Home নিয়মিত ভবিষ্যতে খারাপ কোনো ঘটনা ঘটবে না শুভদিন আসছে – কবি আল মাহমুদ

ভবিষ্যতে খারাপ কোনো ঘটনা ঘটবে না শুভদিন আসছে – কবি আল মাহমুদ

জন্মদিনে ভক্তদের ভালোবাসায় সিক্ত আল মাহমুদ

৭৭-এ আল মাহমুদ স্মারক গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন

১১ জুলাই ছিল চিরসবুজের কবি আল মাহমুদের ৭৭তম জন্মদিন। আনন্দঘন উৎসবে পালিত হয় সমকালীন বাংলা সাহিত্যের প্রধান কবি আল মাহমুদের এই জন্মদিনটি। আর এ উপলক্ষে কিশোরকণ্ঠের আয়োজন সবাইকে তাক লাগিয়ে দেয়। মুগ্ধতায় সিক্ত হয় ব্যতিক্রমী আয়োজনটি। সেই আয়োজনটি হলোÑ জনপ্রিয় শিশু-কিশোর মাসিক পত্রিকা নতুন কিশোরকণ্ঠের উদ্যোগে “৭৭-এ আল মাহমুদ” নামক বর্ণিল ও সমৃদ্ধ স্মারকগ্রন্থ প্রকাশ। কবির বাসভবনে স্মারকের মোড়ক উন্মোচন করা হয়। এ সময় কবি আল মাহমুদ বলেন, ‘আমি জন্মদিনকে এত গুরুত্বপূর্ণ মনে করি না। তবে আমার ভক্ত যারা আছেন ও পরিবারের সদস্যরা মিলে পালন করেন। মানুষের এই ভালোবাসার প্রতিউত্তর আমি দিয়ে থাকি। যা কিছু আমি লিখেছি এর ভেতর তার একটা সার্থকতা খুঁজে পাই। বাংলা সাহিত্য একটা সোজা ব্যাপার নয়, বহু লেখক-কবির ত্যাগ দ্বারা এ সাহিত্য গড়ে উঠেছে। এখানে আমিও অংশ নিয়েছি, এটা ভাবতে ভালো লাগে। আমাকে উপলক্ষ করে এতো লোক যে সমবেত হয়েছে এতে আমি অভিভূত এবং আমি মনে করি কবির যে সমস্ত কাজ, যে সব কাজ কবিকে করতে হয় সে সব কাজ আমি পূর্ণ করতে পেরেছি।’
কবি আরো বলেন, ‘দেশের মানুষ কমবেশি আমাকে জানেন। আমি তাদের মধ্যেই কাজ করেছি, তাদের মধ্যেই থাকতে চেয়েছি। দেশের মানুষ আমাকে যে সম্মান দিয়েছেন এটাকে আমি উচ্চমূল্য দিয়ে থাকি। এটাই আমার চলার শক্তি জুুগিয়েছে। আমার বিশ্বাস যারা সাহিত্য চর্চা করেনÑ তারা খালি হাতে ফেরেন না। আমিও শূন্য হাতে ফিরে যাচ্ছি না। মানুষকে আমি খুব ভালোবাসি। এই পৃথিবীর মানুষের উদ্দেশে আমার প্রধান কথা হলো, ভবিষ্যতে খারাপ কোনো ঘটনা ঘটবে না। শুভদিন আসছে। কামান বন্দুকের দিন নয়, পবিত্রতম সময়। আমি এই পথের অভিযাত্রীদের অভিনন্দন জানাই। আর কিশোরকণ্ঠ আমার প্রাণের পত্রিকা। আমি বহুদিন ধরে কিশোরকণ্ঠের সাথে পরিচিত এবং তাদের সামগ্রিক কর্মকাণ্ড, অনুষ্ঠানাদিতে অংশগ্রহণ করে থাকি। আমার জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে তাদের আগ্রহ ও আয়োজন দেখে আমি মনের মধ্যে প্রচুর শক্তি পেয়েছি। ওই তো, তারুণ্য আমাকে হাতছানি দিয়ে ডাকছে!’
স্মারকের মোড়ক উন্মোচন ও শুভেচ্ছা জ্ঞাপন অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন নতুন কিশোরকণ্ঠের সম্পাদক কবি মোশাররফ হোসেন খান, নির্বাহী সম্পাদক নিজামুল হক নাঈম, সহকারী সম্পাদক জুবায়ের হুসাইন, আনিসুর রহমান, তোফাজ্জল হুসাইন, সম্পাদনা সহযোগী মাজহারুল ইসলাম, আলফাজ হুসাইনসহ কিশোরকণ্ঠ পরিবারের সদস্যবৃন্দ। এ স্মারকে বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের বিরোধী দলীয় নেত্রী বেগম খালেদা জিয়াসহ শুভেচ্ছা বাণী দিয়েছেন বিশিষ্ট রাজনীতিবিদ, বুদ্ধিজীবী, চলচ্চিত্র নির্মাতা ও সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠকবৃন্দ। কবিকে নিয়ে লিখেছেন কথাশিল্পী জুবাইদা গুলশান আরা, কবি আবদুল হাই শিকদার, কবি মোশাররফ হোসেন খান, শিল্পী হামিদুল ইসলাম, কবির বড় ছেলের স্ত্রী শামীমা আক্তার বকুল ও জুবায়ের হুসাইন। কবিকে নিবেদন করে কবিতা লিখেছেন কবি আসাদ বিন হাফিজ, কবি জাকির আবু জাফর, ড. মাহফুজুর রহমান আখন্দ, কবি রেদওয়ানুল হক প্রমুখ। স্মারকটির প্রচ্ছদ করেছেন হামিদুল ইসলাম এবং গ্রাফিক্স করেছেন মনিরুজ্জামান মনির। কিশোরকণ্ঠের বিভিন্ন অনুষ্ঠানে আল মাহমুদের অংশগ্রহণের কিছু ছবি নিয়ে ‘স্মৃতির ফ্রেমে’ নামক অ্যালবাম সংযোজিত হয়েছে স্মারকটিতে।

SHARE

1 COMMENT

Leave a Reply to জাবেদ ভুঁইয়া Cancel reply