Home নিয়মিত সেরা ফুটবলার রোনালদো

সেরা ফুটবলার রোনালদো

রুহুল আমিন

একটিই প্রশ্ন ঘুরপাক খেয়েছে ফুটবলবিশ্বে গত বছরের শেষ ৬ মাসজুড়ে। প্রশ্নটি হলো, কে হবেন বছরের সেরা ফুটবলার? পর্তুগালের সুপারস্টার ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো, ফ্রান্সের মিডফিল্ডার রিবেরি, না কি আর্জেন্টিনার স্ট্রাইকার লায়নেল মেসির দখলেই থাকবে শ্রেষ্ঠত্ব। এই বিষয় নিয়ে নানা মতও আলোচিত হয়েছে। তবে উত্তর মেলেনি। অগণিত ক্রীড়াপ্রেমীর মুখে-মুখে উচ্চারিত ওই প্রশ্নের উত্তর জানতে সবাইকে অপেক্ষা করতে হয়েছে গত ১৩ জানুয়ারি পর্যন্ত। বাংলাদেশ সময় মধ্যরাতে সুইজারল্যান্ডের রাজধানী জুরিখের ফিফা কার্যালয়ে বিদায়ী বছরের অ্যাওয়ার্ড বিতরণীর জমকালো অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়েই পুরো বিশ্ব জেনে ফেলল ২০১৩ সালের সেরা ফুটবলারের পুরস্কার ব্যালন ডি’অর জয়ীর নাম। রিয়াল মাদ্রিদের স্ট্রাইকার ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো নির্বাচিত হলেন গত বছরের সেরা ফুটবলার। তার এই অর্জনের মধ্য দিয়ে বছর সেরা ফুটবলারের প্রতিযোগিতায় মেসি যুগের অবসানও হলো। পর্তুগালের ফুটবলার রোনালদোর আগে টানা চারবার বছরের সেরা ফুটবলারের পুরস্কার জিতে সবাইকে হতবাক করেন মেসি।
ফুটবল পরিচালনা সংস্থার সদস্য দেশগুলোর কোচ, অধিনায়ক ও শীর্ষস্থানীয় ক্রীড়া সাংবাদিকদের ভোটে ২০১৩ সালের সেরা ফুটবলার নির্বাচিত হলেন রোনালদো। ভোটযুদ্ধে হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ে তিনি হারিয়ে দেন সংক্ষিপ্ত তিনজনের তালিকায় থাকা অন্য দুইজন মেসি ও ফ্র্যাঙ্ক রিবেরিকে। ২৭ দশমিক ৯৯ শতাংশ ভোট পান রোনালদো। মেসি দ্বিতীয় হন ২৮ দশমিক ৭২ শতাংশ ভোট পেয়ে। তৃতীয়স্থান নিয়েই সন্তুষ্ট থাকতে হলো রিবেরিকে। ফরাসি এই মিডফিল্ডার ২৩ দশমিক ৩৬ শতাংশ ভোট পেয়েছেন। অতীতে কখনোই এতোটা প্রতিদ্বন্দ্বিতা হয়নি বছর সেরা ফুটবলার নির্বাচনের ভোট যুদ্ধে।
২০১৩ সাল জুড়েই অসাধারণ ফুটবল খেলেন রোনালদো। বছর সেরা ফুটবলারের পুরস্কার জয়ের রেসে তিনিই ছিলেন অন্য দুইজনের চেয়ে এগিয়ে। ভোটের লড়াইয়েও তার বিজয় হলো। ক্লাব দল রিয়াল মাদ্রিদ ও পর্তুগালের হয়ে গত বছর চমৎকার নৈপুণ্য দেখান রোনালনো। ১২ মাসে করেন সবচেয়ে বেশি ৬৯ গোল।
পর্তুগালকে ২০১৪ সালের বিশ্বকাপের চূড়ান্ত পর্বে উঠাতে রোনালদোর অবদানই ছিল সবচেয়ে বেশি। বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের পর প্লে-অফ ম্যাচে সুইডেনকে তিনি একাই হারিয়ে দেন। সুইডেনের মাটিতে এক ম্যাচে রোনালদো একাই করেন ৪ গোল। ইনজুরির কারণে গত বছরের শেষদিকের বড় একটা সময় মাঠের বাইরে ছিলেন মেসি। তার এই অনুপস্থিতির সুযোগ নিয়েই মূলত দ্বিতীয়বারের মতো বছর সেরা