Home কুরআন ও হাদিসের আলো কুরআনের আলো রমজান মু’মিনের প্রশিক্ষণের মাস

রমজান মু’মিনের প্রশিক্ষণের মাস

“রমজান মাসই হলো সে মাস, যাতে নাজিল করা হয়েছে কুরআন, যা মানুষের জন্য হেদায়াত এবং সত্যপথযাত্রীদের জন্য সুস্পষ্ট পথনির্দেশ আর ন্যায় ও অন্যায়ের মাঝে পার্থক্য বিধানকারী। কাজেই তোমাদের মধ্যে যে লোক এ মাসটি পাবে, সে এ মাসে রোজা রাখবে। আর যে লোক অসুস্থ কিংবা মুসাফির অবস্থায় থাকবে, সে অন্য দিনে গণনা পূরণ করবে। আল্লাহ তোমাদের জন্য সহজ করতে চান; তোমাদের জন্য জটিলতা কামনা করেন না।”

(সূরা বাকারা, আয়াত : ১৮৫)

সুপ্রিয় বন্ধুরা

প্রতি বছরের মতো এবারও আমাদের মাঝে রমজান আসছে নতুন সওগাত নিয়ে, এলো নতুন বার্তা নিয়ে। রমজান এলো মু’মিন মুসলমানের হিদায়াতের বাণী নিয়ে। রমজান মাস মুমিনের জন্য একটি বিশেষ প্রশিক্ষণের মাস। প্রতিদিন সিয়াম সাধনার মাধ্যমে তাকওয়া অর্জনের মাস রমজান। তাকওয়ার পাশাপাশি রমজান মাস সকল মানুষকে সময়ের সদ্ব্যবহার শেখায়। সময়ের কাজ সময়মতো করতে শেখায়। প্রশিক্ষণের জন্য রমজান একটি উত্তম মাস। কারণ এই মাস এমন একটি মাস যে মাস আমাদেরকে সর্বোচ্চ নিয়মানুবর্তিতা শিক্ষা দেয়। প্রতিটি কাজ নির্দিষ্ট সময়ে সম্পন্ন করা, রাতের শেষে সেহেরি খাওয়া, দিনের শেষে ইফতারি গ্রহণ করা ইত্যাদি যাবতীয় কাজ সঠিক সময়ে করতে শেখায়। সুবহে সাদেক থেকে শুরু করে সূর্যাস্ত পর্যন্ত দীর্ঘ সময় মানুষকে খাওয়া দাওয়া থেকে বিরত রাখার মধ্য দিয়ে মহান প্রভুর দিকে আনুগত্যের মস্তক অবনত করতে শেখায়। এ ছাড়া প্রতিদিন রাতে তারাবিহ নামাজের মাধ্যমে মুসল্লিগণ আল্লাহর কাছে নিজেকে পেশ করার সুযোগ পান। এভাবে রমজান থেকে মানুষ নিয়মানুবর্তিতার এক উত্তম পদ্ধতি শিক্ষা গ্রহণ করে। তাই রমজান মাস মুসলমানদের জন্য এক বিশেষ নিয়ামতের মাস।

একজন মানুষ যদি সঠিক সময়ে রমজানের সকল কাজ সম্পাদন করে এবং নিজেকে আল্লাহর সামনে পেশ করে তবে অবশ্যই তার মাঝে পাপের কোন চিহ্ন থাকতে পারে না। দিনের বেলা পানাহার থেকে মুক্ত থেকে রাতের বেলায় আল্লাহর ইবাদতে নিজেকে মশগুল রেখে তাঁর সান্নিধ্যে পৌঁছা যায়। সুতরাং রমজান মাস থেকে শিক্ষা নিতে হবে যেন বাকি মাসগুলোকে আমরা এভাবে কাজে লাগাতে পারি। তাই আমাদের উচিত রমজান মাসকে প্রশিক্ষণের মাস হিসেবে গ্রহণ করা যাতে এর মাধ্যমে আল্লাহর একজন প্রিয় বান্দা হওয়া যায়।

প্রিয় বন্ধুরা

এসো আমরা রমজান মাস থেকে শিক্ষা নিই এবং এ মাসটিকে সর্বতোভাবে কাজে লাগানোর চেষ্টা করি।

গ্রন্থনায় : আবদুল কুদ্দুস মাখন

সংশোধনী : গত জুন ২০১১ সংখ্যায় কুরআনের আলোয় সূরা আন নূর-এর আয়াত নম্বরটি ভুলবশত ৪১ ছাপা হয়েছে। মূলত আয়াতটি হলো ৬১ নম্বর। অনিচ্ছাকৃত এ ভুলের জন্য আমরা দুঃখিত। – সম্পাদক

SHARE

Leave a Reply