Home হাসির বাকসো হাসির বাকসো

হাসির বাকসো

রোগী : ডাক্তার সাহেব, আসব?
ডাক্তার : আসুন। কিন্তু আমি তো শিশুদের চিকিৎসক।
রোগী : জানি, আমার সমস্যাটাও শুরু হয়েছিল সেই শিশুকালে।
সংগ্রহে : মো: সেলিম মিয়া
কাপাসিয়া, গাজীপুর

ডাক্তার : আপনার পেটে একটা স্ক্যান করে দেখা দরকার, কোনো সমস্যা আছে কি না।
রোগী : তার দরকার নেই। গত মাসে লন্ডন থেকে আসার সময় এয়ারপোর্টে আমার ফুল বডি স্ক্যান করেছে। কোনো সমস্যা পায়নি।
সংগ্রহে : ছিবগাত উল্লাহ্ জুন্নুন
দক্ষিণ যাত্রাবড়ী, ঢাকা

হাসপাতালে ভর্তি হওয়া এক রোগীর দুই আত্মীয় কথা বলছিল-
হাসান : চাচা, এক ডাক্তার এই পরীক্ষাগুলো করিয়ে তাকে দেখাতে বললেন।
কামাল : তা তুই ওই ডাক্তারকে চিনে রেখেছিস তো? পরে খুঁজে পাবি?
হাসান : জি পাব, উনি শার্টের ওপর অ্যাপ্রোন পরেছেন।
কামাল : অ্যাপ্রোন তো সব ডাক্তারই পরে।
হাসান : তা পরে। কিন্তু তারটা সাদা।
সংগ্রহে : মো: ইনামুল আতিক
লালবাজার, বন্দরবাজার, সিলেট

একদিন পাগলা গারদের এক ডাক্তার তিন পাগলের উন্নতি দেখার জন্য পরীক্ষা নিচ্ছিলেন। পরীক্ষায় পাস করতে পারলে মুক্তি, আর না পারলে আরো দুই বছরের জন্য আটকানো হবে। ডাক্তার তিনজনকে সাথে নিয়ে একটা পানিশূন্য সুইমিং পুলের সামনে গিয়ে ঝাঁপ দিতে বললেন। প্রথম পাগল সাথে সাথেই ঝাঁপ দিয়ে পা ভেঙে ফেলল। দ্বিতীয় পাগলটিও ডাক্তারের কথামতো ঝাঁপ দিয়ে হাত ভেঙে ফেলল। কিন্তু তৃতীয় পাগলটি কোনোমতেই ঝাঁপ দিতে রাজি হলো না। ডাক্তার আনন্দে চিৎকার করে উঠে বললেন, আরে, তুমি তো পুরোপুরি সুস্থ। তোমাকে মুক্ত করে দেব আজই। আচ্ছা বলো তো তুমি কেন ঝাঁপ দিলে না?
জবাবে সে বলল, আমি তো সাঁতার জানি না!
সংগ্রহে : রোকন উদ্দিন মাহমুদ আরিফ
ফিরোজশাহ ৯ নং ওয়ার্ড, চট্টগ্রাম

ছোট্ট সিজান গেছে গোয়েন্দাদের অফিসে। দেয়ালে ‘ওয়ান্টেড’-এর তালিকায় টাঙানো অপরাধীদের ছবি দেখে সে গোয়েন্দা অফিসারকে প্রশ্ন করল, তোমরা কি সত্যিই ওদের গ্রেফতার করতে চাও?
গোয়েন্দা : অবশ্যই।
সিজান : তাহলে ছবি তোলার সময়ই আটকে রাখলে না কেন?
সংগ্রহে : আহসানুল আলম চৌধুরী
সিলেট সরকারি পাইলট উচ্চবিদ্যালয়

আকিব : হ্যালো, এটা থানা?
পুলিশ : হ্যাঁ, আমি থানার ওসি বলছি।
আকিব : ওসি সাহেব, এখানে মাটির নিচে অনেক লাশ!
পুলিশ : কী, সত্যি? আমি ফোর্স নিয়ে আসছি। ঠিকানা বলুন।
আকিব : বনানী কবরস্থান।
সংগ্রহে : রেজওয়ান শাহরিয়ার
আল-ইকরা ক্যাডেট একাডেমী, চুয়াডাঙ্গা

SHARE

12 COMMENTS

  1. যে টেলিফোন আসার
    কথা সে টেলিফোন
    আসেনি।
    প্রতীক্ষাতে প্রতীক্ষাতে
    সূর্য ডোবে রক্তপাতে
    সব নিভিয়ে একলা আকাশ নিজের শূন্য
    বিছানাতে।
    একান্তে যার হাসির কথা হাসেনি।
    যে টেলিফোন আসার কথা আসেনি।

  2. ও হাসতে হাসতে পেট ব্যাথা হয়ে গেল…।।

Leave a Reply to shahnur islam rafi Cancel reply