Home নিয়মিত খোলা-ডাক খোলা ডাক

খোলা ডাক

Khola-dakঘুম আসে না
আমি অনেকদিন থেকেই কিশোরকণ্ঠ পড়ি। প্রতি মাসের ১০-১৫ তারিখের মধ্যে এই প্রিয় পত্রিকাটি হাতে পাই। হাতে পেয়েই ঝটপট পড়তে শুরু করি। এই পত্রিকাটির প্রত্যেক বিভাগেই রয়েছে অসংখ্য জ্ঞানের ভাণ্ডার। প্রতিদিন রাতে নিজের ক্লাসের পড়া শেষ করে যখন বিছানায় পিঠ দেই, তখন আর ঘুম ধরে না। তখন আমি কিশোরকণ্ঠ পড়ি। এভাবে অনেকক্ষণ পড়তে পড়তে আমি ঘুমিয়ে পড়ি। কিশোরকণ্ঠ না পড়লে আমার ঘুম আসে না।
মো: হাফিজুর রহমান
কাছারপুর, আতাইকুলা, পাবনা

আমার জীবনসঙ্গী
আমি আমার জীবনে যত রকম গল্পের বই পড়েছি, তার মধ্যে একটি বইও আমার মন জয় করতে পারেনি। কিন্তু একদিন এক ভাই আমাকে কিশোরকণ্ঠ উপহার দিয়েছিল। তারপর আমি সেটা পড়ি। আর এর পর থেকে আমি কিশোরকণ্ঠের প্রতি আকৃষ্ট হয়ে পড়ি। এটাকে এখন আমার জীবনসঙ্গী মনে হয়। কিশোরকণ্ঠ আমার জীবনে চিরসাথী হয়ে থাকবে।
খন্দকার ইউসুফ দাউদকান্দি, কুমিল্লা

নতুন পাঠক
আমি কিশোরকণ্ঠের একজন নতুন পাঠক। একজন বন্ধু যতটুকু পাশে থাকে তার চেয়ে বেশি সময় পাশে থাকে কিশোরকণ্ঠ। একজন বন্ধু কতটুকু উপকার করে? কিন্তু কিশোরকণ্ঠ শুধু উপকারই করে, ক্ষতি করে না। এই পত্রিকা সত্যের পথ দেখায়। সত্য বলতে শেখায়, এই পত্রিকা থেকে কুরআন-হাদিসও পড়া যায়। কারো মন যদি খারাপ থাকে তাহলে এটা পড়লে তার মন ভালো হয়ে যাবে বলে মনে করি।
জুয়েল রানা
দামোদরপুর, কালিগঞ্জ, ঝিনাইদহ

মনের মতো
আমার মনের মতো একটি সংখ্যা হচ্ছে জুন সংখ্যাটি। এটি পড়ে আমি এ থেকে অনেক উপকৃত হয়েছি। কেননা এ সংখ্যাটি পাওয়ার আগে মনের মাঝে কিছু বিষয় ঘুরপাক খাচ্ছিল যার সমাধান আমি এতে পেয়েছি। প্রতি মাসেই কিছু না কিছু আমি কিশোরকণ্ঠ থেকে পাই। তাই এর প্রতি আমার আকর্ষণ বেড়ে যায়। আমি মনে করি কিশোরকণ্ঠ শিশু-কিশোরদের জীবনে সফলতা বয়ে আনতে সাহায্য করবে ইনশাআল্লাহ। এ জন্য কিশোরকণ্ঠ কর্তৃপক্ষকে প্রাণঢালা শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানাই।
হাসিব মাহমুদ মোশারফ
ধাপ সাতগাজ কামিল মাদরাসা, রংপুর

কোথায় কী জান?
তুিম কি জান কুরআন-হাদিস সংক্রান্ত আলোচনা অল্প হলেও কোথায় পাওয়া যায়? সাধারণ জ্ঞানের আসর কোথায় পাওয়া যায়? কৌতূহল সংক্রান্ত আলোচনা কোথায় পাওয়া যায়? এগুলো পাওয়া যায় যথাক্রমে কুরআনের আলো, হাদিসের আলো, কিশোর জিজ্ঞাসা ও হাসির বাকসোতে। আর এসব ক’টিই পাওয়া যায় প্রাণের বন্ধু কিশোরকণ্ঠে!
মো: নওশেদ আলী, জগদল, পঞ্চগড়

