কালো থাবা মানুষের বিবেককে আচ্ছন্ন করেছে, যে সময় মানুষ সত্যকে ঠেলে ফেলে মিথ্যাকে বন্ধু করেছে, ঠিক সেই মুহূর্তে সময়ের দাবি মেটাতে, পথ হারাদের পথ দেখাতে, ঘুমন্ত মুসলিম বিবেককে ইসলামী বিপ্লবের সত্যিকার চেতনায় উজ্জীবিত করার জন্য আমাদের মাঝে হাজির হলো একটি জ্বলন্ত প্রদীপশিখা। আর এ জ্বলন্ত প্রদীপশিখা অন্য কিছুই নয়, আমার প্রাণপ্রিয় পত্রিকা নতুন কিশোরকণ্ঠ অন্ধকারের কাণ্ডারি।
সাদিয়াতুত তাসনিম
কেশবপুর, যশোর

ঋতুর পরিবর্তনে
ঋতুর পরিবর্তনে যেমন প্রকৃতির রূপ পরিবর্তন হয়, তেমনি কিশোরকণ্ঠের রূপও পরিবর্তন হয়। কারণ, ঋতু যেমন করে প্রকৃতিকে নতুন রূপ দেয় তেমনিভাবেই কিশোরকণ্ঠ আমাকে নতুন জ্ঞান দিয়েছে। এ ছাড়াও কিশোরকণ্ঠের প্রতি মাসের বইয়ের লেখাগুলো পড়ে আমি অনেক জ্ঞান অর্জন করেছি এবং নতুন মাসের কিশোরকণ্ঠ পাওয়ার জন্য আমার মন খুব ছটফট করে। আর আমি যখন নতুন মাসের কিশোরকণ্ঠ পত্রিকা পাই তখন আগে দেখি বইয়ের প্রতিটি পৃষ্ঠা। সেখানে দেখতে পাই নতুন নতুন লেখা এবং নতুন নতুন জ্ঞান। সেখানে আরো দেখতে পাই ঋতুর পরিবর্তনে বইয়ের লেখাগুলোও পরিবর্তিত হয়েছে। তাই, ঋতুর পরিবর্তনে কিশোরকণ্ঠের লেখারও পরিবর্তন হয়।
ফেরদৌস সরদার
পাবনা
আলোর ঢল
আমি কিশোরকণ্ঠের একজন ভক্ত- অনুরক্ত এবং নিয়মিত পাঠক। কোনো মাসে কিশোরকণ্ঠ পেতে দেরি হলে আমার সবকিছু অস্থির মনে হয়। আমার পড়ার টেবিলে কিশোরকণ্ঠ না থাকলে সবই শূন্য মনে হয়। এর প্রতিটি বিভাগই সুন্দর এবং রহস্যে ভরা, যা আমার কোমল হৃদয়ে গভীরভাবে নাড়া দেয়। কিশোরকণ্ঠ যেন শত শত জ্ঞানের আলোর ঢল নিয়ে হাজির হয়। যে আলোয় আলোকিত হয় আমার মতো লাখো কিশোর-কিশোরীর হৃদয়। রঙ ছড়ায় প্রভাতের আলোর ন্যায়। তাই আমি কিশোরকণ্ঠকে খুব ভালোবাসি।
রাবেয়া সুলতানা লুৎফা
সন্দ্বীপ, চট্টগ্রাম

