Home সাহসী মানুষের গল্প আগুনঝরা দিনগুলো

আগুনঝরা দিনগুলো

কায়েস মাহমুদ

সেই এক সময় বটে!
কী কঠিন সেই দিনগুলো!
মনে পড়তেই শরীর শিউরে ওঠে।
একদিনের কথা।
রাসূলুল্লাহ (সা) তাঁর সাহাবীদেরকে তাবুক যুদ্ধে যোগদানের জন্য আহ্বান জানান।
এই আহ্বানে সাড়া দান করা ছিল শক্ত ঈমানের পরিচায়ক।
কারণ, সময়টি ছিল প্রচণ্ড গরমের, অতি দূরের পথ, সর্বোপরি সেটি ছিল ফসল ও ফল পাকার মৌসুম।
ফলে সক্ষম সাহাবায়ে কিরামের বেশির ভাগ সদস্য এ আহ্বানে সাড়া দান করলেও কিছু মুনাফিক ও কয়েকজন মুমিন ব্যক্তি যুদ্ধে যোগদান থেকে বিরত থাকেন।
তাদের ব্যাপারে আল কুরআনেও আলোচনা এসেছে।
ঠিক তার পাশাপাশি আরো কিছু লোকের প্রসঙ্গও এসেছে যাঁরা ছিলেন খাঁটি ঈমানদার, যুদ্ধে অংশগ্রহণের প্রবল ইচ্ছাও তাঁদের ছিল, কিন্তু বাহন ও পাথেয় সংগ্রহের মতো অর্থ না থাকায় তাঁরা রাসূলুল্লাহর (সা) কাছে আসেন সাহায্য লাভের আশায়।
কিন্তু তিনি তাঁদেরকে কোনো রকম সাহায্য করতে অক্ষমতা প্রকাশ করায় তাঁরা চোখের পানি মুছতে মুছতে ফিরে যান।
ইরবাদ (রা) ছিলেন এই দলটির একজন।
তাঁরা ছিলেন খাঁটি ঈমানদার।
রাসূলুল্লাহ (সা) যখন তাঁদেরকে বাহন দিতে অপারগতা প্রকাশ করেন তখন রাসূলুল্লাহর (সা) সাথে একটি যুদ্ধে অংশগ্রহণের সুযোগ থেকে বঞ্চিত হওয়ার যে কষ্টের অনুভূতি তাঁদের মধ্যে সৃষ্টি হয়েছিল তা আল কুরআনেও এভাবে এসেছেÑ “তাদেরও কোনো অপরাধ নেই যারা তোমার কাছে বাহনের জন্য এলে তুমি বলেছিলে, তোমাদের জন্য কোনো বাহন আমি পাচ্ছি না, তারা অর্থব্যয়ে অভাবজনিত দুঃখে চোখের পানি ফেলতে ফেলতে ফিরে গেল।”
এই ঘটনা সম্পর্কে আবদুল্লাহ ইবন আব্বাস (রা) বলেন, তাঁরা রাসূলুল্লাহর (সা) কাছে বাহনের পশু চান।
তাঁদের প্রত্যেকের জন্য দু’টি করে উটের প্রয়োজন ছিল। একটিতে তিনি নিজে চড়বেন এবং অন্যটিতে পানি ও পাথেয় বহন করবেন। কারণ, সেটি ছিল দূরের পথ।
রাসূলুল্লাহর (সা) কাছ থেকে তাঁরা হতাশ হয়ে চলে গেলেন।
ইয়ামিন ইবন উমাইর আন-নাফারী (রা) নামক একজন সাহাবী দেখলেন, আবদুর রহমান ইবন আবী লায়লা আল-মাযিনী ও আবদুল্লাহ ইবন মুগাফফাল আল-মুযানী (রা)-দু’জন এক জায়গায় বসে কাঁদছেন।
তিনি তাঁদের এভাবে কান্নার কারণ জানতে চাইলেন।
তাঁরা বিষয়টি তাঁকে খুলে বললেন।
তিনি তাঁদের দু’জনকে একটি পরিণত বয়সের উট এবং দু’ সা’ করে খেজুর দিলেন।
তাঁরা সেগুলো পেয়েই রাসূলুল্লাহর (সা) সঙ্গে যুদ্ধে বেরিয়ে পড়েন।
আর আব্বাস (রা) দু’জনের এবং উসমান (রা) তিনজনের বাহন ও পাথেয়ের ব্যবস্থা করেন।
রাসূলুল্লাহ (সা) তাঁদেরকে আবার ডাকেন এবং সাদা চুট বিশিষ্ট পাঁচটি উট দান করে বলেন, তোমরা বেরিয়ে পড় আল্লাহ তোমাদের বাহনের ব্যবস্থা করেছেন।
রাসূলের (সা) কাছ থেকে এমন বাহন পেয়ে এবং তাঁর কথা শুনে তাঁরা তাবুক যুদ্ধের জন্য বেরিয়ে পড়লেন।
তাবুক যুদ্ধটি ছিলো খুব কঠিন এক সময়ের যুদ্ধ।
তবুও রাসূলের (সা) নির্দেশ বলে কথা!
তবুও সত্য ও মিথ্যার মধ্যে লড়াইয়ের কথা!
মুমিন কখনো ভয় পান না যুদ্ধের বিষয়ে।
আপস করেন না মিথ্যার সাথে।
বরং সাহস ও সংগ্রামের সাথে এগিয়ে চলেন সামনের দিকে। সর্বক্ষণ।
তাঁরা কোনো কিছুরই পরোয়া করেন না।
সত্যের সৈনিকেরা তো এমনই হন!
যারা আগুনের দরিয়া পার হয়ে যান সত্যের আহ্বানে।
রাসূলের (সা) ডাকে।
আল্লাহর রাস্তায়!

SHARE

3 COMMENTS

  1. এই লেখাটা কোন মাসের তা বোঝার কোন উপাই আছে কি ?

Leave a Reply