আমার কামনা
কিশোরকণ্ঠ এমন একটি প্রিয় পত্রিকা যা অধ্যয়ন করলে একজন ছাত্র অনেক কিছু জানতে পারবে এবং আদর্শবান হিসেবে নিজেকে গড়ে তুলতে পারবে। যার উদাহরণস্বরূপ আমি নিজেই। কিশোরকণ্ঠ কিশোরদের জন্য সঠিক আলোর পথ দেখায়। তাই আমি প্রার্থনা করি, আল্লাহতায়ালা যেন এই পত্রিকাকে আরও উন্নত ও উজ্জ্বলভাবে তার কার্যক্রম চালাতে পারে।
ইসলামুল হক তুষার
জলদী, পৌরসভা বাঁশখালী, চট্টগ্রাম

জ্ঞানের বাহক
কিশোরকণ্ঠ সত্যিকারার্থেই জ্ঞানের বাহক। কিশোরকণ্ঠ জ্ঞানকে একত্র করে আমাদের দ্বারে পৌঁছে দেয়। এই জ্ঞানকে আহরণ করে আমরা জ্ঞানের তৃষ্ণা নিবারণ করতে পারি। পাশাপাশি একজন আদর্শ মানুষ হিসেবে গড়ে উঠছি। তাই আমরা আশা করি, আগামী দিনগুলোতেও কিশোরকণ্ঠ এ ধারা অব্যাহত রাখবে। আমি কিশোরকণ্ঠের দীর্ঘায়ু কামনা করছি।
আব্দুল্লাহ আল খোকন, লাকসাম, কুমিল্লা

অবাক দরজা
কিশোরকণ্ঠ আমার সবচেয়ে প্রিয় পত্রিকা। কিশোরকণ্ঠ পড়তে আমার খুব ভালো লাগে। আমি যতই কিশোরকণ্ঠ পড়ছি ততই মুগ্ধ হচ্ছি। আজ থেকে প্রায় আট বছর আগে আমি এর সঙ্গী হয়েছি। আমার মনে বিশেষ স্থান দখল করে আছে এই প্রিয় পত্রিকাটি। আমি প্রতি মাসের সংখ্যা কমপক্ষে ৪-৫ বার পড়ি। আর পরের মাসের সংখ্যার জন্য অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করি। কখন যে হাতে আসবে! বিশেষ করে ভালো লাগে কুরআনের আলো, হাদিসের আলো, সাহসী মানুষের গল্প, রহস্য উপন্যাস, হাসির বাকসো, গল্প, ইত্যাদি প্রায় সব বিভাগই। আমি যা চেয়েছি সবটুকুই কিশোরকণ্ঠে পেয়েছি। কিশোরকণ্ঠ আমাকে জ্ঞানের দরজা খুলে দিয়েছে। আমি আশা করি, কিশোরকণ্ঠ আরো আলো ছড়িয়ে দেবে। আমি এর সাফল্য কামনা করছি।
এসএম সুহাইল মাহমুদ সাব্বির
উত্তর জাহানপুর, ফতেহপুর, ফেনী

যা চেয়েছি
কিশোরকণ্ঠ জুন মাসে আমার মনের মতো সংখ্যা ছাপা হয়। এই সংখ্যার প্রতিটি লেখাই আমার ভালো লেগেছে। বেশি ভালো লেগেছে প্রচ্ছদ রচনা, গল্প, স্মরণ, উপন্যাস নীলটুনি আর মানুষ জননী, খেলার চমক সেরা ফুটবলার রোনালদো, সায়েন্স ফিকশন, ছড়া কবিতাসহ সব লেখাই অনেক ভালো লেগেছে।
আসিফুর রশীদ (তন্ময়)
ধুঞ্চি, রাজবাড়ী

SHARE

Leave a Reply