সবার সেরা
আমি কিশোরকণ্ঠ পত্রিকার একজন নিয়মিত পাঠক। পাঠকপ্রিয় কিশোরকণ্ঠ পত্রিকাটি আমি সাত বছর ধরে পড়ে আসছি। এক কথায়, দারুণ অসাধারণ। তথ্যসমৃদ্ধ ও জ্ঞানের বিশাল ভাণ্ডার নিয়ে প্রতি মাসের শুরুতে হাজির হয়। নতুন কিশোরকণ্ঠ পত্রিকাটি সাফল্যের তিন দশক পেরিয়ে চার দশকে পদার্পণ করেছে, সে জন্য মহান আল্লাহর দরবারে শুকরিয়া জানাচ্ছি। পরিশেষে, নতুন কিশোরকণ্ঠের জন্য শুভ কামনা রইল। যুগ যুগ ধরে কিশোরকণ্ঠ বেঁচে থাকুক লাখো পাঠকের অন্তরে। ‘জয়তু কিশোরকণ্ঠ’।
মো: সীমান্ত শাহজাহান
বড়ইতলা, ভুজপুর, চট্টগ্রাম
জীবন গড়ার কারিগর
আমার জীবনকে আলোকিত করতে অন্যতম একটি মাধ্যম খুঁজছিলাম, যা আমাকে চলার পথে অনুপ্রেরণা, লক্ষ্যপানে এগিয়ে যাওয়ার দৃঢ়প্রত্যয়, শিক্ষাজীবনকে আরো আলোকিত, অন্ধকার থেকে আলোর পথে এগিয়ে আনা, পাশাপাশি জীবনের প্রতিটা ক্ষেত্রে অন্যতম কর্ণধার হিসেবে পাশে থাকবে। আমার সব আশাকে বাস্তবে রূপান্তরিত করেছে প্রিয় কিশোরকণ্ঠ। কিশোরকণ্ঠ আমার জীবন গড়ার কারিগর।
মো: নুরুল্লাহ হোসেন, রোনগর, মহম্মপুর, মাগুরা
অনন্য পত্রিকা
কিশোরকণ্ঠের সুন্দর সুন্দর মিষ্টি মধুর কবিতা, কুরআনের আলো, হাদিসের আলো, গল্প, উপন্যাসÑ সব বিভাগের লেখা আমার প্রচুর পরিমাণে ভালো লাগে। এক কথায় কিশোরকণ্ঠের প্রত্যেকটা লেখা আমাকে মুগ্ধ করছে। এটা আমাদের প্রতিভা বিকাশের জন্য প্রচুর পরিমাণে ভূমিকা রাখছে। এই সুন্দর পত্রিকায় অনেক লেখক তাদের লেখা পাঠিয়ে তাদের নিজস্ব প্রতিভা প্রকাশ করছেন। আমিও কিশোরকণ্ঠে লেখা পাঠাচ্ছি এ জন্য আমার অনেক ভালো লাগছে। এটা আমার জীবনের একটি সোনালি পত্রিকা।
মো: সুলাইমান হোসেন
কলারোয়া, সাতক্ষীরা

জ্ঞানের জাহাজ
কিশোরকণ্ঠ হচ্ছে একটি জাহাজ। এই জাহাজে রয়েছে শুধু জ্ঞান আর যে এই জাহাজে উঠবে বা ধরবে, শুধুমাত্র সেই এই জ্ঞানের সন্ধান পাবে।
মো: তরিকুল ইসলাম
নিউ লাইট মডেলে স্কুল

সাথে থাকবো
কিশোরকণ্ঠ পড়ে আমি নিত্যনতুন জ্ঞানার্জন করতে সক্ষম হয়েছি। আমি প্রতি মাসে কিশোরকণ্ঠ পড়ে থাকি। আমি সবসময় কিশোরকণ্ঠের সাথে থাকবো ইনশাআল্লাহ।
মো: সাইদ আহমেদ
আটঘরিয়া, পাবনা
সত্যিই অতুলনীয় পথপ্রদর্শক
চতুর্দিকে জ্বলছে প্রলয়ের আগুন। মানুষ হারিয়ে ফেলেছে সত্যের দিশা। চারদিকে শুধু হাহাকার। অশান্তির দুর্যোগ আর অনৈতিকতার বিষাক্ত ছোবল। এর প্রভাব পড়ছে কিশোর তরুণসমাজের ওপর। যার ফলে কিশোর তরুণরা ধাবিত হচ্ছে অন্যায়ের দিকে। কিন্তু বর্তমান দেশের কিশোর-তরুণরা যখন অন্যায় দুর্নীতির সাগরে হাবুডুবু খাচ্ছিল, তখনই তাদের সঠিক পথ দেখাতে এগিয়ে এসেছে কিশোরকণ্ঠ। আর লক্ষ কিশোর-তরুণর পেল আলোর দিশা, যা শুধু তাদের ব্যাহ্যিক অবস্থাকে আলোকিত করেনি, আলোকিত করেছে তাদের হৃদয় ও মনকে। সেই আলোর বিচ্ছুরণে দূর হয়ে যাবে সকল অন্যায় ও দুর্নীতি, সে আলোয় উদ্ভাসিত হয়ে তারা লাভ করবে আলোকিত জীবনের সন্ধান। সত্যিই কিশোরকণ্ঠ অতুলনীয় এবং এটি একটি পথপ্রদর্শকের দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছে।
শরফুদ্দীন আহম্মেদ সৌরভ
সীতাকুন্ড, চট্টগ্রাম

