Home জানার আছে অনেক কিছু আইনের গাউন যেভাবে এলো

আইনের গাউন যেভাবে এলো

বিজ্ঞ বিচারক এবং আইনজীবীদের কোট বা গাউন কালো কেন? কেন তাদের শার্ট সাদা? কেনইবা কালো টুপি পরে বিজ্ঞ বিচারক অপরাধীদের মৃত্যুদঊাদেশ দেন? এসব নিয়ে অনেক মতামত রয়েছে। এর মধ্যে স্বীকৃত বিষয়টি হলো, রোমান আইনের কার্যক্রমে কালো কোটের ব্যবহার ছিল, যা ইংরেজদের মাধ্যমে মনত—াত্তি?ক রহস্যের সারথী ধরে উপকথা হিসেবে হাজারো বছর ধরে চলে আসছে। বেঞ্চ ও বারের পোশাকের বিষয়ে বিশেষ করে কালো কোট, কালো গাউন, সাদা বো বা ব্যাট ইত্যাদি প্রাচীনপন্থিদের মতাদর্শের আলোকেও প্রচলিত দুটি পদ্ধতি। এটি আইন-বিজ্ঞানে আনুষ্ঠানিকভাবে উলেৎখ না থাকলেও আইনপাড়ায় বিশেষ রেওয়াজ ও আচারভিত্তিক রীতি হিসেবে প্রচলিত।
বিকল্প তত্ত্বে মনে করা হয়, কালো কোট বা গাউনের অর্থ নিজের পরিচয় গোপন রাখা। এ ছাড়া কালো কোট বা গাউনের মধ্যে গলায় সাদা বো বা ব্যান্ড ব্যবহারের প্রধান হেতু হলো তিমিরাচ্ছন্ন থেকে সাদা তথা আসল সত্যকে খুঁজে বের করা। (অং ঃযব ইড়ি ্ ইধহফ নবরহম ঃযব ংুসনড়ষ ড়ভ শবুরহম ড়ৎ ংবধৎপযরহম ড়ঁঃ যরফফবহ ৎবধষ ঃৎঁঃয ড়ভ রহপরফবহপব.) এর আগে বাংলাদেশসহ ব্রিটিশ কলোনিগুলোর বেঞ্চে, বিচারকদের পরিধানকৃত কালো কোট বা গাউনের হাতা ব্যক্তির হাতের চেয়ে লম্বা রাখার রেওয়াজ ছিল। এখন আর সে রীতির প্রচলন নেই। তবে যুক্তরাজ্যে এই বিধি এখনও মেনে চলা হচ্ছে। লম্বা হাতার ব্যাখ্যা হলো, আইনের হাত এত দীর্ঘ যে, আসামি যেখানেই লুকিয়ে থাকুক না কেন, এ হাত তাকে খুঁজে বের করবেই। অন্যভাবে বলা হয়ে থাকে, অপরাধী যত জ্ঞান বা ক্ষমতার অধিকারী হোক না কেন, আইনের হাত লম্বা বিধায় সংশ্লিষ্ট সাজাপ্রাপ্ত আসামি বেঞ্চের রায় মানতে বাধ্য। বিচারকের সাদা লম্বা পরচুলা পরার রেওয়াজ আমাদের দেশ থেকে উঠে গেছে। তবে প্রধান বিচারপতি এখনও পরচুলা পরে থাকেন। বিচারকের পরচুলা পরিধান ছাড়া যুক্তরাজ্য ও যুক্তরাষ্ট্রে এখনও কোনো বিচারকাজ সম্পন্ন হয় না। তারা এখনও এর গুরুত্ব এবং নিগূঢ় দর্শন আঁকড়ে আছেন। সাদা পরচুলার পেছনের রহস্য হলো, মা-জননী সন্তানের প্রতি যেমন স্নেহপরায়ণ, তেমনি তার কাছে সব সন্তান একই এবং সমান। কারও প্রতি অবিচার করার মানসিকতা থাকে না। সে আলোকেই দু’পক্ষই (বাদী ও বিবাদী) তার সন্তান বলে বিবেচ্য। তাই বিচারকার্যে যাতে সঠিক বিচারের পথ সমুন্নত থাকে এবং কোনো পক্ষপাতিত্বের অবকাশ না থাকে। এজলাসে দু’পক্ষের কথা ও আবেদন আন্তরিকভাবে শুনে, বিচারক ঠাণ্ডা মাথায় রায় দিয়ে থাকেন। যাতে বিবাদী আত্মপক্ষ সমর্থন, মৌলিক অধিকার ও ন্যায়পরায়ণতার বরখেলাপের কোনো সুযোগ না পায়।
হ জে হুসাইন

SHARE

Leave a Reply