ফুটবলারের পুরস্কার জিতে নিলেন রোনালদো। তিনি এখন ফুটবলের শ্রেষ্ঠ তারকা। চূড়ান্ত লড়াইয়ে তার সাথে পেরে ওঠেননি এবারের সংক্ষিপ্ত তিনে থাকা আরেক ফুটবলার রিবেরিও। অনন্য এই প্রাপ্তির আনন্দে আবেগাক্রান্ত্র রোনালদো পুরস্কার গ্রহণের সময় কেঁদে ফেলেন। একমাত্র সন্তানকে সাথে নিয়ে স্টেজে উঠে তিনি গ্রহণ করেন ফুটবলে ব্যক্তিগত অর্জনের সর্বোচ্চ পুরস্কার ফিফা ব্যালন ডি’অরের ট্রফি।
ফিফার জমকালো অনুষ্ঠানে উপস্থিত সাবেক ও বর্তমান ফুটবলের এক ঝাঁক নক্ষত্রের মাঝে রোনালদো পুরস্কার হাতে আকাশের সবচেয়ে উজ্জ্বল নক্ষত্রের মতো জ্বল-জ্বল করতে থাকেন। এ সময় দু’ফোঁটা আনন্দ-অশ্রুও তার চোখ থেকে ঝরে পড়ল। প্রথম না হতে পারলেও সেরা ফুটবলারকে অভিনন্দন জানাতে ভুলে যান নি লায়নেল মেসি। তিনি বলেন, ‘এবার নিয়ে টানা সাতবারের মতো এই অনুষ্ঠানে হাজির হতে পেরে আমি গর্বিত। বছরের সেরা ফুটবলারের খেতাব জেতা রোনালদোকে অভিনন্দন জানাচ্ছি। গত বছর চমৎকার নৈপুণ্য দেখান তিনি। তার হাতেই পুরস্কার সবচেয়ে মানানসই হলো।’ এক সময়ের বিখ্যাত ফুটবলার রুদ গুলিত ও ব্রাজিলিয়ান মডেল ফার্নান্দো লিমার নান্দনিক উপস্থাপনার ফিফার এবারের জমকালো আয়োজনের বড় একটা অংশজুড়ে থাকল আসন্ন ২০১৪ সালের আয়োজক দেশ ব্রাজিলের নানা ঐতিহ্যের প্রদর্শনী। এ ছাড়া সুইজারল্যান্ড ও ব্রাজিলের মিলিত সঙ্গীতের সুর মূর্ছনায় বিনোদিত হলেন আগত অতিথিরাও।
পুরুষদের বছরের সেরা ফুটবলার নির্বাচনের পাশাপাশি ২০১৩ সালের সেরা মহিলা ফুটবলারও মনোনীত হলেন ওই অনুষ্ঠানেই। পুরস্কারটি উঠল জার্মানির মহিলা দলের গোলরক্ষক নাদিনে অ্যাঞ্জেরার হাতে।
বছরের সেরা গোলের পুসকাস অ্যাওয়ার্ড গেছে সুইডেনের স্ট্রাইকার ইব্রাহিমোভিচের দখলে। বর্ষসেরা পুরুষ কোচের অ্যাওয়ার্ড উঠল সবার প্রত্যাশিত কোচের হাতেই।
জার্মানির ক্লাব বায়ার্ন মিউনিখকে ২০১৩ সালে ঐতিহাসিক ট্রেবল (তিনটি শিরোপা) জেতানো জুপ হেইঙ্কেসই জিতলেন এবারের বর্ষসেরা কোচের ট্রফি।
বছরের সেরা ফুটবল দলও চূড়ান্ত হয় জুরিখের অনুষ্ঠানে। সেরা এই দলের গোলরক্ষক হিসেবে মনোনীত হন বায়ার্ন মিউনিখের গোলরক্ষক ম্যানুয়েল ন্যুয়ের। রক্ষণভাগের জন্য নির্বাচিত চার ফুটবলার হলেন জার্মানির ফিলিপ লাম, ব্রাজিলের দানি অ্যালভেজ, থিয়াগো সিলভা ও স্পেনের সার্জিও রামোস। বছরের সেরা দলে স্থান পাওয়া তিন মিডফিল্ডারের দুইজনই স্পেনের। এরা হলেন, বার্সেলোনার সুপারস্টার আন্দ্রেস ইনিয়েস্তা ও জাভি হার্নান্দেজ। অন্য মিডফিল্ডার হিসেবে নেয়া হয়েছে ফ্র্যাঙ্ক রিবেরিকে। গোলের খেলা ফুটবলের আলোচিত পজিশন স্ট্রাইকার হিসেবে বছরের সেরা দলে অন্তর্ভুক্ত হয়েছেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো, লায়নেল মেসি ও সুইডেনের ইব্রাহিমোভিচ।

SHARE

Leave a Reply