সেরা পত্রিকা
কিশোরকণ্ঠ পত্রিকা জগতের সেরা হওয়ার কারণ কিশোর শব্দের অর্থ তরুণ আর কণ্ঠ শব্দের অর্থ কথা। যার অর্থ দাঁড়ায় তরুণদের কথা আর সেই তরুণ হলাম আমরা। কারণ এতে রয়েছে শিশু-কিশোরের মনের কথা, রয়েছে হাজার কবিতা, রয়েছে শত শত গল্প। তাই এটি হলো জগতের সেরা পত্রিকা। এতে রয়েছে বিজ্ঞান জগৎ, আইটি কর্নার, কিশোর জিজ্ঞাসা আর শব্দধাঁধা। এই মাসের আইটি কর্নারটা আমার খুব পছন্দ হয়েছে।
মো: হাবিবুল্লাহ
বারুই পাড়া সিদ্দিকিয়া সি: ফাজিল মাদরাসা

প্রিয় নাম
কিশোরকণ্ঠ হাজার হাজার কিশোরের প্রিয় নাম। এই নামে ঝরে পড়ে জ্যোস্না, মনে জাগে হাজার সালাম। এই নামে ভোরের পাখি ভাঙায় ঘুম, প্রতি মাসে মনের গাছে আনে বসন্তের ধুম। এই নামে হাজার পাখি এক হয়ে করে সুর, এই নামে নেমে আসে আলো, আঁধার হয় দূর। এই নামে ঘাসের ওপর শিশির হয় সাত রঙে রঙিন/ এই নামে মন করে অপেক্ষা প্রতিদিন। এই নাম যেন তারার বাগান, হাজারও ফুল ফুটন্ত, দোয়া রইল তোমার জন্য এগিয়ে যাও কিশোরকণ্ঠ।
মুহাম্মাদ ওয়ালিউর রহমান ফিহাদ
নবাবগঞ্জ, দিনাজপুর

জ্ঞানের আলো
আমি ২০০৫ সাল থেকে কিশোরকণ্ঠ পত্রিকাটির সাথে পরিচিত। তখন থেকে এখন পর্যন্ত পত্রিকাটি পড়ে আসছি। এই পত্রিকার প্রত্যেকটি বিভাগ আমাকে খুব আনন্দ দেয়। আমি আরো পত্রিকা পড়েছি, কিশোরকণ্ঠ পত্রিকাটির মতো আনন্দ আর কোনো পত্রিকা দিতে পারে নাই। এই পত্রিকার মাধ্যমে আমি অনেক কিছু শিখেছি। আমি এই পত্রিকাটি আমার কোমলমতি ছাত্রছাত্রীদের হাতে তুলে দিয়েছি। তারা এখন সঠিক জ্ঞানের আলোটা হাতে পেয়েছে। আমি কামনা করি তারা যেন সঠিক জ্ঞানের আলোকে কাজে লাগাতে পারে।
মো: ইব্রাহীম খলিল
মছজিদ্দা, সীতাকুন্ড, চট্টগ্রাম

মন মাতানো পত্রিকা
আমি দেশের সর্বাধিক প্রচারিত শিশু-কিশোরদের মাসিক পত্রিকা নতুন কিশোরকণ্ঠের সাথে পরিচিত ২০১২ সালের মে মাস থেকে। সেই থেকে পত্রিকাটির নিয়মিত পাঠক। এর প্রতিটি বিভাগই ভালো লেগেছে। প্রচ্ছদ দেখেই বুঝা যায় এটি যে পরম পাওয়া। এমন একটি মনমাতানো পত্রিকা উপহার দেয়ায় কিশোরকণ্ঠ কর্তৃপক্ষকে জানাই প্রাণঢালা শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন।
মুহা: ইয়াসির আরাফাত
কোলাতপুর, নরসিংদী

আমার বন্ধু
মানুষ যেমন অপেক্ষা করে বিভিন্ন যানবাহনের জন্য কখন গাড়ি আসবে আর কখন সে গন্তব্যস্থলে পৌঁছাবে। তেমনি আমিও কিশোরকণ্ঠ নামের বন্ধুটির জন্য এমনিভাবে পথ চেয়ে বসে থাকি আর ভাবি যে কখন সামনের মাস আসবে আর আমি আমার সেই বন্ধুটিকে পাবো। ভাবতে ভাবতে আমার বন্ধু আসার সময় হয়ে যায় তবুও আমি আমার এই বন্ধুটিকে পাই না। তখন চিন্তা যেকোনো মুহুর্তে আমার বন্ধুকে হাতে পাবো।
আর যখন আমার বন্ধুকে পাই তখন আমি সবকিছু ভুলে যাই। তখন আমি আমার বন্ধুকে নিয়ে কাটাই।
মো: শাকিল আহাম্মেদ
নলডাঙ্গা, নাটোর

চমৎকার পত্রিকা
কিশোরকণ্ঠ একটি চমৎকার পত্রিকা। কারণ এতে আছে কুরআনের আলো ও হাদিসের আলো এবং আরো কত কিছু! কিশোরকণ্ঠ পত্রিকাটি শিশুদেরকে আদর্শবান করে মানুষ হিসেবে গড়ে তুলতে সহায়তা করে। তাই আমি এই পত্রিকাটি নিয়মিত পড়ি। এটি একটি চমৎকার পত্রিকা। এর প্রতি রইল আমার শুভ কামনা।
মো: শেখ ফাহিম বিন আব্দুল্লাহ
নবাবগঞ্জ, দিনাজপুর

ধন্যবাদ
কিশোরকণ্ঠ এক অনুপম আদর্শের নাম, যে আদর্শ সর্বজন কর্তৃক গৃহীত, অনুসরণযোগ্য এবং অনুকরণীয়।
সত্য ও সুন্দরের বিকাশে এবং অন্যায় ও অসত্যের বিরুদ্ধে নতুন কিশোরকণ্ঠ যে অতুলনীয়, অসামান্য, অনবদ্য সাহসী ভূমিকা পালন করে যাচ্ছে তার জন্য কিশোরকণ্ঠ পরিবারকে জানাই আন্তরিক ধন্যবাদ এবং অভিনন্দন।
মাহবুবুর রহমান মাহিন
চৌদ্দগ্রাম, কুমিল্লা

প্রশান্তির হিমেল ছোঁয়া
কিশোরকণ্ঠকে যারা প্রাণ দিয়ে ভালোবাসে আমি তাদেরই একজন। অনেক অপেক্ষার পর যখন কিশোরকণ্ঠ আমার হাতে আসে, ভুলে যাই হৃদয় গহিনে জমে থাকা সকল ব্যথা।
কিশোরকণ্ঠের প্রতিটি লেখাই আমার ব্যথিত হৃদয়ে কোমল পরশ বুলিয়ে দেয়।
আমার মনের সকল বিষন্নতা দূর করে এবং আমাকে আরও সামনে এগোতে অনুপ্রেরণা জোগায়। ফলে হৃদয়ে অনুভব করি প্রশান্তির হিমেল ছোঁয়া এবং অনাবিল সুখ ও শান্তি।
হালিমা সাদিয়া সুমাইয়া
লাকসাম, কুমিল্লা

অবসরের সাথী
কিশোরকণ্ঠ যখন হাতে পাই তখন আমার হৃদয় উৎফুল্ল হয়ে ওঠে। আর আমার লেখা যখন ছাপানো না হয় বা আমার পাঠানো লেখা না দেখি তখন মনটা নিস্তেজ হয়ে যায়।
তবুও হৃদয়ের গভীরে স্থান দেয়া পত্রিকাকে কি আর ভুলে থাকা যায়? একদিন না একদিন ছাপা হবেই, মনকে এই সান্ত্বনা দিয়ে লেখা পাঠাতে থাকি। আর অবসর পেলেই কিশোরকণ্ঠ পড়তে বসে যাই।
শরিফুল ইসলাম রাজু
দত্তপাড়া, সদর, লক্ষ্মীপুর

SHARE

Leave a Reply